× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার

‘খিচুড়ি রান্নার জন্য নয়, মিড ডে মিল বাস্তবায়নে বিদেশে প্রশিক্ষণ’

শিক্ষাঙ্গন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ২:২৫

খিচুড়ি রান্না প্রশিক্ষণের জন্য নয়, অন্যান্য দেশ স্কুলে মিড ডে মিল (দুপুরের খাবার) কীভাবে বাস্তবায়ন করে, সেক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা অর্জনে বিদেশে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আকরাম-আল-হোসেন।

আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, তবে এক্ষেত্রে মোট প্রকল্পের অতি অল্প অর্থ ব্যয় ধরা হয়েছে। এ অর্থ ব্যয় কোনো অপচয় নয় বরং অভিজ্ঞতা অর্জনে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাটা রাখা হয়েছে। এ প্রকল্পের কোনো অর্থ এখনো ছাড়া হয়নি। পরিকল্পনা কমিশন কিছু জিজ্ঞাসা পাঠিয়েছে। তার জবাব পাঠানো হবে। এরপর একনেকে চূড়ান্ত অনুমোদন হবে।

তিনি আরো বলেন, স্কুল ফিডিং প্রকল্প ১০৪টি উপজেলায় চালু ছিল যা ডিসেম্বরে শেষ হচ্ছে। আগামী বছর থেকে সারাদেশে নির্বাচনী ইস্তেহারমতে সব স্কুলগুলোতে দুপুরের খাবার দেয়া হবে।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
z Ahmed
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ৯:১৪

Wastage of tax payers money and helping a particular country.

adv.md iqbal akhter
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ৮:৪৩

era hocce awami dakat dol lutera bahini

Delwar Hossain
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৬:১১

To prepare bunakhisuri this is need to experience ata akta ajob desh.

Sujan
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৫:০৮

mr secretary shame on you. For midday meals you need to learn from abroad. Then why you hold this chir,immediately leave the position. Because you don't have any idea,

ঊর্মি
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ১২:২৭

দেশের জনগণকে সরকার হয় গাধার দল মনে করে আর নাহয় কোনো পরোয়াই করেনা !

nurul choudhury
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ১২:২১

What a stupid idea. Do your own research how to provide midday food. Please do not waste money on a idiotic idea.

DR.FEROZ TALUKDER
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ১১:১৭

Rt hon ladies and gents learn from your wife or a mother get 5,000Tk each from govt paid your family!! or jump in the river and die and save the BD!!

Rashed
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৯:৩৩

Ekjon k Pathan. Shike eshe train dibe.

No name
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৯:৩১

Ar Kato batpari. Juta peta jora uchit

Ruhul
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৭:২১

বাজেট উল্লেখ করলে ভাল হত ! বিদেশ থেকে আর কি কি শিখতে হবে আল্লাহ জানেন !

বাসার
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৭:১৩

নীচের সব মতামত সুন্দর মানণীয় প্রধান মন্ত্র্রীর নজরে দেওয়া জরুরী।

Md. Harun al-Rashid
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৫:৩৭

বড় সংকট-রান্না সংকট মানে 'বড় সংকটে পড়েছি দয়াল......'। ইহাদের কবলে পড়েছ দেশ এটাই সংকট। দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পষ্টি বিজ্ঞান বিভাগগুলি সল্প খরচায় পুষ্টি সমৃদ্ধ মিড ডে মেনু দিতে পারে। সহজ লভ্য উপকরনের ঋতু ভিক্তিক তালিকা তৈরী করে বাজেট মত উপজেলা/ ইউনিয়ন উয়ারী ঠিকাদারী ব্যবস্হায় করা যেতে পারে। স্হায়ী বাবুর্চি নিয়োগ মানে দলাদলি, ঘুষ, দূনীতি,প্রমোশন, রান্না বর্জন, আরো কত কি।সংকট তৈরী না করে টিক সই ব্যবস্হায় যেতে আবেদন করি।

আবুল কাসেম
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৪:২৩

সবচেয়ে ভালো ব্যবস্থা হবে শিক্ষার্থীরা বাসা থেকে মায়ের হাতে রান্না করা মিড ডে খাবার নিয়ে আসবে। স্কুল কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের খাওয়ার বিল বা ভাতা পরিশোধ করবেন। স্কুল কর্তৃপক্ষ খাওয়ার মেনু ঠিক করে দিতে পারেন। যাতে সকল শিক্ষার্থীর খাবার একই রকম হয়। বাসা থেকে সরবরাহ করা খাবার যেমন স্বাস্থ্যসম্মত, নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত হবে তেমনি সাশ্রয়ীও হবে। স্কুলে খাওয়ার আয়োজন করা মানে বিরাট এক কর্মযজ্ঞ। এতে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান বিঘ্নিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই মায়ের হাতের বাসা থেকে রান্না করা খাবার সরবরাহ করাই শ্রেয়।

Rakib
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৩:০৬

নদীমাতৃক বাংলাদেশ থেকে যদি পুকুর খননে প্রশিক্ষণের জন্য উগান্ডায় যেতে হয়, তবে এই কাজেও বিদেশে প্রশিক্ষণ জরুরী!

Ahmed Nesar
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৩:০৫

আমি ইংলান্ড দেখেছি বাংলাদেশী খাবার খাওয়ার জন্য পৃথিবীর নানাদেশের মানুষ বাংলাদেশী রেস্টুরেন্টে লাইন ধরেন,আর আমাদের দেশের মান্যবর’রা বিদেশ ঘুরে বেড়াবেন রান্না শিখতে ও বিতরন শিখতে,মহাবীর নেপলিয়ান বেঁচে থাকলে কি বলতেন কি বিচিত্র বাংলাদেশের মান্যবর’রা,মান্যবর’রা সুখে থাকেন!

sohel
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৪:০২

korona kale sorkarer rojoshow income onek kom. public servent der beton dite sorkarke bank theke loan nite hosche . ai mohorte ai sob opobai na korle ki amlader chole na. amlara ki ai desher sadharan manoser kosto kokhonoi bujbe na.

Kazi
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ২:৫৯

Is the recent generation of government employees are non creative brain less people ? For mid day meal service in school need training ? Did Indian people who organized it at the beginning went to any country for training. If honestly try and serve what is cooked is enough. These 15 crore can feed lot of children for 2 months at schools.

Khokon
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ২:২৩

বাঙালি খানা, বাঙালি উপয়ে রান্না করে শিশুদের খাওয়ানো অভ্যাস করুন, কিসের দরকার হিন্দি খানা অবাঙালি কাইদা হয় পাক শিখানো ? এমনিতে দেশে প্রতি বছর পিয়াজসংকট, আবার ঐ দেশে গিয়ে রান্না শিকলে হয়তো এমন শিক্ষা দিবে যে আমাদের দেশে পিয়াজের সংকট আজীবনই থেকে যাবে।

নিশিতা
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ১:৪৯

আমাদের দেশে কি কোনো ভালো রাঁধুনী নাই যে সে মিড ডে মিল করতে পারে ???সেই তো কর্মশালার আয়োজন করতে পারতো।নাকি তাতে টাকা নষ্ট করার কৌশল ঠিক হতো না?আমরা বাংলাদেশীরা অনেক জায়গায় অনেক মেধার অনেক স্বাক্ষর রাখছি কিন্তু।

অন্যান্য খবর