× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার
নারায়ণগঞ্জ ট্র্যাজেডি

কোনো পক্ষই দায় এড়াতে পারে না: তদন্ত কমিটি

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, শুক্রবার, ৯:২১

নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা বাইতুস সালাত জামে মসজিদে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় জেলা প্রশাসন গঠিত পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি তাদের প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। কমিটি গঠনের দীর্ঘ ১১ দিন পর গতকাল বিকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিনের হাতে এই প্রতিবেদন দাখিল করেন তদন্ত কমিটির প্রধান ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খাদিজা তাহেরা ববি।
এ সময় তদন্ত কমিটির অন্যান্য সদস্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ টি এম মোশারফ হোসেন, ডিপিডিসির পূর্ব বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী গোলাম মোরশেদ, ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানির নারায়ণগঞ্জের উপ-মহাব্যবস্থাপক মফিজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিবেদন দাখিলের পর তদন্ত কমিটির প্রধান ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গণমাধ্যমকে জানান, তদন্ত প্রতিবেদনে তিতাস গ্যাস পাইপের লিকেজ, বিদ্যুৎ বিভাগের ত্রুটি, মসজিদ কমিটির গাফিলতি, ভবন নির্মাণে রাজউকের অব্যবস্থাপনা এবং মসজিদের সামনের রাস্তা নির্মাণে সংশ্লিষ্টদের অবহেলার বিষয়টি এসেছে। এ ছাড়া এসব অনিয়ম রোধে তদন্ত কমিটি জেলা প্রশাসকের কাছে ১৮টি সুপারিশ পেশ করেছে। এরমধ্যে মসজিদ নির্মাণের আগে আর্কিটেক দিয়ে ড্রয়িং ডিজাইন করা, মসজিদ বা সরকারি প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ ও গ্যাস লাইন সংযোগের ব্যাপারে ম্যাপ আকারে বিভিন্ন দিকনির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। তবে তদন্তে বিস্ফোরণের জন্য এককভাবে কাউকে দায়ী করা হয়নি বলেও জানান তদন্ত কমিটির প্রধান।
জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন জানান, তদন্ত কমিটি ১০ কার্যদিবসে তিতাস, ডিপিডিসি ও মসজিদ কমিটিসহ প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে তদন্ত রিপোর্ট তৈরি করে জমা দিয়েছেন। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট ও তাদের দেয়া সুপারিশ বিবেচনা করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
প্রসঙ্গত গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর রাতে এশার নামাজ চলাকালে এই মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেলের শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আরো ৫ জনকে সেখানকার আইসিইউতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
ঘটনার একদিন পর ৬ই সেপ্টেম্বর ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে একটি মামলা দায়ের করে। পরে মামলাটির তদন্তভার দেয়া হয় সিআইডি পুলিশকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর