× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১ নভেম্বর ২০২০, রবিবার

বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

শিক্ষাঙ্গন

বশেমুরবিপ্রবি সংবাদদাতা | ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৫:০৫

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে কম্পিউটার চুরির প্রকৃত চোরদের শনাক্তকরণ এবং তদন্তের প্রতিবেদন জনসম্মুখে প্রকাশের দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। রবিবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে সামনে ঘন্টাব্যাপী  মানববন্ধন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বশেমুরবিপ্রবিতে ঘটে যাওয়া কম্পিউটার চুরির ঘটনার বিষয়ে বিভিন্ন অসংগতির কথা তুলে ধরেন।শিক্ষার্থীরা বলেন, ঈদুল আজহার ছুটিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(বশেমুরবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী থেকে ৪৯ টি কম্পিউটার চুরির ঘটনা ঘটেছিল। সে বিষয়ে এখনো পূর্ণাঙ্গ কোন সমাধান হয়নি এবং কম্পিউটার চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে গঠিত তদন্ত কমিটি গত ৬ সেপ্টেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন রেজিস্ট্রার বরাবর জমা দিলেও সেটা এখনো বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্যের কাছে হস্তান্তর করা হয়নি।

এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মোঃ নূরউদ্দিন আহমেদ বলেন, কম্পিউটার চুরির ঘটনা সংক্রান্ত প্রতিবেদনটি যথাসময়ে রেজিস্ট্রার অফিসে জমা হয়েছে। পরবর্তীতে বিষয়টি শৃঙ্খলা বোর্ডে উঠবে। এই বোর্ডের চেয়ারম্যান মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর। উনি যখন প্রতিবেদনটি চাইবেন তখন আমি দেব। তাছাড়া শৃঙ্খলা কমিটি বিষয়টি সম্পর্কে অবগত আছে বলেও তিনি জানান।
এদিকে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে ৪৯ কম্পিউটার চুরির ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান না হতেই গত ১৫ই সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের  ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ থেকে ২টি কম্পিউটার ও ওয়াইফাই রাউটার চুরির ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় শিক্ষার্থীরা বিস্ময় প্রকাশ করেন এবং অতি দ্রুত কম্পিউটার চুরির ঘটনা গুলোকে আমলে নিয়ে সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান শিক্ষার্থীরা। উল্লেখ্য, ঈদুল আজহার ছুটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে ৪৯টি কম্পিউটার চুরি হয়। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার সহ ৩৪ টি কম্পিউটার উদ্ধার করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর