× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৩১ অক্টোবর ২০২০, শনিবার

জুট মিল বন্ধ হওয়ায় বিপাকে হাজারো শ্রমিক

বাংলারজমিন

সিরাজগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা | ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ৮:৪৬

 লোকসানের অজুহাতে সরকার দেশের সকল রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধ করে দিলেও সিরাজগঞ্জের জাতীয় জুট মিলের পরিসংখ্যান বলছে ভিন্ন কথা। শ্রমিক নেতৃবৃন্দের অভিযোগ রাষ্ট্রায়ত্ত লাভজনক এই প্রতিষ্ঠানটি লোকসানী প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার জন্য দায়ী  বিজেএমসি’র ভুল এবং অনৈতিক সিদ্ধান্ত। তাদের মতে- দেশের  রাষ্ট্রায়ত্ত জুটমিলগুলো বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছিল কয়েক বছর আগে থেকেই। এরই প্রক্রিয়া হিসেবে নানা কৌশল আর অযৌক্তিক সিদ্ধান্তে লাভজনক এই প্রতিষ্ঠানটি ধীরে ধীরে অলাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়। এখন যার দায়ভার নিতে হচ্ছে হাজার হাজার শ্রমিক আর তাদের পরিবারের। তাদের মতে বিগত সময়ে মিলে কর্মরত অধিকাংশ কর্মকর্তাদের ঢাকাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে বিলাস বহুল বাড়ি আর গাড়ি থাকলেও শ্রমিকেরা এখনো সংগ্রাম করছেন শুধুই পেট বাঁচানোর তাগিদে।
অব্যাহত লোকসানের কারণে তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার উত্তরবঙ্গের সর্ববৃহৎ রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান সিরাজগঞ্জ কওমি জুটমিল সহ দেশের বেশ কয়েকটি জুট মিল বন্ধ করে দেয়। বেকার হয়ে পড়ে হাজার হাজার শ্রমিক।
এজন্য জাতীয় জুটমিল সহ বন্ধ সকল পাটকল চালু ও শ্রমিকদের মজুরি কমিশনের এরিয়া সহ সকল বকেয়া পাওনা পরিশোধের দাবিতে সিরাজগঞ্জে সমাবেশ ও স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি পালন করেছে শ্রমিকরা।  
২৭শে সেপ্টেম্বর রোববার সকালে শহরের মুক্তির সোপানে পাটকল ও পাটচাষি রক্ষা সম্মিলিত নাগরিক পরিষদ সিরাজগঞ্জের উদ্যোগে সকাল থেকেই জেলার বিভিন্ন এলাকার পাটচাষি ও পাটকল শ্রমিকরা সমবেত হন।
এ সময় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা জানান, জাতীয় স্বার্থে জাতীয় জুট মিলসহ সকল পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার সহ ৫ দফা বাস্তবায়নের দাবি জানান। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করেন নেতৃবৃন্দ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর