× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর ২০২০, শুক্রবার

গ্রাহকের কোটি টাকা নিয়ে উধাও উদয়ন সমিতি, বিক্ষোভ

বাংলারজমিন

মাদারগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি | ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ৭:৫৭

মাদারগঞ্জের গুনারীতলা বাজারে উদয়ন বহুমুখী সমবায় সমিতি নামের একটি প্রতিষ্ঠানের  সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গ্রাহকদের  কোটি টাকা নিয়ে  উধাও গ্রাহকদের বিক্ষোভ। গ্রাহকদের জমানো অর্থ আত্মসাৎ করে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় শত শত গ্রাহক ক্ষুব্ধ হয়ে সমিতির সভাপতি আইনুল হকের  বাড়ির উঠানে অবস্থিত সমিতিতে টাকা ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ করেন। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার  মাদারগঞ্জ উপজেলার গুনারীতলা বাজারে ।
জানা গেছে, ২০০৬ সালে মাদারগঞ্জ উপজেলা সমবায় কার্যালয় থেকে উদয়ন সমবায় সমিতি নামে একটি সমিতির  নিবন্ধন দেওয়া হয়, যার নম্বর ১২৬।  এর সভাপতি হন দুনীতির দায়ে চাকরিচ্যুত জনতা ব্যাংকের সুপারভাইজার গুনারীতলা ইউনিয়ন সদর এলাকার আইনুল হক। সম্পাদক হন একই এলাকার দৌলতজ্জামান। তারা দুজন মিলে অত্র উপজেলার  কয়েকটি গ্রামের সাধারণ মানুষকে আমানতের ওপর অধিক লাভ দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে কয়েক কোটি  টাকা আমানত সংগ্রহ করেন। চতুরবাজরা আমানতের ওপর কয়েক মাস লাভ দিয়ে মানুষের কাছে বিশ্বস্ততা অর্জনের একপর্যায়ে তারা নিজেরা হয়ে যান কোটিপতি। তারা ঢাকা শহরে জমি ক্রয়সহ ফ্লাট এর ব্যবসা শুরু করেন। পরবর্তীতে নিজেরা  ফ্ল্যাটও বাড়ির মালিক হয়ে যান।
গ্রাহকরা তাদের আমানতের টাকা ফেরত চাইলে নানা হুমকি দিয়ে  উধাও হয়ে যান । এইসব ঘটনায় প্রায় শতাধিক  গ্রাহক স্থানীয় চেয়ারম্যান দ্বারস্থ হন কিন্তু সমাধান হয়নি।
ভুক্তভোগী  লাকি বেগম বলেন, আমার প্রতি মাসে ৫০০০ টাকা  ১০ বছর মেয়াদি  ডিপিএসের মাধ্যমে   টাকা জমা রাখতাম  উদয়ন সমবায় সমিতিতে। এখন টাকা চাইলেই বিভিন্ন  টালবাহানা দেখাচ্ছে। ভুক্তভোগী  আঞ্জুয়ারা বেগম  বলেন, আমি ৫০০ টাকা করে ৫ বছর মেয়াদি  ডিপিএস খুলে ছিলাম আমার কষ্টার্জিত টাকাও আত্মসাৎ করার পরিকল্পনা করছে তারা।
সমিতির  সভাপতি আইনুল হক বলেন, ৬ সদস্য বিশিষ্ট পরিচালনা কমিটি মাধ্যমে  উদয়ন সমবায় সমিতির পথচলা শুরু হয়। পরিচালনা কমিটি সদস্যগন  সভাপতি -সম্পাদক এর নিকট আত্মীয়। সমিতির সম্পাদক দৌলতজ্জামান এর পরামর্শে জমির ব্যবসা করতে গিয়ে সে প্রতারণা মাধ্যমে ১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা সমিতির আত্মসাত করে। এর পর হতে সমিতির সাংগঠনিক অবস্থার দুর্বল হতে থাকে। টাকা আত্মসাত এর ঘটনায় সমিতির সম্পাদক এর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সম্পাদক দৌলতজ্জামান বলেন, সমবায় অফিস কর্তৃক অডিটে ৩০  জুন  ২০১৮ সালে সমিতির তহবিলে ২ কোটি ৩৬ লাখ টাকা ছিলো। তহবিলের টাকা জমা-খরচ বইতে হালনাগাদ পায়নি কর্তৃপক্ষ। সমিতির টাকা ব্যাংকে না রেখে সভাপতির হাতে রাখার তথ্য প্রমাণ পেয়েছে অডিট টিম। বিভিন্ন কারনে আমি সমিতির সম্পাদক পদ হতে অব্যাহতি নিয়েছি সুতরাং সমিতির কোন দায়ভার আমার নেই। মাদারগঞ্জ  উপজেলা সমবায়  কর্মকর্তা শাহনাজ বেগম বলেন, উদয়ন সমবায় সমিতির সভাপতি আইনুল হক  ও সম্পাদক  দৌলতজ্জামান  গ্রাহকদের টাকা নিয়ে উধাও হয়েছেন বলে শুনেছি। তবে আমার কাছে কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর