× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৭ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার
রেডিও ফ্রি এশিয়ার রিপোর্ট

যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ থেকে মিয়ানমারে ১৪ শিক্ষার্থী গ্রেপ্তার

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১২:১৫

পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য রাখাইনে সশস্ত্র লড়াইয়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন অল বার্মা ফেডারেশন অব স্টুডেন্ট ইউনিয়ন (এবিএফএসইউ)। ওই বিক্ষোভ থেকে ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে মিয়ানমারের পুলিশ। এ ছাড়া কমপক্ষে ৩০ জন গ্রেপ্তার এড়াতে পলাতক রয়েছেন। অনলাইন রেডিও ফ্রি এশিয়ার এক খবরে এ কথা বলা হয়। এতে আরো বলা হয়, এসব শিক্ষার্থীর বেশির ভাগই এবিএফএসইউ-এর। তারা মিয়ানমারের দ্বিতীয় বৃহৎ শহর মান্দালয়, মাগওয়ে অঞ্চলের পাকোক্কু এবং সাগাইং অঞ্চলের মোনিওয়া শহরে গত ১০ই সেপ্টেম্বর থেকে যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ করছেন। এ সময়ে তারা বিভিন্ন স্থানে পোস্টার সেঁটেছেন। এই সংগঠনটি মিয়ানমারে সর্বদলীয় ছাত্র ইউনিয়নের একটি অঙ্গ সংগঠন।
তারা দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার এ দেশটিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বাধীনতা ও শিক্ষার্থীদের অধিকারের পক্ষে কথা বলে। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের শেষ দিক থেকে চিন রাজ্যের পাশেই পালেটওয়া শহরে এবং রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চলে বিদ্রোহী আরাকান আর্মি’র (এএ) সাথে মিয়ানমারের সেনাদের লড়াই চলছে। এই ছাত্ররা সেই লড়াইয়ের অবসান দাবি করেন। এরই মধ্যে এই লড়াইয়ে প্রায় ৩০০ বেসামরিক মানুষ মারা গেছেন বলে রেডিও ফ্রি এশিয়া তার রিপোর্টে উল্লেখ করেছে। এতে বলা হয়, আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৬৪০ জন। বাস্তুচ্যুত হয়েছেন দুই লাখ ২০ হাজার মানুষ। একই সঙ্গে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সংশ্লিষ্ট এলাকায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেয়ার নিন্দা জানান। তারা সরকারের এই নির্দেশ প্রত্যাহারের দাবি জানান। যাদেরকে বিক্ষোভ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা হলেন ইয়াদানাবোন ইউনিভার্সিটির তিন শিক্ষার্থী, মেইকটিলা ইউনিভার্সিটির তিনজন, মোনিওয়া ইউনিভার্সিটির তিনজন, পাকোক্কু ইউনিভার্সিটির একজন, কানবালু এজিটিআইয়ের একজন, পাই ইউনিভার্সিটির দু’জন এবং কো-অপারেটিভ কলেজের একজন। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন রকম অভিযোগ আনা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
এস এম ফরিদ আহমেদ
১ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৮:৪৯

Hello Student, You are the right persons to bring the government on the right track. An san Suchi seems useless & power greedy!

অন্যান্য খবর