× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার
নিউ ইয়র্ক টাইমসের রিপোর্ট

ট্রাম্পের মন্তব্যে রিপাবলিকানদের সমালোচনা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ২:৩৪

উগ্র ডানপন্থি গ্রুপ ‘প্রাউড বয়েস’-এর বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের মন্তব্যে তার দল রিপাবলিকানেই সমালোচনা হচ্ছে। একদিকে কয়েকদিন আগে তিনি মন্তব্য করেছেন নির্বাচনে হেরে গেলে শান্তিপূর্ণ উপায়ে ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন না। এতেও ক্ষোভ দেখা দেয় অনেক রিপাবলিকানের মধ্যে। তার ওপর মঙ্গলবার রাতে প্রতিদ্বন্দী ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী জো বাইডেনের সঙ্গে প্রথম প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কে উগ্র শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী গ্রুপ ‘প্রাউড বয়েস’-এর বিরুদ্ধে তিনি নিন্দা জানাতে অস্বীকৃতি জানান। এর ফলে রিপাবলিকানদের অনেকে তার থেকে দূরত্ব বজায় রাখছেন বলে এ খবর দিয়েছে অনলাইন নিউ ইয়র্ক টাইমস। এতে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এমন অবস্থান আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করছেন ওইসব রিপাবলিকান। এর মধ্যে রয়েছেন সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা কেন্টাকি থেকে নির্বাচিত সিনেটর মিশ ম্যাকনেল, সাউথ ক্যারোলাইনার সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম, ওকলাহোমার রিপাবলিকান প্রতিনিধি টম কোল, সাউথ ক্যারোলাইনার রিপাবলিকান সিনেটর টিম স্কট।  তারা বিতর্কে প্রেসিডেন্টের মন্তব্যে অস্বস্তি প্রকাশ করেছেন। আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে, নির্বাচনের দিনে এর প্রভাব পড়তে পারে।
মঙ্গলবার রাতের বিতর্কে ট্রাম্পের কাছে জো বাইডেন জানতে চান বর্ণবাদী উগ্রপন্থি প্রাউড বয়েস’কে তিনি নিন্দা জানান কিনা। জবাবে  এই গ্রুপটি সম্পর্কে ট্রাম্প বলেন, ‘স্ট্যান্ড ব্যাক এন্ড স্ট্যান্ড বাই’। তার এই বার্তাকে এই উগ্রবাদী সংগঠনের নেতারা ভার্চুয়াল অনুমোদন হিসেবে দেখছেন। ফলে বুধবার সিনেটর মিশ ম্যাকনেল শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদীদের বিরুদ্ধে নিন্দা না জানানোয় ট্রাম্পের মন্তব্যকে অগ্রহণযোগ্য বলে আখ্যায়িত করেছেন। তবে তিনি সরাসরি এক্ষেত্রে ট্রাম্পের নাম উল্লেখ না করেই এমন সমালোচনা করেছেন। ওদিকে সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম বলেছেন,  প্রাউড বয়েস’কে বর্ণবাদী সংগঠন বলে পরিষ্কার করা উচিত ছিল প্রেসিডেন্টের। কারণ, এই সংগঠনটি আমেরিকার আদর্শের বিরোধী।
মঙ্গলবারের ওই বিতর্কে দুই প্রার্থীই ব্যক্তিগতভাবে একজন আরেকজনকে ঘায়েল করেন। একে পর্যবেক্ষকরা বিরল বলে আখ্যায়িত করেছেন। তাদের এই বিতর্ক দেখেছেন বিদেশী পর্যবেক্ষক, ব্যবসায়ী নেতা, ভোটার, মডারেটর ও সারাবিশ্ব। কিন্তু ট্রাম্প বর্তমান প্রেসিডেন্ট। তিনি যে আচরণ করেছেন তা অপ্রত্যাশিত ছিল বলে মন্তব্য করেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। এক পর্যায়ে তার আচরণের কারণে জো বাইডেন তাকে ‘ক্লাউন’ বলে আখ্যায়িত করেন এবং চুপ করতে বলেন। প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য টিম কোল এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, প্রাউড বয়েস এবং অন্য উগ্রপন্থিদের বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট ভাষায় নিন্দা জানানো উচিত ট্রাম্পের।  কংগ্রেসে মাত্র দু’জন কৃষ্ণাঙ্গ রিপাবলিকান আছেন। তার মধ্যে সিনেটর টিম স্কট একজন। তিনি মনে করেন, ট্রাম্প হয়তো ভুল করে ওকথা বলে ফেলেছেন এবং তিনি তাকে এই ভুল সংশোধন করার আহ্বান জানান। যদি তিনি তা সংশোধন না করেন, তাহলে ধরে নেবো তিনি ভুল করে এমনটা বলেন নি।
ওদিকে বুধবার বিকেলে সাংবাদিকদের সঙ্গে ব্রিফিংয়ে ট্রাম্প বলেছেন, প্রাউড বয়েস কারা আমি তা জানি না। আমি বলতে চাই, আপনারা আমাকে একটি সংজ্ঞা দিন। কারণ, আমি আসলে জানি না তারা কারা। আমি শুধু বলবো, তাদের সরে যাওয়া উচিত। আইন প্রয়োগকারীকের কাজ করতে দেয়া উচিত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর