× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৩১ অক্টোবর ২০২০, শনিবার

‘তারের জঞ্জালে নষ্ট হচ্ছে শহরের সৌন্দর্য’

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৩:০১

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, রাজধানী ঢাকার শহরের সৌন্দর্য ঝুলন্ত তারের জঞ্জালের ফলে নষ্ট হচ্ছে। এই জঞ্জাল রাখা যাবে না। ঢাকার সব ঝুলন্ত তার এক বছরের মধ্যে নামিয়ে ফেলা হবে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে গুলশান-২ এর ডিএনসিসি মার্কেটের সামনে থেকে ঝুলন্ত তার অপসারণ অভিযানে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, ঢাকায় ঝুলন্ত তারের জন্য বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি), কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (কোয়াব), ন্যাশনওয়াইড টেরিস্ট্রিয়াল ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক (এনটিটিএন), ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন (আইএসপিএবি) সহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো সবাই দায়ী। আমি যতবার এই ঝুলন্ত তার নিয়ে মিটিং করেছি, তখন এক সংস্থা আরেক সংস্থাকে দায়ী করে। এনটিটিএন লাইসেন্স নিয়েও ১০ বছরে তারা কোনো কাজ করেনি। বিটিআরসি নিয়ন্ত্রক সংস্থা, তারা সেভাবে তদারকি করেনি।

তিনি বলেন, এনটিটিএন যদি তাদের কাজ না করে, তবে আমরা সিটি করপোরেশন থেকে আমাদের ড্রেনের নিচ থেকে পাইপ দিয়ে দেব।
তারা সেই পাইপ দিয়ে তার নেবেন। এজন্য তাদেরকে নির্দিষ্ট ফি দিতে হবে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, এই মুহূর্তে আপনারা জানেন দেশে কোভিড চলছে, স্কুলের বাচ্চারা বাসায় বসে অনলাইনে এবং টেলিভিশনে পড়াশোনা করছে। অনেকে বাসায় বসে অনলাইনে কাজ করছেন, জীবিকা নির্বাহ করছেন, সবকিছু মিলিয়ে পরিবেশটা অন্যরকম। আমাকে অনেক অভিভাবক অনুরোধ করেছেন। তাদের অনুরোধে আরো সাত দিন সময় দেয়া হলো। সাত দিনের মধ্যে ক্রসিংয়ের তারগুলোও কেটে দেয়া হবে। আমরা চাচ্ছি এটি টেকসই করার জন্য। স্বল্প মেয়াদী পদ্ধতিতে যেতে চাচ্ছি না। আজকে যে তার কাটা হচ্ছে, এটা কিন্তু সেবা প্রদানকারীরাই কাটছেন। এই প্রথম তারা নিজের তার নিজেরা কাটছেন। তাদেরকে আমি এখানে ডাক দিয়েছি, কারণ ঢাকা হচ্ছে আপনাদের সকলের।

মেয়র শংকা প্রকাশ করে বলেন, আজ যদি তার পুরোটা কেটে দেই, তাহলে ঢাকা শহর কলাপ্স করবে। আমাদের বাচ্চাদের পড়াশোনা হবে না। আমি বিশ্বাস করি, আমরা যেভাবে অভিযান পরিচালনা করছি, আগামী এক বছরের মধ্যে ডিএনসিসির সম্পূর্ণ এলাকার তারগুলোকে নামিয়ে সম্ভব হবে। এটা আমাদেরকে নামাতেই হবে।

ঝুলন্ত তার অপসারণকালে অন্যান্যের মধ্যে ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা, সচিব মোজাম্মেল হক, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমিরুল ইসলাম, কোয়াব এর সভাপতি এসএম আনোয়ার কবির, আইএসপিএবি এর সভাপতি মো. আমিনুল হাকিম উপস্থিত ছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
shiblik
১ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৫:৫১

নতুন যে এলাকা গুলো হচ্ছে (উত্তরা, বসুন্ধরা, পূর্বাচল) সেখানে যেন এখনি তার মাটির নীচ দিয়ে নেওয়ার বাবস্থা করা হয়। পরে যেন সিটি কর্পোরেশন দুই হাত তুলে কান্না কাটি বা অন্য কাউকে দোষ না দেয়।

অন্যান্য খবর