× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার

প্রথম বিতর্ক নিয়ে হতাশ সঞ্চালক ক্রিস ওয়ালেস

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২ অক্টোবর ২০২০, শুক্রবার, ৭:৪৩

নভেম্বরে মার্কিন নির্বাচনকে সামনে রেখে বিতর্কে অংশ নিয়েছেন রিপাবলিকান দলের প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রামপ ও ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তবে এ বিতর্ক নিয়ে হতাশ এর সঞ্চালক ক্রিস ওয়ালেস। এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পূর্বে প্রথম বিতর্কের ‘কুৎসিত’ রূপ নিয়ে বিস্ময়ও প্রকাশ করেছেন তিনি। এ খবর দিয়েছে লস অ্যানজেলেস টাইমস।
বুধবার টেলিফোনে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ৭২ বছর বয়সী ওয়ালেস বলেন, অবশ্যই আমি এ ধরনের একটি বিতর্কের কথা ভাবিনি। এ নিয়ে আমি হতাশ। তবে আমি বিশ্বাস করি, এই বিতর্কের মধ্য থেকে ভালো কিছুও খুঁজে পাওয়া সম্ভব। ওয়ালেস বলেন, আমি মনে করি বিতর্কের উদ্দেশ্যই হচ্ছে প্রতিদ্বন্দ্বীরা আসলে কি চিন্তা করেন সেটিকে উন্মোচন করা।
ডনাল্ড ট্রামপ কীভাবে ভাবেন, দেশকে তিনি কোথায় দেখতে চান এবং এ জন্য তিনি কি কি করবেন তা নিয়ে তার ভাবনা সমপর্কে আমরা একটি ধারণা পেয়েছি। এই ক্ষেত্রে আমার বিশ্বাস এই বিতর্কটি সফল হয়েছে। এটি হয়তো অসাধারণ ছিল না তবে এটি অনেক কিছুই উন্মোচন করেছে।
বিতর্কের মধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে একাধিকবার দেখা গেছে, তিনি বাইডেনের কথা বলার সময় নিজেকে ধরে না রেখে এরমধ্যে কথা বলে উঠেছেন। এটিকে গুরুত্ব সহকারে দেখছেন মার্কিন টেলিভিশন পণ্ডিতেরা। দেশটির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এই বিতর্ককে বলা হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের সব থেকে হতাশাজনক বিতর্ক হিসেবে। সঞ্চালক হিসেবে ওয়ালেসকেও সমালোচিত হতে হয়েছে প্রতিদ্বন্দ্বী দুই প্রার্থীকে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারার কারণে।
ওয়ালেস বলেন, তিনি নির্বাচনের পূর্বে সুপ্রিম কোর্টের নমিনি নিয়ে দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যেকার বক্তব্য শুনে আশাবাদী হয়ে উঠেছিলেন। কিন্তু এই আশা বেশিক্ষণ টেকেনি। ওয়ালেস জানান, প্রথমদিকে আমার প্রতিক্রিয়া ছিল, বিষয়টি অসাধারণ। তারা এ নিয়ে আলোচনা করতে শুরু করেছে এবং আমি হয়তো সন্ধ্যাটা স্বস্তিতে কাটাতে পারবো। কিন্তু, প্রেসিডেন্ট ট্রামেপর সে রকম কোনো ইচ্ছাই ছিল না। তিনি সমগ্র সময়জুড়ে শুধু কথার মধ্যে কথা ঢুকাচ্ছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর