× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৫ নভেম্বর ২০২০, বুধবার
রয়টার্সের প্রতিবেদন

যুক্তরাষ্ট্রে আবার শুরু হচ্ছে এস্ট্রাজেনেকার টিকার পরীক্ষা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২১ অক্টোবর ২০২০, বুধবার, ১১:১৪

অবশেষে নতুন করে এ সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রে আবার শুরু হচ্ছে বৃটিশ প্রতিষ্ঠান এস্ট্রাজেনেকার করোনা ভাইরাসের টিকার পরীক্ষা। এর আগে বৃটেনে পরীক্ষা চলাকালীন একজন স্বেচ্ছাসেবক অসুস্থ হয়ে পড়ার পর ৬ই সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্র এই টিকার পরীক্ষা স্থগিত রাখে। এরপর ইউএস ফুড এন্ড ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) ওই বিষয়টি পর্যালোচনা সম্পন্ন করে। এরপরই নতুন করে সেই পরীক্ষা শুরুর অনুমতি দিয়েছে এফডিএ। এ বিষয়টি জানেন এমন চারটি সূত্রকে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ওই সূত্রগুলো তাদের নাম প্রকাশ করতে চাননি। তারা বলেছেন, তাদেরকে জানানো হয়েছে এ সপ্তাহেই শুরু হতে পারে এস্ট্রাজেনেকার টিকার পরীক্ষা। তবে বৃটেনে অসুস্থ হয়ে পড়া স্বেচ্ছাসেবকের বিষয়টি কিভাবে নিয়েছে এফডিএ সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু জানা যায়নি।
এ বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন এফডিএর একজন মুখপাত্র।

ওদিকে এস্ট্রাজেনেকার টিকা এর আগে থেকেই পরীক্ষার অনুমোদন দেয়া হয়েছে ব্রাজিল, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকায়। এখানে উল্লেখ্য, অভিজাত অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির গবেষকরা এই টিকা আবিষ্কার করেছেন এস্ট্রাজেনেকা নামের কোম্পানির জন্য। তাদের এই টিকা এখন করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে যেসব পরীক্ষাধীন টিকা আছে  তার মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সামনের সারিতে আছে। এই টিকা পরীক্ষামুলকভাবে প্রয়োগ করার পর একজন স্বেচ্ছাসেবক বৃটেনে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ খবর রাষ্ট্র হওয়ার পরই তা ছড়িয়ে পড়ে সারাবিশ্বে। এস্ট্রাজেনেকাই তাদের পরীক্ষা স্থগিত করে। পরে যখন দেখা যায়, ওই রোগী যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছিলেন, তা এই টিকার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়। এরপর শুরু হয়ে যায় আবার পরীক্ষা। তবে যুক্তরাষ্ট্র আরও সতর্কতা অবলম্বন করে। তারা স্থগিত রাখে পরীক্ষা।

ওদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ফাইজারের এবং মডার্নার টিকার যে পরীক্ষা চলছে, সে সম্পর্কে আগামী মাসে তথ্য পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। অন্যদিকে একজন স্বেচ্ছাসেবক অসুস্থ হওয়ার পর জনসন এন্ড জনসন তাদের তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা গত সপ্তাহে স্থগিত করেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর