× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার

ট্রাম্পকে পরাজয় স্বীকারে ঘনিষ্ঠ দলীয় মিত্রদের আহ্বান

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) নভেম্বর ২৩, ২০২০, সোমবার, ৯:০৬ পূর্বাহ্ন

একের পর এক মিত্র প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে পরাজয় মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন। সর্বশেষ এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন সুপরিচিত তার এক মিত্র। তিনি হলেন নিউ জার্সির গভর্নর ক্রিস ক্রিস্টি। তিনি প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের আইনগত টিমকে একটি ‘জাতীয় বিব্রতকর’ টিম হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন নির্বাচনের ফলকে চ্যালেঞ্জ করা বাদ দিয়ে জো বাইডেনকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নিতে। উল্লেখ্য, ৩রা নভেম্বরের নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেও তা মানতে রাজি নন ট্রাম্প। তিনি পরাজয় স্বীকারে অনীহা প্রকাশ করেছেন। প্রমাণহীন অভিযোগ করেছেন নির্বাচনে ব্যাপক ভোট জালিয়াতি হয়েছে।
এর ফলে তিনি ও তার টিম কয়েকটি রাজ্যে নির্বাচনের ফলকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করেন। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সেই মামলায় যথাযথ প্রমাণ নেই বলে প্রত্যাখ্যান করেছেন বিচারকরা। সর্বশেষ পেনসিলভ্যানিয়া রাজ্যে করা মামলা খারিজ করে দেন বিচারক। সবদিক থেকে এখন তার জন্য পথ সংকীর্ণ হয়ে আসছে। এ অবস্থায় তাকে একের পর এক রিপাবলিকান পরাজয় মেনে ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য প্রস্তুত হতে আহ্বান জানাচ্ছেন। রোববার এ নিয়ে এবিসি’র ‘দিস উইক’ প্রোগ্রামে নিউ জার্সির সাবেক গভর্নর ক্রিস ক্রিস্টি বলেছেন, একেবারে খোলামনে বলছি, প্রেসিডেন্টের আইনি টিম একটি জাতীয় বিব্রতকর অবস্থা সৃষ্টি করেছে। তিনি আরো বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ করছেন আদালতের বাইরে। যখন তারা আদালতে যাচ্ছেন, তারা প্রতারণা বা জালিয়াতি দাবি করছেন না। তারা ভোট জালিয়াতির পক্ষে যুক্তি তুলে ধরছেন না। ক্রিস ক্রিস্টি আরো বলেন, আমি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের একজন সমর্থক। আমি দু’বার তাকে ভোট দিয়েছি। কিন্তু নির্বাচনের একটি ফল থাকে বা পরিণতি থাকে। কিন্তু আমরা এমন আচরণ করতে পারি না যে, যা ঘটেছে, তা ঘটা উচিত নয়।
এখানে উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট পদে ডনাল্ড ট্রাম্পকে তিনিই প্রথম গভর্নর হিসেবে অনুমোদন দিয়েছিলেন। এমন কি এ বছরের শুরুর দিকে তিনিই জো বাইডেনের বিরুদ্ধে বিতর্কের জন্য ট্রাম্পকে প্রস্তুত হতে সাহায্য করেছেন। ট্রাম্পের আইনজীবি টিমের একজন সদস্য সিডনি পাওয়েল বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সেখানে কোনো প্রমাণ ছাড়াই তিনি দাবি করেছেন ইলেকট্রনিক ভোটিং সিস্টেম ব্যবহার করে লাখ লাখ ভোট নিয়ে যাওয়া হয়েছে বাইডেনের পক্ষে। তার এমন দাবির কড়া সমালোচনা করেছেন ক্রিস ক্রিস্টি। রোববার ওই আইনজীবি থেকে দূরত্ব বজায় রেখে বিবৃতি দিয়েছে ট্রাম্প শিবির। তারা দাবি করেছে মিসেস পাওয়েল নিজের ইচ্ছায় আইনি চর্চা করছেন। তিনি ট্রাম্পের আইনি টিমের একজন সদস্য নন।
কিন্তু গোলক ধাঁধার মতো শোনায় এ কথা। কারণ, এ মাসের শুরুর দিকে সিডনি পাওয়েলকে নিজের প্রচারণা টিমের একজন সদস্য হিসেবে নাম প্রকাশ করেন ট্রাম্প।
রোববার ট্রাম্পকে পরাজয় স্বীকার করে নিতে অন্য রিপাবলিকানরাও আহ্বান জানিয়েছেন। মেরিল্যান্ডের গভর্নর ল্যারি হোগান সিএনএন’কে এদিন বলেছেন, ট্রাম্প টিম নির্বাচনের ফলকে পাল্টে দিতে এমন প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন, যা দেখে মনে হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র যেন ‘একটি ব্যানানা রিপাবলিক’। টুইটারে গভর্নমেন্ট হোগান ট্রাম্পকে বলেছেন, গলফ খেলা বন্ধ করে পরাজয় মেনে নিন। মিশিগানের রিপ্রেজেন্টেটিভ ফ্রেড উপটন সিএনএন’কে বলেছেন, ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যগুলোর ভোটাররা জো বাইডেনকে বেছে নিয়েছেন। নর্থ ডাকোটার সিনেটর কেভিন ক্র্যামার বলেছেন, ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়ার জন্য সময় পেরিয়ে যাচ্ছে। তিনি জো বাইডেনের জয় স্বীকার করে নেন। এরও আগে ট্রাম্পকে পরাজয় স্বীকার করে নিতে ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রিপাবলিকান দল থেকে নির্বাচিত সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ। তিনি একই সঙ্গে অভিনন্দন জানিয়েছেন জো বাইডেনকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
২২ নভেম্বর ২০২০, রবিবার, ৮:১১

বিবেকবান রাজনীতিবিদরা কখনও বিবেকহীনদের সমর্থন করতে পারে না করবেও না। সুবুদ্ধি দেয়। বিবেকহীন কিছু সমর্থক জানি না কোন স্বার্থে ট্রাম্পের পিছু নিয়েছে।

অন্যান্য খবর