× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার

আফগানিস্তানে ২৬,০০০ শিশু হত্যা না হয় বিকলাঙ্গ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) নভেম্বর ২৩, ২০২০, সোমবার, ৫:৩২ পূর্বাহ্ন

মাত্র ১৪ বছরে আফগানিস্তানে কমপক্ষে ২৬,০০০ শিশুকে হয়তো হত্যা করা হয়েছে, না হয় তারা বিকলাঙ্গ হয়েছে। এর ফলে প্রতিদিন যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে গড়ে ৫টি শিশু নিহত হয়েছে অথবা আহত হয়েছে। জাতিসংঘের অঙ্গ সংগঠন সেভ দ্য চিলড্রেন বলেছে, ২০০৫ সালের পর থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এসব শিশুকে এমন ভাগ্য বরণ করতে হয়েছে।  এমন শিশুর সংখ্যা কমপক্ষে ২৬ হাজার ২৫। আফগানিস্তানে আন্তর্জাজিত দাতাদের আফগান কনফারেন্স জেনেভায় হওয়ার সোমবার। এ সম্মেলনকে সামনে রেখে সেভ দ্য চিলড্রেন আফগানিস্তানের শিশুদের ভবিষ্যতকে সুরক্ষিত রাখতে দাতাদের কাছে অনুদান আহ্বান জানায়। এ খবর দিয়ে অনলাইন বিবিসি বলেছে, আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার এবং শান্তি আলোচনায় অচলাবস্থার কারণে সেখানে সহিংসতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সেভ দ্য চিলড্রেনের মতে, বিশ্বের মধ্যে শিশুদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক যেসব দেশ তার মধ্যে অন্যতম আফগানিস্তান। ২০১৯ সালে তারা হিসাব করে দেখেছে আফগানিস্তানে সবচেয়ে বেশি শিশু নিহত হয়েছে এবং বিকল্পাঙ্গ হয়েছে।
শুক্রবার তারা এ সম্পর্কিত একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে। এতে দেখা গেছে, ২০১৯ সালে আফগানিস্তানি নিহত হয়েছে ৮৭৪ টি শিশু। বিকলাঙ্গা হয়েছে ২২৭৫টি শিশু। এ সময়ে নিহত ও বিকলাঙ্গাদের দুই তৃতীয়াংশের বেশি বালক। সরকার ও সরকারবিরোধীদের মধ্যে বিস্ফোরক ব্যবহারের ফলে এসব হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। এসব হামলা চালানো হয়েছে আত্মঘাতী। আবার কোনোটি আত্মঘাতী নয়। রিপোর্টে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানে চলমান যুদ্ধের মধ্যে নিয়মিত হামলা চালানো হয়েছে স্কুলে। সেভ দ্য চিলড্রেন বলেছে, ২০১৭ সাল থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে ৩ শতাধিক স্কুলে হামলা চালানো হয়েছে। সেভ দ্য চিলড্রেনের আফগানিসআতনের পরিচালক ক্রিস নিয়ামান্ডি বলেছেন, এমন একটি দিনের কথা কল্পনা করুন তো যখন আপনি এমন এক আতঙ্কের মধ্যে বসবাস করছেন, যেদিনটি আপনার শিশুকে আত্মঘাতী হামলায় বা বিমান হামলায় হত্যা করা হতে পারে। আফগানিস্তানের লাখ লাখ অভিভাবকের মধ্যে এখন এমনই এক ভয়াবহ ভীতি। তারা আতঙ্কে আছেন, তার শিশুটি হত্যাকান্ডের শিকার হতে পারে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
saidur
২৩ নভেম্বর ২০২০, সোমবার, ৭:২৮

after this, the Muslims are called terrorists and the non Muslims are not? the world is blind.

অন্যান্য খবর