× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার

গাজীপুরে ঝাঁকে ঝাঁকে আসছে অতিথি পাখি

বাংলারজমিন

ইকবাল আহমদ সরকার, গাজীপুর থেকে
২৫ নভেম্বর ২০২০, বুধবার

শীতের আগমনী বার্তা নিয়ে গাজীপুরে ঝাঁকে ঝাঁকে উড়ে আসছে পরিযায়ী অতিথি পাখি। সুদূর সাইবেরিয়াসহ বিভিন্ন দেশ ও এ দেশের অন্য এলাকা থেকে আসা রকমারি প্রজাতির পরিযায়ী ও অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখর এখন জেলার বিভিন্ন বিল-ঝিল আর লেক। হাজারো অতিথি পাখির কলকাকলি, জলকেলি, আকাশে মনের সুখে দলবেঁধে উড়ে বেড়ানোর দৃশ্য-সৌন্দর্য বাড়তি আনন্দের জোগান দিচ্ছে সব বয়সী মানুষকে। আর জলাশয়গুলোকে অতিথি পাখির অভয়ারণ্য হিসেবে গড়ে তুলতে রয়েছে প্রশাসনিক নানা পদক্ষেপ। গাজীপুরের কালিয়াকৈর ও কাপাসিয়া উপজেলার বিভিন্ন বিল-ঝিল, বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কের লেকসহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় অন্য দেশ এবং এ দেশেরও বিভিন্ন এলাকা থেকে যেসব পরিযায়ী অতিথি পাখি ছুটে আসছে, সেসবের মধ্যে রয়েছে পাতি সরালি, নীলকণ্ঠ, ফ্লাইফেচার, গার্গেনি, ছোট জিরিয়া, মুরগ্যাধি, কোম্বডাক ও পাতারি ইত্যাদি। সবুজ প্রকৃতির মাঝে জলাশয়গুলোতে এখন তাদের সরব উপস্থিতি। পাখিদের অবিরাম খেলা বিমোহিত করেছে দর্শনার্থীদের। এই পাখিদের প্রকৃতি উপযোগী পরিবেশ ও খাবারের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সরকারি উদ্যোগ নেয়ার প্রয়োজন বলেও মনে করছেন অনেকে।
ঝাঁকে ঝাঁকে পাখি উড়ছে নীল দিগন্তে। কখনো ঝিলের জলে, কখনোবা এক হয়ে আকাশ মাতিয়ে বেড়াচ্ছে শীতের অতিথিরা। তাদের মেতে ওঠা যেন হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া এক অনন্য দৃশ্য। পাখির কলতান ও শীতের স্নিগ্ধ আমেজ প্রকৃতিপ্রেমীদের করে তুলছে প্রাণচঞ্চল। অতিথি পাখির আগমনে মুগ্ধ হচ্ছেন সবাই। দলে দলে অনেক মানুষ ছুটে আসছেন পাখিদের আবাসস্থল জলাশয়ের পাড়ে। গাজীপুর জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম জানান, পরিযায়ী যে পাখিগুলো আসছে, সেগুলো আমাদের পরিবেশ ও ইকো সিস্টেমের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক। এসব পাখির চলাচল নির্বিঘ্ন করতে ও অবাধ চলাফেরায় যাতে কেউ বাধা সৃষ্টি কিংবা এসব শিকার করতে না পারে, সেজন্য বন্যপ্রাণি সংরক্ষণ আইনের বাস্তবায়নসহ প্রশাসনের নানা তৎপরতা রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। কেউ যাতে অতিথি পাখি শিকার করতে না পারে এবং সংরক্ষণের জন্য জেলার সবক’টি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাদেরও এ বিষয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনাসহ নানা নির্দেশনা রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর