× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার

যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া পারমাণবিক চুক্তি আরো ৫ বছর বাড়ানোর জোর দাবি

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(২ মাস আগে) নভেম্বর ২৬, ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১২:০৪ অপরাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে অস্ত্র বিষয়ক চুক্তির মেয়াদ আরো ৫ বছর শর্তহীনভাবে বৃদ্ধি করার আহ্বান জানানো হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেনকে। এই চুক্তির অধীনে কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েন সীমিত রাখা হয়। তাই অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক উপদেষ্টারা এই চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধি করতে বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছেন। আবার কিছু বিশেষজ্ঞ এই যুক্তি দেখিয়েছেন যে, মস্কোর সঙ্গে স্বল্প সময়ের জন্য এই চুক্তি থেকে কিছু সুবিধা নিতে। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।
আগামী ২০ শে জানুয়ারি ক্ষমতায় আসছেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেন। ক্ষমতায় আসার পরই তাকে ‘২০১০ নিউ স্টার্ট’ চুক্তির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। না হলে ১৬ দিন পরেই এই চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে।
যদি একবার এই চুক্তির মেয়াদ শেষ হয় তাহলে ওয়াশিংটন বা মস্কো পারমাণবিক কৌশলগত যেকোনো অস্ত্র যেকোনো স্থানে মোতায়েন করতে পারবে। এক্ষেত্রে কোনো লিমিট বা সীমা থাকবে না। তারা মোতায়েন করতে পারবে যুদ্ধাস্ত্রবাহী ক্ষেপণাস্ত্র, সাবমেরিন, বোমারু সরঞ্জাম সহ সব রকম অস্ত্র। এ জন্য জো বাইডেনের অন্তর্বর্তী টিমের কাছে গত ১৯ শে নভেম্বর দুই ডজন অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ, পরিবেশবিশ এবং অন্যান্য গ্রুপ মিলে একটি চিঠি লিখেছে। তাতে বলা হয়েছে, পারমাণবিক বিপর্যয়কর হুমকি কমিয়ে আনতে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বকে বলিষ্ঠ, স্মার্ট পদক্ষেপ নিতে হবে। কোভিড-১৯ এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ইস্যুতে প্রশাসন যেমন ত্বরিত পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছে, এক্ষেত্রেও তাই করতে হবে।
অনেক বিশেষজ্ঞের আশঙ্কা ‘নিউ স্টার্ট’ চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পারমাণবিক অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যাবে। তাতে ১৯৯১ সালে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে যে শীতল যুদ্ধের অবসান ঘটে, তার দ্রুত বিপর্যয় ঘটবে। আবার উত্তেজনা তীব্র থেকে তীব্র হবে দুই দেশের মধ্যে। বিশেষ করে রাশিয়া যে ক্রাইমিয়া অঞ্চল দখল করেছে, সেখানকার পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারে। এই চুক্তি একবার বাতিল বা মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দুই পারমাণবিক শক্তিধর দেশের মধ্যে শক্তির প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যাবে। ফলে আর্মস কন্ট্রোল এসোসিয়েশন, সিয়েরা ক্লাব, কাউন্সিল ফর এ লিভ্যাবল ওয়ার্ল্ড ও ইউনাইটেড মেথোডিস্ট চার্চের পক্ষ থেকে দেয়া ওই চিঠির বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি বাইডেনের অন্তর্বর্তী টিম। ২০১১ সালে সম্পাদিত এই চুক্তিটি পারস্পরিক বোঝাপড়ার মাধ্যমে আরো ৫ বছর মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। ফলে শর্তহীনভাবে এই চুক্তিকে দ্রুততার সঙ্গে আরো ৫ বছর বৃদ্ধি করার জন্য বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর