× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০২১, শুক্রবার

সোনাগাজীতে শ্যালিকাকে অপহরণ দুলাভাই গ্রেপ্তার

বাংলারজমিন

ফেনী প্রতিনিধি
২৭ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার

ফেনীর সোনাগাজীতে অপহরণের ৭ দিন পর এক স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় দুলাভাই আবদুর রহিম (৩৫)কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত বুধবার রাতে উপজেলার মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের ডাকবাংলো এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে আবদুর রহিমকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত রহিম উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের আহম্মদপুর গ্রামের জহির উদ্দিন মিঝি বাড়ির জসিম উদ্দিনের ছেলে।
সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজেদুল ইসলাম জানান, গত ১৭ই নভেম্বর সকালে প্রাইভেট পড়তে ঘর থেকে বের হয় দশম শ্রেণির ওই স্কুলছাত্রী। এ সময় পূর্ব থেকে ওত পেতে থাকা ওই ছাত্রীর দুলাভাই আবদুর রহিম ও তার ৩-৪ জন সহযোগী ছাত্রীকে সফরপুর গ্রামের মোল্লা বাড়ির সামনে থেকে জোরপূর্বক সিএনজি অটোরিকশা যোগে অপহরণ করে অন্যত্র নিয়ে যায়। বিষয়টি জানতে পেরে ছাত্রীর মা বাদী হয়ে জামাতা আবদুর রহিমের নাম উল্লেখ করে আরো ৩-৪ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন।
অপহরণের সাত দিন পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের ডাকবাংলো এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে আবদুর রহিমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ওই ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষা শেষে দুপুরে ফেনীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফ উদ্দিনের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করে। একই দিন দুপুরে আদালতের মাধ্যমে দুলাভাই আবদুর রহিমকে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

মামলার বাদী ছাত্রীর মা জানায়,  মুদি দোকানি আবদুর রহিমের সঙ্গে বিগত ৬ বছর আগে তার বড় মেয়ের বিয়ে হয়। সে সময় তার ছোট মেয়ে ৯-১০ বছর বয়সের ছিল। চলতি বছর তার ছোট মেয়েটি দশম শ্রেণিতে উঠলে বড় মেয়ের স্বামী আবদুর রহিমের কুনজর পড়ে। শ্যালিকাকে বিয়ের প্রস্তাবে প্রতিনিয়ত উত্ত্যক্ত করতো দুলাভাই আবদুর রহিম। ছাত্রীটি তার মা ও বোনকে বিষয়টি জানালে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে দুলাভাই আবদুর রহিম।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর