× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

বিনামূল্যে টিকা দেয়ার বিল পাস জাপান পার্লামেন্টে

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) ডিসেম্বর ২, ২০২০, বুধবার, ২:৫০ পূর্বাহ্ন

জনগণকে বিনামূল্যে করোনাভাইরাসের টিকা সরবরাহের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশনা দিয়ে একটি বিল পাস করেছে জাপানের পার্লামেন্ট। এর মূল্য পরিশোধ করবে কেন্দ্রীয় সরকার। কারণ দেশটি করোনা সংক্রমণের সবচেয়ে খারাপ সময় অর্থাৎ দ্বিতীয় ঢেউয়ের সঙ্গে লড়াই করছে। দেশটির পার্লমেন্টের নিম্নকক্ষে অনুমোদন পাওয়ার পর বুধবার উচ্চকক্ষেও বিলটি পাস হয়। এর ফলে এই বিলটি এখন আইনে পরিণত হবে। জপানের স্বাস্থ্য, শ্রম ও কল্যাণ মন্ত্রালয়ের মতে, এই টিকাদান কর্মসূচি পরিচালনার দায়িত্ব স্থানীয় সরকারকে নিতে হবে। এ খবর দিয়েছে ব্লুমবার্গ।
ঘোষণাটি এমন সময় এলো যখন নতুন করে জাপানে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলগুলোতে বার এবং রেস্তোরাঁগুলো পুনরায় বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন। তাছাড়া আঞ্চলিক অর্থনীতি ক্ষতির কথা মাথায় রেখেও দেশটি তাদের সকল প্রকার ভ্রমণ কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
যদিও সাতটি উন্নত দেশের তুলনায় জাপানে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে কম।
তবে এ বছরের এপ্রিল-জুন প্রান্তিকে দেশটি সবচেয়ে খারাপ অর্থনৈতিক মন্দার শিকার হয়েছিল।
আগামী বছরের প্রথমার্ধের মধ্যে দেশের সকল মানুষের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ করোনার টিকা সংরক্ষণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী সুগা। তাছাড়া প্রতিবেশী দেশগুলোতেও বিনামূল্যে টিকা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। তবে তার পরিমাণ ঠিক কতটা হবে সেটা এখনও নিশ্চিত না।
তবে জাপানের সকল নাগরিক টিকা গ্রহণের ব্যাপারে উৎসাহী নয় বলে এক জরিপে বলা হয়। ইপসোস নামের একটি প্রতিষ্ঠানের অক্টোবরে পরিচালিত ওই জরিপে দেখা যায়, যেখানে বিশ্বের গড়ে ৭৩ শতাংশ মানুষ করোনা প্রতিরোধে টিকা গ্রহণে আগ্রহী, সেখানে জাপানে ৬৯ শতাংশ মানুষ এই টিকা নিতে ইচ্ছুক।
পাস হওয়া ওই বিলে বলা হয় যে, এই ভ্যাকসিন থেকে যদি স্বাস্থ্যগত কোন সমস্যা বা ক্ষতির সম্মুখিন হয় তবে সেক্ষেত্রে বেসরকারী সংস্থাগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্যও সরকারকে অনুমতি দেয়া হয়েছে। ভ্যাকসিন সরবরাহের জন্য সরকার মডার্না, ফাইজার এবং এস্ট্রাজেনেকা’র সঙ্গে প্রাথমিকভাবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর