× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, রবিবার

নান্দাইলে ফসলি জমির মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়

বাংলারজমিন

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
৩ ডিসেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় ইটভাটা মালিকরা কোনো নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে আবাদি জমির মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। গভীর গর্তে পরিণত হচ্ছে ফসলি জমি। পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন সচেতন মহল। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে সর্বমহল থেকে প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছেন।
জানা গেছে, উপজেলায় মানুষের বসবাসকারী ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা ও ফসলি জমিতেই গড়ে উঠেছে একাধিক ইটভাটা। যাদের অধিকাংশের নেই পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমোদন বা ছাড়পত্র। এমন অবস্থায় দিনরাত ইট তৈরি করে সারি সারি  ইট সাজিয়ে রোদে শুকানো হচ্ছে। সমতল কৃষি জমিতে ইটভাটা গড়ে তুললেও কৃষি বিভাগের ছাড়পত্র নেই বলে জানিয়েছেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আনিছুজ্জামান।
অদৃশ্য অনুমোদন ও মাসিক ছাড়পত্রেই চলছে বছরের পর বছর ধরে এসব ইটভাটা। এ সমস্ত ইটভাটা নির্মাণসহ ইট পোড়ানোর প্রস্তুতিও শেষ পর্যায়ে থাকলেও উপজেলা প্রশাসন ও ময়মনসিংহ জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকা নিয়ে জনমনে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। কয়েকটি ইটভাটার ৫০০ গজের মধ্যে রয়েছে বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।
নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে নান্দাইলে ১৮টির মতো ইটভাটা রয়েছে। যার মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরের বর্তমান সময় পর্যন্ত অনুমোদন নেই।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এরশাদ উদ্দিন বলেন, আমাদের জানামতে এসব ইটভাটার পরিবেশ অধিদপ্তরের কোনো অনুমতি বা ছাড়পত্র নেই। যার প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যেই অভিযান চালিয়ে আমরা দুটি ইটভাটাকে ৫০ হাজার করে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছি। জেলা প্রশাসকের দিকনির্দেশনায় অচিরেই এদের বিরুদ্ধে আরো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর