× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৭ মার্চ ২০২১, রবিবার

পাবজি না যুদ্ধ?

রকমারি

নিজস্ব সংবাদদাতা
২০ ডিসেম্বর ২০২০, রবিবার
সর্বশেষ আপডেট: ১২:৫৬ অপরাহ্ন
প্রতীকী ছবি

মোবাইলে ভিডিও গেম খেলতে পছন্দ করেন না এমন মানুষ মেলা ভার। আট থেকে শুরু করে আশি সকলেই এখন মোবাইল গেমে ব্যস্ত। যে সময়টা একদিন মানুষ বইকে নিজের সবচেয়ে কাছের বন্ধু হিসাবে মনে করত তারাই এখন বেছে নিয়েছে মোবাইল ফোনের বিভিন্ন গেম। আর মোবাইল গেমের তালিকায় সবার আগে রয়েছে পাবজি। যাকে কেন্দ্র করে চলতি বছরে তর্কও কিছু কম হয়নি। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বিশ্বের বেশ কিছু দেশে নিষিদ্ধ হয়েছে পাবজি গেম। এই রয়্যাল ব্যাটল গেম পাবজি ২০২০ সালে উপার্জনের নিরিখে পিছনে ফেলে বিশ্বের নামজাদা গেমিং প্ল্যাটফর্মগুলিকে। সম্প্রতি সেন্সর টাওয়ারের একটি রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে যে, ২০২০ সালে গোটা বিশ্বে পাবজির রোজগার ২.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।
টুইটারে সেই খবরটি জানিয়ে সেন্সর টাওয়ার লিখছে, পাবজি সারা বিশ্বে ২০২০ সালে অ্যাপ স্টোর এবং গুগুল প্লে থেকে আয়ের নিরিখে সর্বাধিক গেমিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবে উঠে এসেছে।

এই গেমিং অ্যাপ ২০২০ সালেই ২.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রোজগার করেছে, যা ২০১৯ সালের থেকে অন্তত ৬৪ শতাংশের বেশি।  পাশাপাশিই সেই টুইটে আরও লেখা হয়েছে, 'মোট পাঁচটি গেমিং প্ল্যাটফর্ম ২০২০ সালে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশিই রোজগার করেছে। তবে সেন্সর টাওয়ারের তথ্য অনুযায়ী জনপ্রিয় এই ব্যাটল রয়্যাল গেম চলতি বছরে আয়ের বৃদ্ধির দিক দিয়ে রেকর্ড করেছে। তৃতীয় স্থানে রয়েছে নিনাটিকের পোকেমন গো, যার রোজগার এবারে ১.২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। চতুর্থ স্থানে রয়েছে মুন অ্যাকটিভের কয়েন মাস্টার, এর আয় ১.১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০২০ সালে আয়ের নিরিখে চতুর্থ স্থানেই আবার রয়েছে আর এক গেমিং প্ল্যাটফর্ম রবলক্স। এই গেমের রোজগারও ১.১  বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং তা ২০১৯ সালের তুলনায় দ্বিগুণ। দিনে-দিনে বাড়ছে ব্যাটল রয়্যাল গেমের জনপ্রিয়তা। আর সেই জনপ্রিয়তায় পাবজির ধারে-কাছে প্রায় কেউই নেই। তবে কি আসল যুদ্ধ করতে না পেরে নকল যুদ্ধের খেলায় মেতেছে মানুষ। আমাদের মানসিকতার এই পরিবর্তন আগামী দিনে কোন পথ দেখায় তা নিয়ে চিন্তায় মনোবিদরাও।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর