× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার

অনলাইনে হাতিলের ফার্নিচার

দেশ বিদেশ


৩১ ডিসেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

সাধারণ শোরুমে স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেক সময় সব ধরনের ফার্নিচার প্রদর্শন করা সম্ভব হয় না। তার ওপর করোনার কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রেতাদের ফার্নিচার দেখাতে বেগ পেতে হয়। এই ঝামেলা এড়াতে দেশে প্রথমবারের মতো ফার্নিচারের ভার্চুয়াল শোরুম চালু করেছে হাতিল। এই শোরুমে অনলাইনেই ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরিয়ে দেখে কেনা যায় হাতিলের সব ফার্নিচার।
হাতিলের ভার্চুয়াল শোরুমে যুক্ত আছে সাধারণ শোরুমের সব সুবিধা। চার তলা এই ভার্চুয়াল শোরুমে পাওয়া যাচ্ছে লিভিং রুম ফার্নিচার, অফিস ফার্নিচারসহ হাতিলের সব আসবাব। এই শোরুমে ফার্নিচার যাচাই-বাছাইয়ে যানজটের মত ভোগান্তিও পোহাতে হয় না। কারণ মোবাইল কিংবা কম্পিউটারে বসেই এই শোরুমের ফার্নিচার দেখা ও অর্ডার করা যায়। এমনকি ফার্নিচার ঘরে ঠিকঠাক বসবে কি না- তা ইঞ্চি ধরে পরিমাপ করা যায়।
চাইলে ঘরের সাথে মিলিয়ে কাস্টমাইজ করা সম্ভব।
ফার্নিচার ব্র্যান্ড হিসেবে হাতিল যাত্রা শুরু করে ১৯৮৯ সালে। আসবাবপত্রে মানুষকে এক ভিন্নধর্মী, সুদূরপ্রসারী এবং সেবামূলক অভিজ্ঞতা দেওয়াই এই কোম্পানির মূল লক্ষ্য। এমন ভাবনা কাজে লাগিয়ে তারা ছাড়িয়ে যায় বাজারের অন্যান্য প্রতিযোগীদের। গুণগতমানের কারণে সাফল্যের পথ ধরে তারা ছড়িয়ে পড়েছে নানা দেশে। বাংলাদেশের বাইরে হাতিলের এখন ২২টি শোরুম রয়েছে। নতুন বছর আরও কয়েকটি শোরুম চালু হবে। রবার্ট পল ইন কর্পোরেশনের মাধ্যমে হাতিল যুক্তরাষ্ট্রে ফার্নিচার বাজারজাতকরণ করছে।
শুধু বাংলাদেশ নয় যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, সৌদি আরব, কুয়েত, সংযুক্ত আরব আমিরাত, থাইল্যান্ড, মিশর, রাশিয়া, নেপাল, ভুটান এবং ভারতেও ফার্নিচার ব্র্যান্ড হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে হাতিল। বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান হিসেবেই তারা ফার্নিচার রপ্তানি করছে এসব দেশে। ভাষা ও দেশ আলাদা হলেও গোটা বিশ্বজুড়ে হাতিলের পণ্যের গুণগতমান অভিন্ন।
ক্রেতাদের জন্য নিত্য নতুন ফিচার চালুর জন্য হাতিল বেশ সমাদৃত। নিয়মিত প্রবৃদ্ধির পাশাপাশি পরিবেশ সুরক্ষা ও বাণিজ্যিক কার্যক্রমে স্বচ্ছতার সুবাদে হাতিল অর্জন করেছে নানা পুরস্কার। ২০১৩ সালে এই কোম্পানি গ্রিন অপারেশন ক্যাটাগরিতে ‘এইচএসবিসি-ডেইলি স্টার ক্লাইমেট অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে। এ বছর তারা পেয়েছে সর্বোচ্চ ভ্যাট দাতা প্রতিষ্ঠানের সম্মান ও পুরস্কার।
করোনাকালে দেশী-বিদেশী ক্রেতাদের মাঝে সাড়া ফেলেছে হাতিলের ভার্চুয়াল শোরুম। কারণ শোরুমে যাতায়াতের ঝক্কি না থাকায় বয়োবৃদ্ধরাও এই শোরুমে অনায়সে ফার্নিচার যাচাই-বাছাই করতে পারছেন। ক্রেতাদের সুবিধার কথা ভেবে আরো অনেকে হয়তো ভার্চুয়াল শোরুম চালু করবে। তবে আজীবন এমন যুগোপযোগী উদ্যোগের আবিষ্কারক হিসেবে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে হাতিলের নাম।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর