× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার
টাইগারদের প্রস্তুতি ম্যাচ আজ

সাকিবকে ঘিরে উচ্ছ্বাস

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
১৪ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

১০ মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশ দল। সবকিছু ঠিক থাকলে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ মাঠে গড়াবে ২০শে জনুয়ারি। করোনার ধাক্কা কাটিয়ে নিজেদের সেরাটা দিতে এরই মধ্যে প্রস্তুতি শুরু করেছে টাইগাররা। টেস্ট ও ওয়ানডের জন্য পৃথক প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আজ বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। একই ভেন্যুতে দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে শুক্রবার। এখান থেকেই  কোচ ও নির্বাচকরা  ঘোষণা করবেন ওয়ানডের চূড়ান্ত স্কোয়াড। দীর্ঘদিন পর মাঠে ফিরে নিজেদের মানিয়ে নেয়ার সঙ্গে আছে জয়ের চ্যালেঞ্জও।
তবে দেশের মাটিতে বলে চিন্তিত নয় টাইগার শিবির। বিশেষ করে ক্যারিবীয়রা তাদের সিনিয়র ক্রিকেটারদের না পেলে বাংলাদেশ পেয়েছে পূর্ণ শক্তির দল। এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। দলের অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের কণ্ঠেও ফুঁটে উঠলো সেই  আত্মবিশ্বাস। জানালেন সাকিবকে ঘিরে তাদের উচ্ছ্বাসের কথা। গতকাল মিরাজ বলেন, ‘অনেকদিন পর একসঙ্গে হয়েছি এবং আমরা সবাই মুখিয়ে খেলার জন্য। বিশেষ করে আমাদের সাকিব ভাই টিমে ফিরেছেন। এক বছর  বাইরে ছিলেন। আমাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট যে করোনার জন্য দীর্ঘদিন খেলা হয়নি। আমি মনে করি যে, আমাদের টিম খুব ভালো একটা পজিশনে আছে। আমাদের সামনে যে সিরিজ আছে, ইন শা আল্লাহ আমরা সেখানে ভালো কিছু করতে পারবো।’
জাতীয় দলের হয়ে ২২ টেস্ট ও ৪১ ওয়ানডে খেলা মিরাজের দলে অবশ্য জায়গা কিছুটা নড়বড়ে। শেষ কয়েক সিরিজ তার খুব একটা ভালো কাটেনি। ওয়ানডে বা টেস্ট দুটিতেই তার জয়গা পাওয়া এখন চ্যালেঞ্জ। সবশেষ ওয়ানডে সিরিজে অবশ্য দলে ছিলেন। কিন্তু এখন তার প্রতিযোগীর সংখ্যা বেড়েছে। দলে আরো তরুণ স্পিনার যোগ দিয়েছেন। নাসুম আহমেদ, নাঈম হাসানদের সঙ্গে তাইজুল  ইসলামের মতো অভিজ্ঞ স্পিনাররাও আছেন। আবার সাকিব ফেরাতে স্পিন আক্রমণ হয়েছে আরো শক্তিশালী।  ২০১৯ এ পাকিস্তান সিরিজে টেস্টে দলে জায়গা পাননি মিরাজ। তবে তার আগে ভারতের বিপক্ষে সফরে দুই ম্যাচে তার শিকার মাত্র ১ উইকেট। গেল বছর মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তার শিকার তিন ম্যাচে মাত্র ৩ উইকেট। তবে এবার দেশের মাটিতে খেলা ও প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ বলে বেশ আত্মবিশ্বসী মিরাজ। তিনি বলেন, ‘দেখেন শেষ তিন-চারটা আন্তর্জাতিক ম্যাচ কিন্তু আমি অতটা ভালো করতে পারিনি, দেশের মাটিতে বা দেশের বাইরে। তবে আমি যেকটা ম্যাচ খেলেছি, আমার জন্য একটা আলাদা অ্যাডভান্টেজ থাকবে যেহেতু ওয়েস্ট ইন্ডিজ এসেছে। এবং আমি তাদের বিপক্ষে  ভালো করেছি। আর দেশের মাটিতে খেলা টেস্ট ওয়ানডে দুটোই হচ্ছে। আমার অবশ্যই ভালো অনুভূতি থাকবে যে না এখানে যদি ভালো করতে পারি, তাহলে নিজেকে ফেরানোর ভালো একটা সুযোগ পাবো। এটাই চেষ্টা করবো যে, নিজের পারফরম্যান্সটা ভালো করার জন্য এবং দিনশেষে দল যেন ভালো ফলাফল করে এটাই আশা।’  
গত মার্চের পর দীর্ঘ ৭ মাস দেশে সব ধরনের ক্রিকেট বন্ধ ছিল। পরে ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরলেও আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা হয়নি এখনও। অবশেষে নতুন বছর টাইগাররা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে। তাই দারুণ উৎফুল্ল মিরাজ। তিনি বলেন, ‘আমার খুব ভালো লাগছে যে অনেকদিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরছে। আর সবচেয়ে বড় কথা যে, আমরা একটা পরিস্থিতি পার করেছি শেষ এক বছর।  আমরা হতাশ ছিলাম, কিভাবে কী করবো না করবো। অনুশীলন ঐভাবে করতে পারছিলাম না। তারপরও আমরা চেষ্টা করছিলাম। এক বছর পর খেলা শুরু হচ্ছে, আমরা প্রত্যেকেই খুশি এবং আমিও ব্যক্তিগতভাবে খুশি। সব থেকে ভালো যে কথা, আমরা জাতীয় দলের সঙ্গে জয়েন করেছি এবং খুব ভালো একটা অনুশীলন সেশন চলছে। শেষ চারদিন আমরা খুব ভালো সময় পার করেছি অনুশীলনে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর