× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১ মার্চ ২০২১, সোমবার

ইভানকা দম্পতিকে নিষিদ্ধ করতে পারে বিলিয়নিয়ার ক্লাব

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) জানুয়ারি ১৪, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৫:০২ অপরাহ্ন

বিলাসবহুল বিলিয়ানিয়রদের একটি ক্লাবে নিষিদ্ধ করা হতে পারে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের কন্যা ইভানকা ট্রাম্প ও তার স্বামী জারেড কুশনারকে। ৬ই জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে নারকীয় হামলার পর এমন সিদ্ধান্তের দিকে যেতে পারে ওই ক্লাব।  যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামিতে  ‘বিলিয়নিয়ারস বাঙ্কার’ দ্বীপে ৩ কোটি ডলারে একটি নতুন বাড়ি কিনেছেন ইভানকা দম্পতি। এই দ্বীপটিতে বসবাস করেন এ-শ্রেণিভুক্ত সেলিব্রেটিরা। ২০ শে জানুয়ারি ট্রাম্পের ক্ষমতার মেয়াদ শেষে ইভানকা দম্পতি ওই বাড়িতে উঠার পরিকল্পনা করছেন। কিন্তু ক্যাপিটল হিলে হামলার পর তাদের বিষয়ে আপত্তি জানাচ্ছেন প্রতিবেশীরা। লন্ডনের অনলাইন এক্সপ্রেস এ খবর দিয়ে বলছে, ইভানকা ও জারেড কুশনারের নাম মিলিয়ে এই দম্পতিকে ডাকা হয় ‘জাভানকা’ নামে। তারা যে দ্বীপে বাড়ি কিনেছেন সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলের কিংবদন্তি টম ব্রাডির মতো ব্যক্তিদের বসবাস। এ ছাড়া বসবাস করেন স্প্যানিস গায়ক জুলিও ইগলেসিয়াস।
এর আগে এখানে বসবাস করতেন জাজ এবং বিয়োন্সে নোয়েলসের মতো সেলিব্রেটিরা। ২০১০ সালে তারা ৯৩ লাখ ডলারে তাদের বাড়ি বিক্রি করে দিয়েছেন। সব মিলে ওই দ্বীপে আছে ২৯টি বাড়ি। এখানে এখন অন্য যারা বসবাস করেন, তারা ‘জাভানকা’র বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, ইভানকা ট্রাম্পের বয়স এখন ৩৯ বছর। তিনি ৬ই জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে নারকীয়তার পর হামলাকারীদের ‘আমেরিকার দেশপ্রেমিক’ হিসেবে আখ্যায়িত করে টুইট করেছিলেন। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে তিনি কড়া সমালোচনার মুখে পড়েন। ফলে বাধ্য হয়ে স্বেচ্ছায় তিনি ওই টুইট তাৎক্ষণিকভাবে মুছে ফেলেন। স্থানীয় একটি সূত্র পেইজ সিক্স’কে বলেছেন, ইভানকা এবং তার ৪০ বছর বয়সী স্বামী ও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সহযোগী জারেড কুশনারকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্বাগত জানাবে না ওই দ্বীপের ইন্ডিয়ান ক্রিক কাউন্ট্রি ক্লাব। অন্যদের এই ক্লাবের মনোনয়ন পেতে আনুষ্ঠানিকভাবে আবেদন করতে হয়। কিন্তু ইভানকা ও কুশনার ফার্স্ট ডটার এবং ফার্স্ট জামাই হওয়ার কারণে তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে এই ক্লাবের সদস্য হতে পারতেন। এই ক্লাবের একজন মাত্র সদস্য যদি নতুন সদস্যের বিষয়ে আপত্তি জানান, তাহলে কর্তৃপক্ষ তা আমলে নেয়। কিন্তু ৬ই জানুয়ারির ঘটনার পর অনেক সদস্যই তাদের বিষয়ে আপত্তি জানাচ্ছেন। ফলে ইভানকা ও জারেড কুশনার তাদের অনুসারী ‘দেশপ্রেমিকদের’ সঙ্গে মিশতে পারেন মার-এ-লাগোতে। সূত্রটি বলেছেন, ইন্ডিয়ান ক্রিক কাউন্ট্রি ক্লাবের সদস্যরা নতুন সদস্য বাছাইয়ের ক্ষেত্রে খুব বুঝেশুনে তারপর তাদেরকে দলে নেন। ফলে জাভানকা দম্পতির সেখানে আবেদনের কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর