× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার

ধর্মীয় বিতর্কে সায়নী

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক
১৮ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার

টুইট নিয়ে ধর্মীয় বিতর্কে পড়লেন কলকাতার অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ। অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে রবীন্দ্র সরোবর থানায় দায়ের করা হয়েছে এফআইআর। আর তারই মাঝে বিতর্কিত ওই টুইটের দায় এড়ালেন সায়নী। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করতে চাননি বলেই দাবি তার। সম্প্রতি একটি টেলিভিশন চ্যানেলের অনুষ্ঠানে অংশ নেন সায়নী। বাঙালিয়ানা নিয়ে মন্তব্য করেন। ওই অনুষ্ঠানে তার মন্তব্য নিয়ে শুরু হয়েছে জোর চর্চা। তারই মাঝে আজ থেকে প্রায় বছর পাঁচেক আগের অর্থাৎ ২০১৫ সালের সায়নী ঘোষের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে করা একটি টুইট আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় বড় প্রাসঙ্গিক হয়ে পড়ে।
সায়নীর টুইটে দেখা গিয়েছে, শিবলিঙ্গের মাথায় কন্ডম পরাচ্ছেন এইডস সচেতনতার বিজ্ঞাপনের ম্যাসকট ‘বুলাদি’। ওই ছবিতে লেখা ‘বুলাদির শিবরাত্রি’। আর পোস্টের ক্যাপশনে লেখা, এর থেকে বেশি কার্যকরী হতে পারেন না ঈশ্বর। এই টুইটটি হিন্দু ধর্মের পবিত্রতা নষ্ট করেছে বলেই অভিযোগ করেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়। টুইট যুদ্ধের পরই শুরু হয় আইনি যুদ্ধ। সায়নী ঘোষের বিরুদ্ধে রবীন্দ্র সরোবর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল। অভিযোগপত্রের ছবি টুইটও করেন তিনি। তবে আসরে নামেন স্বয়ং অভিনেত্রী। নিজের ধর্মকে কোনো ভাবে আঘাত করতে চাননি বলেই দাবি করেন সায়নী। তিনি দাবি করেন, ২০১৫ সালে টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছিল। সেই সময় এই ছবিটি পোস্ট করা হয়েছে। পরে যখন নজরে আসে তখন তিনি টুইটটি ডিলিট করেন। তীব্র নিন্দাও করেন বলেই দাবি সায়নীর

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর