× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৪ মার্চ ২০২১, বৃহস্পতিবার
নিউজ কন্টেন্টের জন্য অর্থদাবি

অস্ট্রেলিয়া-গুগলের মধ্যে বিরোধ তীব্র হয়েছে

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) জানুয়ারি ২৩, ২০২১, শনিবার, ১:২১ অপরাহ্ন

সরকার যদি নিউজ কন্টেন্ট বা খবরের উপাদানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অর্থ দেয়ার পরিকল্পনা সামনে এগিয়ে নেয় তাহলে অস্ট্রেলিয়ায় নিজেদের সার্চইঞ্জিন অপশন অচল করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগল। নিউজিল্যান্ড থেকে বার্তা সংস্থা এপি এ খবর দিয়েছে। এ বিষয়ে একটি আইন করার দিকে অগ্রসর হচ্ছে সরকার। এর অধীনে কোনো সংবাদ বিষয়ক প্রতিষ্ঠানের কোনো কন্টেন্ট গুগল ব্যবহার করলে ওই প্রতিষ্ঠানকে অর্থ দিতে হবে। এই অর্থ দেবে গুগল। কিন্তু সরকারের এমন প্রস্তাবনায় ক্ষেপেছে গুগল। ফলে শুক্রবার গুগল হুমকি দিয়েছে। বলেছে, এই আইন সামনে এগিয়ে নিলে তারা অস্ট্রেলিয়া থেকে সার্চইঞ্জিন সরিয়ে রাখবে।
অর্থাৎ অস্ট্রেলিয়ায় সার্চইঞ্জিন থাকবে না। এর পরপরই হুমকির জবাব দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। তিনি বলেছেন, এমন হুমকিতে আমরা সাড়া দিই না। অস্ট্রেলিয়া যেসব আইন করেছে, এখানে কাজ করতে গেলে আপনাকে তা মানতে হবে। ব্রিসবেনে তিনি সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন। স্কট মরিসন বলেন, আইন করছে আমাদের পার্লামেন্ট। এটা করছে আমাদের সরকার। এভাবেই অস্ট্রেলিয়ায় বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে কাজ হয়।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি বিষয়ক এই জায়ান্ট অস্ট্রেলিয়ায় খবর নিয়ে বাণিজ্যে অন্যদের ছাড়িয়ে যাচ্ছে। তারা বড় রকমের প্রভাব বিস্তার করছে। ফলে তাদেরকে পিছনে ঠেলে দিতে চাইছে সরকার। এর ফলে গুগল এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার বিরোধ তীব্র হয়ে দেখা দিয়েছে। এক্ষেত্রে গুগল যে হুমকি দিয়েছে কার্যত তার কোনো পরোয়া করেন না অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী। এ বিষয়ে অনলাইন বিবিসিসহ বিভিন্ন মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, অস্ট্রেলিয়া সরকার নতুন একটি প্রচেষ্টা নিয়েছে। তার অধীনে খবরের প্রেক্ষাপটে বা নিউজ কন্টেন্ট ব্যবহারের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রকাশকদের সঙ্গে রয়েলটি ভাগ করে নিতে হবে গুগলকে। দেশটির সরকার এমন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে অগ্রসর হচ্ছে। কিন্তু বেঁকে বসেছে গুগল। তারা বলেছে, এক্ষেত্রে নিউজ কন্টেন্ট ব্যবহারের জন্য অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যম বিষয়ক প্রতিষ্ঠানকে যদি অর্থ দিতে বাধ্য করা হয়, তাহলে তারা অস্ট্রেলিয়ায় সার্স ইঞ্জিনই রাখবে না। প্রত্যাহার করে নেবে। এ নিয়ে কয়েক মাস ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ দেখা দিয়েছে। কিন্তু শুক্রবার তা নতুন জটিলতায়, উত্তেজনায় পৌঁছেছে। কারণ, এদিনই গুগল তাদের হুমকি প্রকাশ করেছে। সরকারকে রীতিমতো একটি হুমকি দিয়েছে।
খবরে বলা হয়েছে নতুন একটি আইন করার পথে অস্ট্রেলিয়া। একে ঐতিহাসিক আইন বলে আখ্যায়িত করা হচ্ছে। এর অধীনে গুগল, ফেসবুকসহ অন্য প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর সংবাদ বিষয়ক কন্টেন্ট ব্যবহার করলে সংশ্লিষ্ট কোম্পানিকে অর্থ দিতে বাধ্য করার বিধান রাখা হচ্ছে। গুগল অস্ট্রেলিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেল সিলভা এ সংক্রান্ত সিনেট শুনানিতে অংশ নেন। তিনি বলেন, প্রস্তাবিত আইনটি কঠোর। এই আইনের অধীনে কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব না। এই আইন অস্ট্রেলিয়ায় গুগলের সেবাপ্রাপ্তিকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। অস্ট্রেলিয়া সরকার আইনটি কার্যকর করলে সেখান থেকে গুগলের সার্চ ইঞ্জিন সরিয়ে নেওয়া ছাড়া তাদের আর কোনো উপায় থাকবে না।
গুগলের এমন হুমকির প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, তার দেশের আইনপ্রণেতারা হুমকিতে মাথা নত করবেন না। স্কট মরিসন বলেন, চলতি বছর পার্লামেন্টের মাধ্যমে আইনটি পাসের ব্যাপারে তার সরকার বদ্ধপরিকর। কোনো কোম্পানি অস্ট্রেলিয়ায় কী করতে পারবে বা পারবে না, সে বিষয়ে অস্ট্রেলিয়াই আইন করে থাকে। পার্লামেন্টের মাধ্যমে এই আইন করা হয়। এই আইন অনুযায়ী যারা কাজ করতে চায়, তাদের স্বাগত। কিন্তু কোনো হুমকিতে তারা সাড়া দেন না। অস্ট্রেলিয়ার একাধিক আইনপ্রণেতা গুগলের এই হুমকিকে ‘ব্ল্যাকমেইল’ বলে বর্ণনা করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর