× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার

রাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু ৭ই মার্চ, থাকছে না দ্বিতীয়বার সুযোগ

শিক্ষাঙ্গন

রাবি প্রতিনিধি
(২ মাস আগে) ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১, মঙ্গলবার, ৪:২৮ অপরাহ্ন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক সম্মান পরীক্ষার নীতিমালা ও আবেদনের সময়সীমা নির্ধারণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন শুরু হবে আগামী ৭ই মার্চ। চলবে ১৮ই মার্চ পর্যন্ত। প্রাথমিক আবেদন থেকে নির্বাচিত ভর্তিচ্ছুদের চূড়ান্ত আবেদন শুরু হবে ২৩শে মার্চ।

মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে অনুষ্ঠিত ভর্তি কমিটির সভার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান।

সভা শেষে ভিসি জানান, এবার উচ্চ মাধ্যমিকে পাশের হারের কথা বিবেচনা করে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন সংখ্যা ৩০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৪৫ হাজার করা হয়েছে। তবে সেকেন্ড টাইমের সুযোগ থাকছে না।

এবারের ভর্তি পরীক্ষায় লিখিত থাকছে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ১০০ নম্বরের বহুনির্বাচনী প্রশ্নের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষায় মূল্যায়ন করা হবে। যেখানে প্রশ্ন থাকবে ৮০টি। তাতে নেগেটিভ মার্ক থাকবে।
তবে এবার থাকছে না কোন লিখিত প্রশ্ন। থাকবেনা জিপিএ নম্বরও।

ভর্তি পরীক্ষায় পূর্বের ন্যায় এ, বি এবং সি মোট তিনটি ইউনিটে হবে। যেখানে ৪৫ হাজার করে মোট ১ লক্ষ ৩৫ হাজার শিক্ষার্থীকে চূড়ান্তভাবে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবে। যেটা পূর্বে প্রতি ইউনিটে ৩০ হাজার করে মোট ৯০ হাজার ছিল, এবার সেটা বৃদ্ধি করা হয়েছে, যোগ করেন তিনি।

আবেদন যোগ্যতা:
এবার ভর্তি পরীক্ষা ‘এ’, ‘বি’ এবং ‘সি’ এই তিনটি ইউনিটে অনুষ্ঠিত হবে। ‘এ’ ইউনিটে থাকবে কলা অনুষদ, আইন অনুষদ, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, চারুকলা অনুষদ এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট। ‘বি’ ইউনিটে থাকছে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ এবং ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট (আইবিএ)। ‘সি’ ইউনিটে থাকবে বিজ্ঞান অনুষদ, কৃষি অনুষদ, প্রকৌশল অনুষদ, জীববিজ্ঞান অনুষদ, ভূ-বিজ্ঞান অনুষদ, ফিশারিজ অনুষদ এবং ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস অনুষদ।

‘এ’ ইউনিটে আবেদন করতে মানবিক বিভাগ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করা শিক্ষার্থীদের এসএসসি এবং এইচএসসির যেকোন একটিতে ন্যুনতম জিপিএ-৩ এবং দু’টি মিলিয়ে ন্যূনতম জিপিএ ৭ থাকতে হবে। ‘বি’ ইউনিটে এসএসসি এবং এইচএসসির যেকোন একটিতে ন্যুনতম জিপিএ-৩.৫০ এবং দু’টি মিলিয়ে ন্যূনতম জিপিএ ৭ দশমিক ৫০ থাকতে হবে। ‘সি’ ইউনিটে জন্য এসএসসি এবং এইচএসসির যেকোন একটিতে ন্যুনতম জিপিএ-৩.৫০ থাকতে হবে এবং দু’টি মিলিয়ে ন্যূনতম জিপিএ ৮ থাকতে হবে।

আবেদন ফি ও আসন সংখ্যা
২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে কোটা বাদে মোট ৪ হাজার ১৯১টি আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এর মধ্যে মানবিক শাখার ‘এ’ ইউনিটে ২ হাজার ১৯ জন, ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ‘বি’ ইউনিটে ৫৬০ জন এবং বিজ্ঞান শাখার ‘সি’ ইউনিটে ১ হাজার ৬১২জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে শিক্ষার্থীরা ৫৫টাকা দিয়ে প্রাথমিক আবেদন করবেন। প্রাথমিক আবেদন থেকে বাছাইকৃত শিক্ষার্থীদের পরবর্তীতে ১ হাজার ১০০ টাকা দিয়ে চূড়ান্ত আবেদন করতে হবে। কেবলমাত্র চূড়ান্ত আবেদনকারী শিক্ষার্থীরাই পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন।

অনেকগুলো বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হলেও পরীক্ষা গ্রহণের দিন এখনো নির্ধারিত হয়নি বলে। দ্রুতই ভর্তি উপ-কমিটির সভায় পরীক্ষার দিন নির্ধারণ করা হবে বলে জানা গেছে।
 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর