× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার

স্বাধীন ভারতে প্রথম কোনো নারী ফাঁসির অপেক্ষায়

ভারত

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা
(১ মাস আগে) ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন

আর কিছুদিনের মধ্যেই ইতিহাসের শরিক হতে পারে উত্তরপ্রদেশের আমরাহর বাসিন্দা শিক্ষিকা শবনম। স্বাধীন ভারতে শবনমই প্রথম মহিলা বন্দি যার ফাঁসির আদেশ হয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট তার প্রাণদণ্ডের আদেশ বহাল রেখেছে। রাষ্ট্রপতি তার প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করেছেন। মহিলা অপরাধীদের ফাঁসির জন্যে ১৫০ বছর আগে মথুরা জেলে ফাঁসির মঞ্চ তৈরি হলেও কখনও সেখানে কোনো ফাঁসি হয়নি। ফাঁসির দিনক্ষণ স্থির না হলেও নির্ভয়া কাণ্ডের ফাঁসুড়ে পবন জল্লাদ পৌঁছে গেছে মথুরায়। বক্সার থেকে এসেছে ফাঁসির ম্যানিলা রজ্জুও। এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা শবনমের ফাঁসি হওয়া।  আমরাহর স্কুল শিক্ষিকা শবনম ডাবল এমএ।
ইতিহাস ও ভূগোলে  স্নাতকোত্তর ডিগ্রির অধিকারী। প্রেমে পড়েছিল গ্রামের দিনমজুর অশিক্ষিত সালিমের। প্রতি রাতে পরিবারের লোকদের ঘুমের ওষুধ খাইয়ে সে মিলিত হত সালিমের সঙ্গে। দুজনের বিয়েতে আপত্তি ওঠায় ২০০৮ সালের ১৪ এপ্রিলের রাতে শবনম কুঠার দিয়ে ছিন্নভিন্ন করে হত্যা করে বাবা, মা, তিন দাদা, এক বৌদি ও ১০ মাস বয়সী ভাইপোকে। ৭ খুনের তদন্তে নেমে পুলিশ গ্রেপ্তার করে শবনম ও সালিমকে। মূল হত্যাকারী শবনমের ফাঁসির আদেশ হয়। সেই আদেশ এখন কার্যকর হওয়ার পথে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Abdus Salam
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শনিবার, ৭:৪২

আমার মনে হয় এটা সঠিক নয়। কারন একা একটি মহিলা সাত জনকে হত্যা করেছে এটা অবিস্বাস্য। এহার সাথে বা পেছনে কেউ না কেউ জড়িত আছে। অতএব এটিকে সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে বিচার কায্য সম্পূর্ণ করে রায় প্রদান করা হোক।তবেই এ রায় সকলের চোখে নায্য ও গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হবে। কারণ আইন সবার জন্য সমান।

Moniruzzaman
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার, ১০:০৪

মামলা পুনরায় তদন্ত করা হোক

kazi Maruf
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার, ২:২০

অবিশ্বাস্য।পুনরায় তদন্ত প্রয়োজন।

Sabuj Saha
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার, ১২:২১

সম্ভবত পরিবারের লোকদের ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করেই হত্যা করা হয়।

Amir
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার, ১০:২৭

সে একজন মানুষ, শিক্ষিতা, প্রাপ্ত বয়স্কা, সাধীন সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকারী এগুলো বাদ দেওয়়া হয়়়েছিল পারিবারিক মতামতে, যা 'ক্ষতিগ্রসথকে' মনুষ্যত্ব টপকাতে প্রলুদ্ধ করে!

DEEDAR
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৭:২৭

বিশ্বাস হয় না। একজন নারী কি করে ৭ জনকে কুপিয়ে হত্যা করতে পারে ? ফাঁসি স্থগিত রেখে পনঃ তদন্ত হওয়া উচিত ।

tanbir
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৬:০৯

এই অমানুষ কূত্তীকে ফাঁসি দিলে কম হবে, একে চরম শাস্তির সহিত তিলে তিলে মারা উচিত ছিল, নিজের মা-বাবা কে এতো নিষ্ঠুর ভাবে হত্যা করল কিভাবে?

ইয়াছিন
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৫:৪৮

বিশ্বাস করতে পারছিনা। ১ জন নারী কি ভাবে ৭ জন মানুষকে খুন করতে পারে।আমার মনে হয় ফাঁসি স্হিগিত রেখে আবার পুনরায় তদ্দেন্তের দরকার আছে।

Khalilur Rahman
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৪:১২

ফাঁসি হওয়া উচিত

Murshed
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩:২২

আমার বিশ্বাস হয় না। একজন মহিলা সাতজনকে মারতে পারে

Murshed
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩:১৯

আদূ সত্য নয়। কি করে একজন সাত জনকে মারতে পারে

ঊর্মি
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ২:০৯

Frailty! Thy name is both "Woman and Politics !!!"

goam nabi
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:১০

Personally I don't think this is true it may propaganda

abdul barek
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:০৫

BOTH SIDE KOSTO

বুলবুল
১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১১:৩৯

সম্পুর্ণ একা একজন মেয়ে সাত সাতজন মানুষকে হত্যা করলো !!! এটা কি খুব স্বাভাবিক মনে হচ্ছে কারো? আমি মনে করি অসম্ভব তার একার পক্ষে ....

Mohammed Ismail Hoss
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:১৫

Right way judgement

Kazi Zaman
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:০২

শবনম কুঠার দিয়ে ছিন্নভিন্ন করে হত্যা করে বাবা, মা, তিন দাদা, এক বৌদি ও ১০ মাস বয়সী ভাইপোকে ! How is it possible? Killing 7 persons?

Kazi
১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১০:৫৩

This is severe crime, murder of 7 family members. Right justice, right verdict

অন্যান্য খবর