× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার

ভারত ব্যর্থ দেশবাসীকে পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন দিতে!

ভারত

বিশেষ সংবাদদাতা
(১ মাস আগে) ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১, বুধবার, ১০:১৭ পূর্বাহ্ন

রোববারের একটি দিনে দুবছর আগে যেখানে ১৭ কোটি ভারতীয় শিশুকে পোলিও ড্রপ খাওয়ানো সম্ভব হয়েছিল। হাম কিংবা মাম্পস-এর ভ্যাকসিন একদিনে বিপুল পরিমাণ দেওয়ায় সাফল্য পেয়েছিল ভারত সেখানে ৩৯ দিনে কোভিড ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে মাত্র ৪২ শতাংশ ফ্রন্টলাইন কোভিড যোদ্ধাকে। এই বিলম্বের কারণ কি? বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ভ্যাকসিন দেয়ার ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ডিজিটাল হতে গিয়েই এই বিপত্তি। তাঁদের মতে, ভ্যাকসিন দেয়ার ক্ষেত্রে গ্রহীতার যাবতীয় তথ্য কোউইন আপ এ তুলে রাখার জন্যেই এই বিলম্ব হচ্ছে। পোলিও,  হাম বা  মাম্পসের ক্ষেত্রে পুরো ব্যাপারটাই হতো অফআইনে। অর্থাৎ ম্যানুয়ালি।  ফলে,  দ্রুততা সম্ভব ছিল। কিন্তু কোউইন আপ পুরো প্রক্রিয়াটিকেই বিলম্বিত করে  দিচ্ছে।  ফলে, ৩৯ দিনে মাত্র এক কোটি ২০ লক্ষ কোভিড যোদ্ধাকে ভ্যাকসিন দেয়া সম্ভব হয়েছে। অথচ,  পোলিও ড্রপ এক একটি রাজ্য একদিনে এক থেকে দেড়কোটি শিশুকে খাইয়েছে।
বিশেষজ্ঞরা অধিকাংশ মনে করছেন, পুরোনো পদ্ধতি অর্থাৎ অফলাইনে এই ভ্যাকসিন দেয়া হলে দ্রুততা বাড়বে। অনেকে আবার অনলাইন ও অফলাইনের পাশাপাশি অবস্থান চান। তবে,  প্রায় সকলেই নিশ্চিত যে কোউইন আপ এর কারণেই এই বিলম্ব। এর ফলে পঞ্চাশোর্ধ ব্যক্তিদের ভ্যাকসিন দেয়ার ব্যবস্থা বিলম্বিত হচ্ছে। সংক্রমণ ফের ছড়াচ্ছে। এই অবস্থায়  ভ্যাকসিন দেয়ার ক্ষেত্রে সরকার ম্যানুয়াল প্রথাকে বেছে নেবে-  আশা সকলের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
কাজি
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১২:১৪

কাজের গতি শ্লথ হয়েছে তবে নিবন্ধন করাও প্রয়োজন। ভিন্ন প্রকৃতির কাজ। আমার মনেহয় গতি আনা সম্ভব যদি আগাম নিবন্ধন করা হয়, সেই তালিকায় টিকা প্রদান লিপি বদ্ধ করো হয়।

অন্যান্য খবর