× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২২ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার

দুই শিশুকে পাশবিক নির্যাতন, অধ্যক্ষসহ গ্রেপ্তার ২

বাংলারজমিন

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
২ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার

লক্ষ্মীপুরে চন্দ্রগঞ্জে একটি হাফেজিয়া মাদ্রাসার দুই শিশু ছাত্রকে পাশবিক নির্যাতনের ঘটনায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবদুর রশিদ ইউসুফ ও শিক্ষক হাফেজ মো. মাসুম বিল্লাহকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে এ অভিযুক্ত দুই শিক্ষককে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। এর আগে রাতে ওই দুই শিশুর পরিবার বাদী হয়ে চন্দ্রগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। এরপর চন্দ্রগঞ্জ বাজারে অবস্থিত আত্-তামরীন ইন্টারন্যাশনাল হিফযুল কুরআন মাদ্রাসা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত মাদ্রাসার শিক্ষক মোঃ মাসুম বিল্লাহ কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার ফেনুয়া এলাকার হারুনুর রশিদের ছেলে ও অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রশিদ মোহাম্মদ ইউসুফ ভোলার বোরহান উদ্দিনের  কাচিয়া এলাকার ক্বারী সিরাজুল হকের ছেলে।
পুলিশ জানায়, চন্দ্রগঞ্জ বাজারে অবস্থিত আত্-তামরীন ইন্টারন্যাশনাল হিফযুল কুরআন মাদ্রাসায় হেফজ বিভাগে পড়াশোনা করছে ওই দুই ছাত্র। বিভিন্ন সময়ে মাদ্রাসার শিক্ষক  মো. মাসুম বিল্লাহ তাদের সাথে পাশবিক নির্যাতন করত। বিষয়টি জানাজানির পর ওই শিশুদের পরিবার মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে জানানো হয়। এরপর অধ্যক্ষ উল্টো ওই দুই শিশু ছাত্রকে শারীরিকভাবে নির্যাতন চালায়।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফজলুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অভিযুক্ত দুই শিক্ষককে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
শাজিদ
২ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার, ১১:৫১

ঘটনাটি পরিকল্পিত মনে হচ্ছে। ”জানাজানি হয়ে গেলে” এই বাক্যটি প্রশ্নবিদ্ধ কারণ মাদ্রাসা এবং আলেম সমাজ এখন একটি পক্ষের জন্য বড়ই আঁতঙ্ক। এরা এখন মাদ্রাসা এবং আলেম সমাজকে বিতর্কীত করার জন্য প্রাণপন চেষ্ট করে যাচেজ্ছ। তারই ধারা বহিকতায় ঐ চক্রটি মাদ্রাসা এবং আলে সমাজের বিরোদ্ধে এই ধরণের মিথ্যাচার এলাকায় প্রচার করে এবং গরীব বাবা মাকে কিছু টাকা পয়সা দিয়ে মামলা করাইয়া আলেম সমাজকে হেয় প্রতিপন্ন করতেছে।

অন্যান্য খবর