× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২২ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার

করোনার সংক্রমণ আবার বাড়ছে

শেষের পাতা

ফরিদ উদ্দিন আহমেদ
৪ মার্চ ২০২১, বৃহস্পতিবার

দেশে করোনার গণটিকাদান কর্মসূচির মধ্যে গত তিনদিন ধরে সংক্রমণ বাড়ছে। শনাক্তের হার ৩-এর উপরে। এই বিষয়ে জনস্বাস্থ্যবিদরা বলছেন, মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। দেশের জনসংখ্যার কমপক্ষে ৭০ ভাগ টিকার আওতায় আনতে হবে বলে মনে করেন তারা। টিকা নিলেও আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে বলে পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। না হলে সংক্রমণ ঠেকানো যাবে না। বয়স্কদের আগে টিকা দিতে হবে। করোনার টিকার মধ্যেই আবারো সংক্রমণ বাড়াকে কীভাবে দেখছেন জানতে চাইলে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এর সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এবং সংস্থাটির উপদেষ্টা ডা. মুস্তাক হোসেন বলেন, প্রথম ডোজ টিকা নেয়ার তিন সপ্তাহ এবং দ্বিতীয় ডোজ নেয়ার ১৪ দিন পর থেকে মানুষের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়া শুরু করে।
দেশের জনসংখ্যার কমপক্ষে ৭০ ভাগ টিকার আওতায় আনতে হবে। টিকা নিলেও আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। বয়স্কদের আগে টিকা দিতে হবে। টিকা নিলে মৃত্যুর হার কমে আসবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

এ বিষয়ে জাতীয় পরামর্শক কমিটির অন্যতম সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম মানবজমিনকে বলেন, গত কয়েকদিন যাবৎ করোনার সংক্রমণ ৩-এর উপরে। টিকা নিলেও আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমাদের এখানে শীতকালীন কিছু রেসপেটরি ভাইরাস আগের থেকেই ছিল। ফলে করোনাভাইরাস ঢুকতে পারেনি। এখন গরম শুরু হওয়ায় করোনার সংক্রমণ কিছুটা বাড়তির দিকে। এটা আরো কয়েকদিন দেখতে হবে। তবে তিনি মনে করেন এই সংক্রমণের হার ৪ থেকে ৫-এর মধ্যেই থাকবে। এই জনস্বাস্থ্যবিদ জানান, সংক্রমণ কমানোর জন্য আমরা এমন কিছু করিনি। কিন্তু সংক্রমণ কমে গিয়েছিল। টিকা নিলেও আমাদেরকে স্বাস্থ্যবিধি গুরুত্বসহকারে মানতে হবে।

এদিকে, গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনার নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চলমান করোনার গণটিকার কার্যক্রমে ব্যবহৃত কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ গ্রহণের ন্যূনতম দুই সপ্তাহ পর থেকে সর্বোচ্চ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়। এ সময়ে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে ভ্যাকসিন নেয়ার পরও করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা ভ্যাকসিন নেয়ার কারণে করোনা শনাক্তকরণ প্রক্রিয়ায় ‘পজেটিভ’ হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তবে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন নেয়ার পর ন্যূনতম দুই সপ্তাহ পরে ভাইরাসের সর্বোচ্চ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়। তাই ভ্যাকসিন গ্রহণের আগে ও পরেও মাস্ক ব্যবহারসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে।

করোনা সংক্রমণ আবার বেড়ে ৬০০ ছাড়িয়েছে: দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা তার আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে। তবে কমেছে মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৬১৪ জন। তার আগের দিন শনাক্ত ছিল ৫১৫ জন। ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫ জন। দেশে এ পর্যন্ত করোনায় মোট মারা গেছেন ৮ হাজার ৪২৮ জন। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে: গতকাল সচিবালয়ে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ডিপ্লয়মেন্ট ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে এক বিশেষ সভা শেষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিন দেয়া হবে। তিনি জানান, ভ্যাকসিন দেয়ার বয়সসীমা আরো কমানো হবে যদি আরো ভ্যাকসিন আনা সম্ভব হয়। তখন শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়ার শিডিউলের বিষয়টিও ভেবে দেখা হবে। মন্ত্রী জানান, বিদেশি নাগরিক, সরকারি কর্মচারী, বিভিন্ন পোর্টে যারা কাজ করেন তাদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকা অনুযায়ী টিকা পাবেন বিদেশিরা। প্রথম দফায় জুন-জুলাই পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেয়া হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগের পরিকল্পনা অনুযায়ী, প্রথম দফায় দেড় কোটি মানুষ ভ্যাকসিন দেয়ার কথা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হচ্ছে। শিক্ষক, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা রয়েছে। আগামী জুলাই পর্যন্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মাধ্যমে কোভ্যাক্স-এর ১ কোটি ৯ লাখ ভ্যাকসিনসহ মোট ৪ কোটি ভ্যাকসিন দেশের মানুষের শরীরে প্রদানের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন ছাড়া অন্য দেশ থেকেও টিকা আনার জন্য আলোচনা চলছে।

টিকা নিয়েছেন ৩৪ লাখ ৬০ হাজার মানুষ: সারা দেশে গণটিকাদান কর্মসূচি শুরুর ২১তম দিনে গতকাল ভ্যাকসিন নিয়েছেন ১ লাখ ১৮ হাজার ৬৫৪ জন। আগের দিনের চেয়ে প্রায় ৪ হাজার টিকা গ্রহণকারী বেড়েছে। এর মধ্যে ঢাকায় নিয়েছেন ২৪ হাজার ৭৫৪ জন। এ পর্যন্ত দেশে মোট টিকা নিয়েছেন ৩৪ লাখ ৬০ হাজার ১৫৯ জন। এরমধ্যে পুরুষ ২২ লাখ ২১ হাজার ২৬৯ জন এবং নারী ১২ লাখ ৩৮ হাজার ৮৯০ জন। টিকা নেয়ার পর সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়েছে মোট ৭৮৪ জনের। অন্যদিকে গতকাল বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত টিকা নিতে অনলাইনে মোট নিবন্ধন করেছেন ৪৬ লাখ ৫৫ হাজার ৪৬৪ জন।



 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর