× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কলেজ শিক্ষক রিমান্ডে

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক
(১ মাস আগে) মার্চ ৫, ২০২১, শুক্রবার, ১০:০১ অপরাহ্ন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ঈশ্বরদীর পাকশী রেলওয়ে কলেজের শিক্ষক রাজিবুল আলম ইভানের (৫২) রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। কুষ্টিয়ায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এবং তার চাচাতো ভাই কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আতাউর রহমান আতাকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে যুবলীগ নেতার দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুক্রবার কলেজশিক্ষক রাজিবুল আলমের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এনামুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কুষ্টিয়া মডেল থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মাসুদুর রহমান বুধবার কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক রেজাউল করীমের আদালতে আসামিকে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত বছরের ৪ঠা ডিসেম্বর গভীর রাতে কুষ্টিয়া শহরের পাঁচ রাস্তার মোড়ে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে ফেলে দুর্বৃত্তরা। পৌরসভার পক্ষ থেকে কুষ্টিয়া মডেল থানায় দায়ের করা মামলায় সিসি ক্যামেরার ফুটেজের সূত্র ধরে দুই মাদ্রাসাছাত্র ও দুই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়।

আলোচিত এই ঘটনা নিয়ে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নানা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। বঙ্গবন্ধুর নির্মাণাধীন এই ভাস্কর্য ভাংচুরের ঘটনায় একটি পোস্ট দেন একই কলেজের সাদ আহমেদ নামের একজন শিক্ষক। সহকর্মীর এই স্ট্যাটাসের সূত্র ধরে একই কলেজের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক রাজিবুল আলম ইভান আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এবং তার চাচাতো ভাই কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আতাউর রহমান আতাকে ইঙ্গিত করে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করেন।
কলেজ শিক্ষক রজিবুল আলমের ফেসবুক আইডিতে এই লেখা দেখে সংক্ষুব্ধ হন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান মিজু। গত বছরের ১৪ ডিসেম্বরের তিনি কুষ্টিয়া মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি দায়ের করেন। শিক্ষক রাজিবুল আলম ইভান এই মামলায় উচ্চ আদালত থেকে আট সপ্তাহের জামিনে ছিলেন। উচ্চ আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক গত ১৮ই ফেব্রুয়ারি কুষ্টিয়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর থেকেই তিনি কারাগারে আছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মোঃ ইউসুফ
৬ মার্চ ২০২১, শনিবার, ১:০৪

আল্লাহর নিকট আরজ করুন।

Masud Masud
৫ মার্চ ২০২১, শুক্রবার, ১১:৫৭

স্বাধীন মত প্রকাশের স্বাধীনতা চাই। এটাই গণতন্ত্রের পূর্ব শর্ত।

Arfan Shah
৬ মার্চ ২০২১, শনিবার, ১১:২২

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন দেশ ও জাতিকে অনিরাপদ ও অস্থির করে তুলছে! আধুনিক যুগে দমন-পীড়ন, জুলুম ও নির্যাতনের হাতিয়ার, মধ্যযুগের এ কালো কানুন চলতে পারে না।

Tasmin
৫ মার্চ ২০২১, শুক্রবার, ৯:৪২

বন্ধ করেন এসব।আর কত?

Mahmud
৫ মার্চ ২০২১, শুক্রবার, ৯:১৭

এই কালো ও নিবর্তনমুলক আইন বাতিল চাই । আমাদের সবাইকে এ কথা এক সুরে , এক সাথে , উচ্চ স্বরে বার বার বলতে হবে ।

অন্যান্য খবর