× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৬ এপ্রিল ২০২১, শুক্রবার

রংপুরে প্রতারক বীনা রাণী গ্রেপ্তার

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার রংপুর থেকে
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার

প্রেম, যৌনতার ফাঁদে ফেলে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নেন রংপুরের বীনা রাণী। টার্গেট গ্রামের সহজ-সরল যুবক ও ব্যবসায়ী। নগরীতে ৪টি বাড়ি রয়েছে তার। সুন্দরী মেয়েদের দিয়ে টার্গেটকৃত ব্যক্তিকে প্রেমের জালে জড়ান বীনা। এরপর নিজ বাড়িতে এনে অসামাজিক কার্যকলাপ চালান। অর্থ হাতিয়ে নিতে মেয়েসহ ছবি তুলে তাদের প্রতারণার ফাঁদে ফেলেন। এরপর দাবি করে অর্থ। না দিলে চলে বীনার সন্ত্রাসী বাহিনীর মারপিট-নির্যাতন।
বীনার এমন ফাঁদে পড়ে সর্বস্বান্ত হয়েছেন অনেকে। বাদ যাননি গঙ্গাচড়া উপজেলার এক কর্মকর্তাও। আইনের চোখকে ধূলো দিতে ক্ষণে ক্ষণে নাম পরিবর্তন করেন বীনা। কখনো বীনা রাণী কখনো মুক্তা কখনো বা সুমি হিসেবে নিজেকে পরিচয় দেন। প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আদায় করা চক্রের মূলহোতা রংপুর নগরীর ধাপস্থ গাইবান্ধা বিআরটিসি বাস কাউন্টার এলাকার বাসিন্দা বীনাকে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে তার কাছ থেকে এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে বলে সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছেন রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, বীনা দীর্ঘদিন ধরে প্রেম, যৌনতা ও প্রতারণার ফাঁদে ফেলে ভাড়া বাসায় সহজ-সরল লোকদের জিম্মি করে অর্থ হাতিয়ে নিতেন। সম্প্রতি নীলফামারীর এক ব্যবসায়ী বীনার ফাঁদে পড়ে আড়াই লাখ টাকা প্রতারণার শিকার হলে তিনি থানায় মামলা দায়ের করেন। মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে বীনাকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে। তার দেয়া তথ্য মতে, পুলিশ নুরপুরসহ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই চক্রের সদস্য জাহাঙ্গীর আলম ওরফে কঁচি (৩৪), আহসান হাবীব (২৫), শ্রী বিষ্ণু রায় ওরফে আকাশ (১৯), সেকেন্দার রাজা (২৮), শ্যামল ওরফে নুর ইসলাম (৫৫), সোহাগী ওরফে রাজিয়া (৩২), জোনাকি ওরফে তিশা (২১), জান্নাতুল ফেরদৌস ওরফে জান্নাতি (২০), শাহনাজ (৩৫) ও লিজা মনিকে (১৯) গ্রেপ্তার করে। এ সময় তাদের কাছে থাকা ১৩টি মোবাইল ফোন, সহজ-সরল লোকদের ফাঁসিয়ে নেয়া ৩টি এটিএম কার্ড ও নগদ ২২ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। ওসি আব্দুর রশিদ বলেন, সম্প্রতি বীনার প্রতারণার ফাঁদে পড়ে গঙ্গাচড়া উপজেলা পরিষদের এক কর্মকর্তা ৮৫ হাজার টাকা খোয়ান। এ ঘটনায় ১৩ই ফেব্রুয়ারি থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন তিনি। বীনা দীর্ঘদিন ধরে সুন্দরী নারীদের ব্যবহার করে সহজ-সরল মানুষদের জিম্মি করে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছিলেন। তার বিরুদ্ধে ২টি মানবপাচারের মামলাও রয়েছে।
 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর