× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৯ এপ্রিল ২০২১, সোমবার

অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ লেখার বিষয়ে সতর্ক করলেন প্রধান বিচারপতি

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(১ মাস আগে) মার্চ ৭, ২০২১, রবিবার, ৭:১৭ অপরাহ্ন

দেশের ইমেজ সবার আগে। লেখেন, কিন্তু এ রকমভাবে কিছু করবেন না। একজন শিক্ষিত মানুষের জন্য শোভা পায় না। রোববার প্রধান বিচারপতি আসামিপক্ষের এক আইনজীবীর উদ্দেশে এসব কথা বলেন। পরে প্রধান বিচারপতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ কথা লেখার বিষয়ে সতর্ক করে মেডিকেল গ্রাউন্ডে আসামি সারোয়ারের হাইকোর্টের দেয়া জামিন বহাল রাখেন।  

শুনানিতে সারোয়ারের আইনজীবী মো. আসাদুজ্জামান আদালতকে বলেন, এক বছর ধরে কারাগারে আছেন সারোয়ার। এই মামলায় এখন পর্যন্ত অভিযোগপত্র দেয়া হয়নি। তাঁর হৃদযন্ত্রে চারটি স্টেন্ট পরানো আছে, স্বাস্থ্যগত কারণে জামিন চাওয়া হয়েছে।
তখন আদালত বলেন, এত স্টেন্ট থাকার পরেও আপনি এসব করেন? তখন আসাদুজ্জামান বলেন, গত ১৪ মার্চ থেকে কারাগারে আছেন। প্রায় এক বছর ধরে বিনা বিচারে কারাগারে আছেন। অভিযোগপত্র হয়নি এখনো। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আইনজীবীর উদ্দেশে বলেন, ভবিষ্যতে এগুলো করলে আর ছুটবেন (জামিন) না, যতই কথা বলুক।

আইনজীবী আসাদুজ্জামান বলেন, গত ১৮ অক্টোবর চেম্বার আদালত থেকে স্থগিতাদেশ (জামিন স্থগিত) দেয়া হয়। তারপর পাঁচ মাস হয়ে গেছে। আইনজীবীর উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি বলেন, আপনি সতর্ক করবেন। আবার যদি আসে তারপরে আর বেল (জামিন) হবে না। দেশের ইমেজ আপনারা নষ্ট করে দেবেন। আমেরিকায় তো মানুষ ‘স্যাটায়ার’ করে। কিন্তু আমাদের এখানকার মতো কুৎসিতভাবে লেখে না। যেসব ভাষা লেখে একজন শিক্ষিত মানুষ কীভাবে এসব ভাষা ব্যবহার করতে পারে? তাহলে শিক্ষার দাম কী হলো? পরে আদালত মেডিওেকল গ্রাউন্ডে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন খারিজ করে আদেশ দেন।

গত বছরের মার্চে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সিলেট থানায় প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি সম্পর্কে কটাক্ষ ও নেতিবাচক বিভিন্ন পোস্ট ও ছবি বিকৃত করে ফেসবুকে পোস্ট ও শেয়ার করার অভিযোগে গোলাম সারোয়ারের বিরুদ্ধে মামলা হয়। এ মামলায় গত বছরের অক্টোবরে হাইকোর্ট রুল দিয়ে সারোয়ারকে অন্তর্র্বতীকালীন জামিন দেন। এর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ১৮ অক্টোবর চেম্বার আদালতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত হয়। এর ধারাবাহিকতায় রোববার আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনটি শুনানির জন্য ওঠে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Imrul
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ৯:২১

Hahaha

Kamruzzaman
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ৮:২৯

বলা যাবে না শুনা যাবেনা লেখা যাবে না কথা রক্ত দিয়ে অর্জন করেছি আজব স্বাধীনতা

shiblik
৮ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৮:৩০

I am unable to express my opinion here due to fear of censorship and retaliation.

এ,টি,এম,তোহা
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ৬:২৬

কুরুচিপূর্ণ লেখা দোষের কিন্তু কুরুচিপূর্ণ ছবিতো সোশাল মিডিয়াজুড়ে। তাহলে ব্যাপারটা দাঁড়ায় ' দেখা যাবে, লেখা যাবেনা'! যেসব গালি আর অশ্লীল ডায়ালগ এসব বিষয়ে সরকার পদক্ষেপ নিলে জনগণ খুশি হতো।

Banglar Manush
৮ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৭:২৫

Do you understand the freedom of expression clause in the constitution?

Nam Nai
৮ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৭:২৪

Your job is to follow the constitution and the laws of the land; not to lecture on politics.

Alam
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ১:০৭

Ei rokom dolio prodan bichar poti thakle ei desher manush sotik bichar pabena

Mahmud
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ৯:৫৭

বাহ্ , চমৎকার !!! গদি রখ্খার অভিনব কৌশল । আর যখন ক্রস ফায়ারের নামে প্রতিদিন নিরীহ মানুষকে হত্যা করা ঽয় , ডিজিটাল নিরাপত্তার মতো কালো আইনে বিনা বিচারে মানুষকে আটক করে নির্যাতন করা হয় এবং মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া হয় তখন দেশের ইমেজ বৃদ্ধি পায় । বাহ্ ভালোইতো !

Mohammad Sarker
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ১০:১৮

Request to Manonzamin please share what Mr. Sarwar actually said about the Prime Minister where chief Justice had to make such a comment that it is agianst the country's defamation.

Md. Shahid ullah
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ১০:১৬

সেটা সকল পক্ষের নেতাদের জন্য প্রযোজ্য হোক। কুরুচিপুর্ণ, অসত্য, বিভ্রান্তিকর, মিথ্যাচারের সব দলের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হওয়া উচিত। যে বা যারা রাজাকার না, হানাদার না, মাফিয়া না তাদের বিরুদ্ধে যে বা যারা লিখবে, ছবি/কার্টুন আঁকবে তাদের জন্যও একই বিচার হোক।

Shobuj Chowdhury
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ৮:৩৪

Wow! What a lecture!!

কটায় মিয়া,লন্ডনী
৭ মার্চ ২০২১, রবিবার, ৭:২১

ডিজিটাল আইনের কারণে গণমাধ্যমের পাশাপাশি সাধারণ নাগরিকদের মধ্যেও একটা ভয়ের সংস্কৃতি তৈরি হয়েছে, অনিয়মের বিরুদ্ধে লেখা কি রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে লেখা?তা অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ লেখা ?

অন্যান্য খবর