× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩০ রমজান ১৪৪২ হিঃ

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি, করোনাভাইরাস ও কিছু কথা

শিক্ষাঙ্গন

আফরিন আপ্পি
(১ মাস আগে) মার্চ ১৫, ২০২১, সোমবার, ১০:১৬ পূর্বাহ্ন

১৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ৪১ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। এতে আবেদন করেছেন প্রায় ৪ লাখ ৭৫ হাজার পরীক্ষার্থী। এর মধ্যে অংশ নেবেন প্রায় সাড়ে চার লাখ। এরই মাঝে গত ৭৪ দিনের মধ্যে রোববার করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা সর্বাধিক। রোববার মৃত্যুবরণ করেছেন ১৮ জন। এ নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের মাঝে।

করোনা সংক্রমণের এই ঊর্ধ্বগতি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরাও। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে হাসপাতালগুলোতে প্রতিদিনই উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।
আরো উদ্বেগের খবর হল বর্তমানে আইসিইউতে ভর্তি রোগীদের বেশিরভাগই তরুণ।

এরই মাঝে আগামী ১৯ মার্চ বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা দিতে দেশের বিভাগীয় শহরগুলোতে প্রায় সাড়ে চার লাখ পরীক্ষার্থীর সমাগম হবে। তাদের প্রত্যেকের সাথে যদি ১জন করে অভিভাবক ধরি তাহলে এই সংখ্যাটা দাঁড়ায় প্রায় ৯ লাখ।

এবার আসুন এই পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষায় অংশ নিতে গিয়ে আগের দিন রাতে কোথায় থাকবে? বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় স্বাভাবিকভাবেই তারা তাদের আত্মীয়-স্বজনের বাসা, শহরের বিভিন্ন মেস, হোটেলে অবস্থান নেবে।

বিভিন্ন যানবাহন যেমন বাস-ট্রেনে চড়ে এক শহর থেকে অন্য শহরে যাবে। আবার পরীক্ষার হলে পৌঁছতে ব্যবহার করবে রিকশা-সিএনজি এবং সেক্ষেত্রে তাদের সাথে জড়িত থাকবে গণপরিবহন শ্রমিকরাও।

আবার এই পরীক্ষার সাথে যুক্ত সারাদেশের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ, স্কুল কলেজের শিক্ষক, অফিস সহকারি, পিএসসিতে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, পরীক্ষার্থীদের অভিভাবক সবমিলিয়ে সারাদেশে প্রায় ১২ লাখ মানুষ সেদিন ২ ঘন্টার পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে প্রায় ৪৮ ঘণ্টার মতো বেপরোয়াভাবে এক বিশাল কর্মযজ্ঞের মধ্য দিয়ে যাবেন।

প্রশ্ন আসতে পারে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ছাড়া সারাদেশে সবকিছু স্বাভাবিক নিয়মে চলছে তাহলে বিসিএস পরীক্ষা হতে দোষ কি? উত্তর একটাই কোন কিছু ধ্বংস হতে একটি বিস্ফোরণই যথেষ্ট।

আবার অনেকের বাবা-মা হয়তো করোনা আক্রান্ত হয়ে আইসিইউতে রয়েছেন। সেই পরীক্ষার্থী মানসিকভাবে কতোটা উপযোগী পরীক্ষার হলে বসার? বা আদৌ সে পরীক্ষার হলে যেতে পারবে কিনা সে বিষয়েও যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।

বিসিএস যেহেতু সোনার হরিণ সেজন্য করোনা আক্রান্তরাও যে পরীক্ষার হলে যাবে না; সে বিষয়ে কোনো নিশ্চয়তা নেই। আর আক্রান্ত একজনও যদি পরীক্ষার হলে উপস্থিত হন তাহলে পরবর্তীতে এর ফলাফল কি হবে সেটি আমরা সহজেই আঁচ করতে পারছি।

করোনাভাইরাস এর এই ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মাঝে ১৯ মার্চ এর পরীক্ষার এমন সিদ্ধান্ত কতটা যৌক্তিক সে বিষয়ে অবশ্যই পিএসসির ভেবে দেখা উচিৎ বলে মনে করছি। কারণ এই একদিনের পরীক্ষার জন্য একজনও যদি আক্রান্ত হয় বা একটি প্রাণও যদি যায় তার দায় কিন্তু পিএসসি নেবে না।

অনেকেই বলতে পারেন করোনা কী শুধু পরীক্ষার হলেই থাকবে? না করোনা শুধু পরীক্ষার হলে থাকবে না। করোনা থাকতে পারে একজন পরীক্ষার্থী যে যানবাহনটিতে চড়ে যাচ্ছেন সেখানে। করোনা থাকতে পারে পরীক্ষার্থী যে আত্মীয়ের বাসায় বা যে হোটেলে অবস্থান করছে সেখানে। করোনা থাকতে পারে পরীক্ষার্থীর সামনে বা পেছনের বেঞ্চে বসে যিনি পরীক্ষা দিচ্ছেন সেই পরীক্ষার্থীর শরীরে। করোনা থাকতে পারে পরীক্ষার হল পরিদর্শকের শরীরে। করোনা থাকতে পারে যে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর যে সদস্য পরীক্ষার্থীদের চেক করে কেন্দ্রে প্রবেশ করাচ্ছেন তার শরীরে। আমরা জানি করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরেও দীর্ঘদিন এর লক্ষণ সুপ্ত অবস্থায় থাকতে পারে।

বলতে পারেন স্বাস্থ্যবিধি মেনেই-তো পরীক্ষা নেয়া হবে। তাহলে আপত্তি কেন? এর সহজ উত্তর পরীক্ষার হলে ঢোকার সময় হয়তো স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢোকানো হলো। নিরাপদ দূরত্বে এক একজন পরীক্ষার্থীকে বসানো হলো। কিন্তু তাদের বহনকারী গণপরিবহনগুলোতে কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি মানা হবে না। আবার পরীক্ষা শেষে কেন্দ্র থেকে বের হওয়ার সময় যে বিশাল জনসমাগম হবে সেটিও করোনার নিরাপদ আশ্রয়স্থল বলেই মনে করছি।

তাই আবারও বলছি ১২ লাখ মানুষ তাদের এক একজনের পরিবারে যদি অন্তত চারজন করেও থাকে সে ক্ষেত্রে ৪৮ লাখ মানুষকে প্রত্যক্ষভাবে হুমকির মুখে না ফেলে; শেষ সময়ের জন্য হলেও অন্তত একবার ভাববে পিএসসি।

আসুন সবাই নিজে নিরাপদ থাকি; অপরকে নিরাপদ থাকতে সহায়তা করি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
জ্যোতি
১৬ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার, ১০:১১

পরীক্ষা পেছানো উচিত

MD.AIYUB ALI
১৬ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার, ৩:৪৯

পরিক্ষা পিছানো হোক

সঞ্জয় বালা
১৬ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার, ৪:৫০

সরকার,পিএসসি, আদালত এর আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। এতে করোনা বাড়বে। পরীক্ষার্থীদের স্কুল-কলেজ, আবাসিক হল, বন্ধ থাকায় অসহনীয় দুর্ভোগের সম্মুখীন হবে, যেটা আপনারা আলোচনা /উল্লেখ করলেন । সরকার, আদালত, ও পিএসসি কে 41 বিসিএস অনুষ্ঠিত হওয়া এর সিদ্ধান্তের পুনর্বিবেচনা করা উচিত।

Jane austen
১৬ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার, ১:০৬

যদি একজন ব্যক্তি ও পরীক্ষা দেয় তাইলে সেইটা হবো আমি। :3

মো:মাফিয়ার রহমান
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১০:৪৮

আপনাদের কথার সাথে একমত পোষণ করছি কিন্তু, সরকার যদি সার্টিফিকেটের বয়স দুই বছরের জন্য বাড়িয়ে দিত তাহলে অনেক ভালো হত কারণ অনেকের সার্টিফিকেটের বয়স শেষ হচ্ছে। তারপরও এখন যেহেতু দেশের অবস্থা ভালো নয় সেহেতু না নেওয়ায় ভালো

মাহবুবুর রহমান পলাশ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১০:৩৯

Exam should be postpond.

মো সারোয়ার
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৯:৫৯

পরিক্ষা পেছানো হলে খুব ই ভালো হত!!!!!!

মোঃ শহিদুর রহমান
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৯:৪০

সার্বিক দিক বিবেচনা করেই, আশাকরি সঠিক সিদ্ধান্ত দিবে পিএসসি,

অপু
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৯:৩৯

পরীক্ষা তারিখ পিছান হোক,,,,

Adnan
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৯:৩৭

Exam should be stoped for our life..

AlAmin
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৮:০৩

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দয়াকরে ১৯ মার্চ পরীক্ষা বন্ধ করুন। এরকম মানসিক ত্রমার মধ্যে পরীক্ষা দিতে চাই না।

shaharia afroz shorm
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৭:২০

আমি এই প্রতিবেদনের সব কথা যুক্তিসঙ্গত মনে করছি।তাই আমিও 41bcs exam যেন 19 তারিখ না অনুষ্ঠিত হয়।পরীক্ষার সময় পেছানো হোক।

MD Obaidullah
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৭:১৫

এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা পেছালে ভালো হবে।

তানজিনা সুলতানা
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৬:৫৩

পরীক্ষা পেছানোই এখন যুক্তিযুক্ত

Naznin
১৬ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার, ৭:২৭

পরীক্ষা পেছানো হোক। " জীবনের জন্য বিসিএস, বিসিএসের জন্য জীবন নয় "

মোজাম্মেল
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৬:১৬

দেশের সার্বিক পরিস্থিতি ও সামষ্টিক জনসংখ্যা পরিস্থিতি বিবেচনায় পরীক্ষা পেছানো হউক।শুধুমাত্র একটা পরীক্ষার বিষয় বিবেচনায় সমগ্র দেশের জনগনকে হুমকির মুখে ফেলা যুক্তিযুক্ত নয়।

সাকিব
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৪৮

এই মুহূর্তে প্রিলি পিছানো উচিত।

রিপা
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১২:০২

একটা জীবনের মূল্য এ পৃথিবীর কেউ দিতে পারবেনা। তাই সে জীবনকে ঝুকিতে ফেলা উচিত নয়।

ইকবাল মাহমুদ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১১:২২

করোনার এই উর্ধ্বমুখী প্রবনতায় ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর বন্ধ চলাকালীন সময়ে বিসিএসের মত পরীক্ষা নেওয়া সম্পূর্ণ অযৌক্তিক বলে মনে করি। সরকার ও পিএসসি পুনর্বিবেচনা করবে বলে আশা রাখছি।

Paritosh Chandra Bar
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১১:১৬

Exam পেছালে ভালো হত.....

tonusree
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১০:৩১

সবার কথা বিবেচনা করে পরিক্ষা পিছানো উচিত।

বিভাষ হালদার
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১০:০৮

পেছানো উচিত

সোহেল মাহমুদ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৯:৫৩

করোনার কারনে বিসিএস পরীক্ষা পেছানোর কথা অনেকেই বলতেছে। আমার মতে পরীক্ষা নেওয়া উচিৎ এমন তো নয়, যে পরীক্ষা না হলে জনগন বাসায় বসে থাকবে। এই পরীক্ষার্থীরা বাইরে বের ও হবে। সব কিছুইতো খোলা।করোনা কি শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে??? সব কিছু যখন চলতেছে পরীক্ষা ও হবে।।

মোঃ আজহারউদ্দীন কাজল
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৯:১৯

পরীক্ষা পেছানো উচিত বলে আমি মনে করি।

MD. SHADMAN LABIB
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৯:১৫

যেহেতু,করোনা রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে, আমি একজন ৪১ তম বিসিএস পরিক্ষাথী হিসেবে আতংকিত,তাই পিএসসি কে অনুরোধ করবো ১৯ তারিখে exam না নিতে, আর সরকারের মানবিক দৃষ্টি কামনা করি যেন এ সমস্যা নিয়ে একটু ভাবেন,pls,pls.

আমির
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৮:৪৬

Exam should be stopped.

পবিত্র কুমার দাস
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৮:১৪

৪১তম পরীক্ষার্থীদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের চিন্তা মাথাই রেখে পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া উচিত, বলে মনে করি। (জীবন আগে, পরীক্ষা পরে )।

মুখলেছুর রহমান
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৭:৫৭

পরীক্ষা ছাড়া সকল কার্যক্রম এ কোন করোনা নেই। শুধু মাত্র পরীক্ষার জন্য সমস্ত করোনা জমিয়ে না রেখে বহু প্রস্তুতি ও অপেক্ষার বিসি এসে অংশ নিতে দিন। খুড়া যক্তির শেষ নেই।

আবুল কালাম
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৭:২৬

বর্তমান সময়ে করোনা যে ভাবে বাড়ছে এতে করে পরীক্ষা পিছানো সঠিক সিদ্ধান্ত হবে

মো:হারুন অর রশিদ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৭:০৪

পরীক্ষা পেছানো হোক

রিয়াজ আহমেদ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৬:৩৫

পরীক্ষা পেছানো উচিত

অজিত পাল
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৬:১৯

পরীক্ষা পিছানো হউক

Ajoy Das
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৬:৫৯

In this hazardous Corona situation, the 41st BCS Preliminary Exam should be postponed. The PSC authority should consider the case rationally.

মহসিন
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৫:৫৩

করোনায় আজ ১৫ মার্চ শনাক্ত ১৭৭৩, আরো ২৬ জনের মৃত্যু শনাক্তের হার ৯.৪৮% - সর্বশেষ এই তথ্য শুনানিতে অন্তর্ভুক্ত করুন : যমুনা টিভি যা বলার আপনি সঠিক বলেছেন।

জাহিদ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৫:২৪

ইতিমধ্যে করোনায় আক্রান্ত শিক্ষার্থীরা কি করবে?

Ak Rasel
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৫:১৬

পরীক্ষা অবশ্যই তারিখ পরিবর্তন করা উচিৎ

রমজানুল আলম
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৫:০৬

শ্রদ্ধেয় কতৃপক্ষ! যেকোনো পরীক্ষায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো মানসিক চাপমুক্ত থাকা।কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে সে চাপ থেকে মুক্ত থাকা অসম্ভব। তাই পরিস্থিতির সার্বিক বিবেচনায় বিসিএস ৪১ প্রিলি পরিক্ষার তারিখ পেছানোর জোর দাবি জানাচ্ছি। আশাকরি, পিএসসি কর্তৃপক্ষ আমাদের আকুল আকুতিগুলো অনুধাবন করে আসন্ন বিসিএস ৪১ প্রিলি পরিক্ষার তারিখ স্থগিত করবেন।

পরাগ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৫:০৪

পিএসসি চেয়ারম্যান স্যার এগুলো ভাববেন না। উনি এগুলো কিছু মানেন না।

জুবায়ের ইসলাম
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৪:৪৪

পরীক্ষা ডাক্তার দের 42তম যেভাবে হলো ঠিক সেভাবেই 41তম হয়ে যাওয়া উচিত কেননা এই বিসিএস 2019 এর । এই জট লাগানোর কোনো মানেই নেই যেখানে দেশের বাজার ঘাট লোকাল বাস অফিস সব সাভাবিক চলছে। করোনা আতঙ্কের জন্য সচেতন থাকুন। তাই বলে ঘাপটি মেরে পুরো জীবন অতিবাহিত করা গাধামি যে জীবনের জন্য ভয় সেই জীবনটাই যদি 15 বসর করোনার মধ্যে দিয়ে যায় এরপর ধরুন যদি নতুন ভাইরাস আসে আরো 15বসর অবস্থান করে। তার মানে তো এটা নয় যে বনবাস নিবেন কিংবা ঘরের কোণেবসে 15 30 বছর অতিবাহিত করবেন। বন্ধ করা সমাধান নয় জয় করতে পারাটা সমাধান!

রোকন
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৪:৪৪

এটা বিপিএসসির একগুঁয়ে ডিসিশন।

শিহাব উদ্দিন
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৪:৩৮

আমরা পরীক্ষা অবশ্যই দিবো কিন্তু এভাবে নই,যেখানে আমরা ভ্যাকসিন এখনো সবাই পাইনি,,সেখানে পরীক্ষা দিতে গিয়ে যে আমি আক্রান্ত হবো না এর কোন নিশ্চয়তা নেই, আর ক্যাম্পাস বন্ধ, কোথায় গিয়ে থাকবো এমন, এটা নিয়ে চিন্তা হচ্ছে, তাই আশাকরি পিছিয়ে দিবেন

শামীমা আক্তার শিমু
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৪:৩১

করোনা পরিস্থিতি দিনকে দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে ।তাই এখন পরীক্ষা স্থগিত' রাখাই উত্তম সিদ্ধান্ত হবে বলে আমার মনে হয়

ABDULLAH AL MAMUN
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৫:১৯

আসসালামু আলাইকুম। স্যার, আমি একজন ৪১ তম বিসিএস প্রত্যাশী! সাধারণ জনগণের ন্যায় আমি এবং আমার পরিবার করোনার আতঙ্কে আছি! আমার এবং আমার পরিবারের কেউ এখনো ভ্যাক্সিন নেওয়ার সুযোগ হয়ে উঠেনি! তাছাড়া বর্তমান করোনার ঊর্ধ্বগামী সংক্রমণে আমি এবং আমার পরিবার ৪১ তম বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষা নিয়ে সংকিত অবস্থায় আছি! কারণ আমাদের আশেপাশে যদি একজনও আক্রান্ত থাকে তবে পুরো একটি পরীক্ষা কক্ষ আক্রান্ত হবার সুযোগ রয়েই যায়! ৪১ প্রিলিমিনারী পরীক্ষা ১৯মার্চ ২০২১ ইং তারিখে অনুষ্ঠিত হলে শিক্ষার্থী ৪ লাখ ৭৫ হাজার পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবক-যানবাহন সহ প্রায় ৭-৮লাখ মানুষের একটা জন সমাগম হবে! এতে নতুন আক্রান্তের সম্ভাবনা রয়েছে! তাই ভ্যাক্সিন নিশ্চিত না করে ৪১ প্রিলি পরীক্ষা নেওয়াটা আমার কাছে দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠান হিসেবে পিএসসি’র বদনাম বয়ে আনবে! তাছাড়া আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতেও মহারাষ্ট্র পাবলিক সার্ভিস কমিশনের ১৪ মার্চের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা স্থগিত করেছে করোনার জন্য। বিষয়টি বিবেচনায় রেখে সংবাদ মাধ্যমেে প্রচারের জন্য আপনার কাছে সবিনয় অনুরোধ করছি৷ নিবেদক ৪১তম বিসিএস পরীক্ষার্থী৷

জান্নাতুল ফেরদৌস
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৪:০২

পরীক্ষা পেছানো হোক

abdul Mannan
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:৪৪

এত রিস্ক না নিয়ে, সবার কথা বিবেচনা করে পরিক্ষা পিছানো উচিত।

আমির হোসাইন
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:৩৬

পরীক্ষা তারিখ পিছিয়ে দেওয়া হোক।

হাবিব
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:২৫

১. যে পরীক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত, তাকে কেন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হবে না?? ২. করোনায় আক্রান্ত কোন পরীক্ষার্থী যদি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, তাহলে তো আর সাস্থ্যবিধী মানা হলো না।

Parvez Hasan
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:১৩

আমি গতকাল বিকেল থেকে অসুস্থবোধ করছি,জানি না কি হবে, তবে করোনার বেশ কিছু সিনটম লক্ষ্য করছি, একবার পজেটিভ হয়েছিল এর আগে। এখন কথা হচ্ছে পরীক্ষা ১৯ তারিখেই যদি হয়, তাহলে আমি কেন্দ্রেতো যাবই, যারা পরীক্ষা করে করোনা পজেটিভ সেও যাবে, আমার মত প্রতিটি কেন্দ্রে কয়েকশত রোগীর দরকার নাই, কেন্দ্র প্রতি একজন করে গেলেও আর কিছু লাগে না।

সজল সরকার
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:১২

কেউ নিজের দেওয়া ঘোষণাকে বাস্তবায়ন করতে মরিয়া।ভাবছেন সবকিছুই স্বাভাবিক তো বিসিএস নই কেন।তিনি তার সময়ে বিপিএসসিকে অনেক ভালো জায়গায় পৌঁছে দিতে চান তার সৎ প্রচেষ্টায় এ সন্দেহাতীত। কিন্তু একটু পেছালে পরিস্থিতি একটু অনুকূলে আসলে খুব বড় ক্ষতি হবে না, স্যার।নিজের কথা হইতো রাখতে পারবেন না কিন্তু এতে করে অনেক মানুষ একটা বড় ঝুঁকি থেকে বাঁচবেন, স্যার। এত বড় সংখ্যার কথাটাও একটু ভাবেন; যেখানে গ্রাম থেক শহর আবার পরীক্ষা শেষে শহর থেকে গ্রাম।নিতান্তই অনুরোধ আর কিছুই করতে পারি না, স্যার।

Atif Islam
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:১১

আমি গতকাল বিকেল থেকে অসুস্থবোধ করছি,জানি না কি হবে, তবে করোনার বেশ কিছু সিনটম লক্ষ্য করছি, একবার পজেটিভ হয়েছিল এর আগে। এখন কথা হচ্ছে পরীক্ষা ১৯ তারিখেই যদি হয়, তাহলে আমি কেন্দ্রেতো যাবই, যারা পরীক্ষা করে করোনা পজেটিভ সেও যাবে, আমার মত প্রতিটি কেন্দ্রে কয়েকশত রোগীর দরকার নাই, কেন্দ্র প্রতি একজন করে গেলেও আর কিছু লাগে না।

niyon
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:৫৮

একজন বেকারের কাছে অবশ্যই যথা সময়ে পরীক্ষা হওয়া যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে... সেই হিসাবে ১৯ মার্চ বিসিএস পরীক্ষার তারিখ নির্ধারিত হওয়াতে অবশ্যই স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছিলাম.... কিন্তু গত কয়েক দিনের করোনা পরিস্থিতি আমাদের আবারও নতুন করে ভাবতে বাধ্য করছে... পরীক্ষা পেছানোর যুক্তি --- ১) আপনি হয়তো আক্রান্ত হতে পারেন যা আপনার অজানা....আপনি হাসি মুখে ভালো করে পরীক্ষা দিয়ে গেলেন....আপনার মাধ্যমে আপনার আশেপাশের কয়েকজন সংক্রমিত হলো আর তাদের মাধ্যমে তাদের পরিবার কিংবা পরিজন..... ২) অল্প জ্বর ঠান্ডায় সুস্থ হয়ে গেলেন তো আলহামদুলিল্লাহ ... যদি না হন তবে ? আপনার জন্য হাসপাতাল , ICU এসবের ব্যবস্থা করতে হবে.... আপনি বেকার...এখনও পরিবারের উপর নির্ভরশীল....এই বাড়তি আর্থিক ক্ষতির জন্য নিজের বিবেকে আটকাবে না আপনার....? ধরে নিলাম আপনার সামর্থ্য আছে...টাকা খরচ করলেন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে আসলেন ... আচ্ছা ধরেন আপনি যদি আর সুস্থ না হন..? ৩) করোনায় আক্রান্ত অনেকেই সুস্থ হবার পরে নানান জটিলতায় ভুগছে....সেটা জানেন কি ...? ৪) যারা যুক্তি দিচ্ছেন সব তো খোলা তাহলে আমরা কেনো পরীক্ষা দেবোনা....তাদের উদ্দেশ্যে বলি খেয়ে পড়ে বেঁচে থাকতেই আপনার আমার বাবা-ভাই-বোন বাইরে কাজে যাচ্ছে.... আপনার আমার ভালো থাকার জন্যই লকডাউনের মধ্যেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ডাক্তার, পুলিশ সহ সবাই জরুরি সেবা দিয়ে গেছে.... ৫) আর যারা ঘোরাঘুরি করার দোহাই দেন তাদের বলি -- সচেতন মানুষ যেমন আছে অসচেতন মানুষও তেমন আছে....একদল ঘরে থাকছে আর একদল সবার জন্য বিপদ বাড়াচ্ছে.... আপনি কোন দলে যাবেন সেটা আপনার বিবেচনা.... ৬) প্রস্তুতি ভালোনা তাই পরীক্ষা দিতে চায়না...দয়া করে এই যুক্তি দেবেন না... সবখানেই এমন দুই একজন থাকেই...এদের হিসাবের বাইরে রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ...। ৭)কিছুদিন পরে করোনা থাকবে নাকি থাকবেনা সেটা আমি আপনি কেউ জানিনা... যেটা জানি সেটা হচ্ছে বর্তমানে যা দেখছি এখনই সচেতন না হলে হয়তো নিজেদের পায়ে নিজেরাই কুড়াল মারছি... নিজের স্বার্থ না ভেবে আসেন দেশের স্বার্থ ভাবি...কিছুদিন অপেক্ষা করি... ইন শা আল্লাহ্‌ আমাদের ভাল দিন আবারও আসবে...

মো: হাবিবুর রহমান
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:৫৩

পরীক্ষা পেছানো উচিত

Saidur
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:৫৩

Exam picano hok

Masuma Akter
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:৪৮

Exam obossoi pisiya deya uchit

মুন্না
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:৪৪

পরীক্ষা অবশ্যই পেছানো উচিত।আমরা করোনা এই সংক্রমন বৃদ্ধির সময় জীবনের ঝুকি নিয়ে পরীক্ষা দিতে চাই না।

Md Rakibul Islam
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ৩:৩৫

পরীক্ষা পেছানোর জোর দাবী জানাই।

arif
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:৩৪

পরীক্ষা পেছানো হোক।

আজিনূর
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:৩৪

পরীক্ষা উপলক্ষে কম পক্ষে ৭ লাখ মানুষের সমাগম হবে, বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে পিএসসি’র পরীক্ষা না পিছান হঠকারী সিদ্ধা!

Farid Uddin
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:৩৪

সবার কথা চিন্তা করে আসলেই পরীক্ষা পিছানো উচিত,পরিস্থিতি ভালো হলে পরীক্ষা নিলে মনে হয়না কারো খারাপ হবে

Kurban
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:২৫

Psc should postpone the exam

মহিউদ্দিন
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:২২

পেছানো হোক।

মাসুম রানা
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:২২

পরীক্ষা টা পিছিয়ে দেয়া সকলের জন্যই মঙ্গলজনক হবে।পরীক্ষা পিছিয়ে সব দিক বিবেচনা করে নতুন করে তারিখ নির্ধারণ করা সত্যিই সময়ের দাবি।আপনজন হারানোর চেয়ে বড় কষ্ট তো আর কিছুই হতে পারে না।একটা পরীক্ষার জন্য এই কষ্ট টা মেনে নেওয়া কি সহজ হবে!!!আল্লাহ আমাদের সকলের শুভ বুদ্ধির উদয় ঘটাক

imran
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:২০

৪১ তম বিসিএস পরীক্ষার ডেট পিছানো হোক। করোনার ভ্যাক্সিন দিয়ে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের হলখোলার সাথে সমন্বয় রেখে পরীক্ষার তারিখ দেয়া হোক।

নাহিদ
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:১৮

৪১ তম বিসিএস পরীক্ষা অবশ্যই পেছানো উচিত।

শামীমুল হক
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:১৬

আজ দুদিন আমার বন্ধুর পুরো পরিবারের সদস্যদের করোনা পজিটিভ । 19 তারিখ সে ও যাবে । কারণ যেতে বাধ্য । আমরা দুজন একসাথে চট্টগ্রাম যাওয়ার কথা ছিলো । এখন সে আমার সাথে না গিয়ে অন্য বাসে করে যাবে । তার থেকে কেউ সংক্রমিত হলেও তার কিছু করার নেই । সে যেভাবে চুপিসারে পরীক্ষা দিবে এরকম অনেকেই পরীক্ষা দিবে । পরবর্তীতে এই দায় কে নিবে ?

মোঃ খালিদ হাসান
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:১৫

৪২ তম বিসিএস হয়ে গেছে আমরা জানি, সেখান থেকে আমরা দেখেছি, পরীক্ষা কেন্দ্রে নূন্যতম সতর্কতা থাকলেও পরীক্ষার আগে ও পরে জনসমাগমের ফলে সেই সতর্কতা আর সফল হয়নি, যার ফলাফল সরূপ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী অনেকেই এখন করোনায় আক্রান্ত। কাজেই, যারা করোনার এই ঊর্ধ্বমুখী আচরণের কথা অবগত হয়েও ১৯ তারিখেই ৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা দিতে বা নিতে চাচ্ছেন, তারা আসলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর করোনা নিয়ন্ত্রণের বলিষ্ঠ উদ্যোগগুলোকে প্রশবিদ্ধ করতে চাচ্ছে বলে মনে করি, সরকারের করোনা বিরোধী সাহসী উদ্যোগের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে ভ্যাকসিন কার্যক্রম নিশ্চিত করে তারপর ৪১ বিসিএস পরীক্ষা নেয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।

Nishat
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:১৪

পরীক্ষা দিতে ভয় পাচ্ছি।আমার আত্নীয় রা করোনস আক্রান্ত। পরীক্ষা পেছানোর জোর দাবী জানাই।

মোঃ খালিদ হাসান
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:১৩

৪২ তম বিসিএস হয়ে গেছে আমরা জানি, সেখান থেকে আমরা দেখেছি, পরীক্ষা কেন্দ্রে নূন্যতম সতর্কতা থাকলেও পরীক্ষার আগে ও পরে জনসমাগমের ফলে সেই সতর্কতা আর সফল হয়নি, যার ফলাফল সরূপ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী অনেকেই এখন করোনায় আক্রান্ত। কাজেই, যারা করোনার এই ঊর্ধ্বমুখী আচরণের কথা অবগত হয়েও ১৯ তারিখেই ৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা দিতে বা নিতে চাচ্ছেন, তারা আসলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর করোনা নিয়ন্ত্রণের বলিষ্ঠ উদ্যোগগুলোকে প্রশবিদ্ধ করতে চাচ্ছে বলে মনে করি, সরকারের করোনা বিরোধী সাহসী উদ্যোগের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে ভ্যাকসিন কার্যক্রম নিশ্চিত করে তারপর ৪১ বিসিএস পরীক্ষা নেয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।

Salma akter
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:১২

Exam pichano hok

Faria
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:১১

অবশ্যই পেছানো উচিত।আমি নিজেও আক্রান্ত।এমন অবস্থায় আমার পক্ষে পরীক্ষা দেওয়া অনেক কঠিন হয়ে যাবে।।

মো.আলমগীর
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:০৮

৪১ তম বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার জন্য জোর দাবী জানা। করোনা মহামারী পরিস্থিতি অবনতির কথা চিন্তা করেএবং দেশে শান্তিপুর্ণ অবস্থা বিদ্যমান রাখতে পরীক্ষা পিছিয়েদেয়া ছাড়া এই মূহুর্তেএর চেয়ে ভালো কোনো সিদ্ধান্ত হবে বলে মনে করি ।

SHOHEL
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:০৮

পরীক্ষা অবশ্যই পেছানো উচিত।জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পরীক্ষা না নেওয়ায় অধিক যুক্তি যুক্ত হবে। ২ মাস পেছালে তেমন কেনো ক্ষতি হবেনা কিন্তু পরীক্ষা দিতে গিয়ে অসুস্থ হলে এর দায়ভার কে নিবে?

Nasim ahmed
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:০৬

Xm must be postponed considering current corona situation

Mahfuz Ahamed
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:০৬

জীবনের জন্য চাকুরী, চাকুরীর জন্য জীবন নয়। সর্বসাধারণের স্বাস্থ্য ঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনা করে বিসিএস পরীক্ষা পেছানোর দাবিটি অত্যন্ত যৌক্তিক বলে মনে করছি। প্রায়, ৪ লক্ষাধিক পরীক্ষার্থী, গার্ডিয়ান, পরীক্ষা পরিচালনা কমিটি সহ সংখ্যাটি দ্বিগুণের কাছাকাছি হতে পারে৷ ক্রমবর্ধমান করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা পরিচালনা করাটা রীতিমতো দুঃসাধ্য ব্যাপার হয়ে উঠবে। তাই, সরকার ও পিএসসি বিষয়টি সুবিবেচনায় নিয়ে একটি যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেবেন বলে প্রত্যাশা করি।

Rupan Talukdar
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:০৬

এই সময় এক্সাম হওয়া ঠিক হবে না। টিকা, ,তারপর exam.

Mst. Iirin Parvin
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:০২

পরিস্থিতি বিবেচনায় ৪১ তম বিসিএস পরীক্ষা অবশ্যই স্থগিত করা উচিত বলে মনে করছি!

sujon
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ২:০০

exam pisano hok

সাজিয়া
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৫৮

পরীক্ষা টা পিছিয়ে দেয়া সকলের জন্যই মঙ্গলজনক হবে।পরীক্ষা পিছিয়ে সব দিক বিবেচনা করে নতুন করে তারিখ নির্ধারণ করা সত্যিই সময়ের দাবি।আপনজন হারানোর চেয়ে বড় কষ্ট তো আর কিছুই হতে পারে না।একটা পরীক্ষার জন্য এই কষ্ট টা মেনে নেওয়া কি সহজ হবে!!!আল্লাহ আমাদের সকলের শুভ বুদ্ধির উদয় ঘটাক

মোঃ আশেকুজ্জামান
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৫৭

অনেক অনেক ধন্যবাদ লজিক্যাল বিষয় গুলো এত সুন্দ্রভাভে তুলে ধরার জন্য।

E
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৫০

শুধু পরিক্ষা নয় যেখানে জনসমাগম এর সম্ভবনা সেখানেে ই ব্যাবস্থা নেয়া জরুরি হয়ে পড়েছে

Md. Rasel Chowdhury
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৪৫

পরীক্ষা পেছানো উচিত। অবশ্যই উচিত।

Hriday
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৩৯

Exam picano hok

Jannat
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৩৬

BCS porikkha pechano hok

Romel
১৫ মার্চ ২০২১, সোমবার, ১:৩৩

৪১তম বিসিএস ও বাঙালির চিন্তা চিন্তা-১। অনেকেই করোনার কারণে প্রস্তুতি নিতে পারেনি। আমার প্রস্তুতি ভালো। সুতরাং এই সুযোগে পরীক্ষা হলে ফাকা মাঠে গোল করতে পারবো। যে যাই বলুক ১৯ তারিখ পরীক্ষা চাই। চিন্তা-২। আমার প্রস্তুতি ভালো না। সুতরাং বিসিএস পিছাতে চাই। এই উভয় ধরনের চিন্তা স্বার্থপরায়ণতার বহিঃপ্রকাশ। চিন্তা-৩। করোনার মধ্য হাট-বাজার সবই তো চলছে। শুধু বিসিএস বন্ধ থাকবে কেন? পরীক্ষা হওয়াই উচিত। চিন্তা-৪। সপ্তাহখানেক আগেও করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক ছিল না। কিন্তু সম্প্রতি পরিস্থিতি বেশ খারাপের দিকে এগোচ্ছে। যেই ছেলে বা মেয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে তারা কি পরীক্ষা দিবে না? তাছাড়া, এই অবস্থায় এত জনসমাগম হলে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়বে। দ্বিতীয়ত, অনেকের জন্য থাকার জায়গা ব্যবস্থা করা কষ্টসাধ্য। (সবাইকে শুধু নিজের জায়গা থেকে দেখলেই তো হবে না।) পিএসসির উচিত সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা।

অন্যান্য খবর