× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

ফ্রান্সের নতুন বিল নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে মুসলিমদের প্রতিবাদ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) এপ্রিল ১০, ২০২১, শনিবার, ৫:১১ অপরাহ্ন

সিনেটে পাশ হওয়া একটি বিল নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা করছেন মুসলিমরা। বিল অনুযায়ী, ফ্রান্সে ১৮ বছরের কম বয়স্ক কেউ প্রকাশ্যে হিজাব পরতে পারবে না। এর প্রতিবাদ জানিয়ে অনেক রক্ষণশীল মুসলিম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘#হ্যান্ডসঅবমাইহিজাব’ লিখে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। এ খবর দিয়েছে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল-জাজিরা।
খবরে বলা হয়, সম্প্রতি ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনের তোলা এই বিলের অনুমোদনের পক্ষে ভোট দিয়েছে সিনেট। তবে এখনো এটি আইনে পরিণত হওয়া বাকি। সেই প্রক্রিয়া চলছে। এই বিল আইন হয়ে গেলে ১৮ বছরের কম বয়সী ফরাসি কিশোরীদের জনসম্মুখে হিজাব পরা নিষিদ্ধ করা হবে। এই বিলের মাধ্যমে ফ্রান্সে বিচ্ছিন্নতাবাদ দূর করা হবে বলে জানানো হয়েছে।
ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে ফ্রান্সের লড়াই বিশ্বজুড়ে অনুকরণীয়। সেটি টিকিয়ে রাখতেই নতুন এই বিল।
তবে এই বিলের বিরোধিতা করছেন রক্ষণশীল মুসলিমরা। তারা এই বিলকে ‘ইসলামবিরোধী’ বলে আখ্যায়িত করছেন। এর মাধ্যমে মুসলিমদের একপেশে করা হচ্ছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মন্তব্য করেছেন তারা। মুসলিমদের কেউ কেউ লিখেছেন, ফ্রান্সে ১৫ বছর বয়সীদের যৌনতায় সম্মতি আছে। আর ১৮ বছরের কম বয়সীদের হিজাব পরার অনুমতি নেই। এটি ইসলামবিরোধী আইন। নাজওয়া জেবিয়ান নামে একজন লিখেছেন, কাউকে হিজাব পরানো যেমন অন্যায়, তেমনি কাউকে হিজাব খুলতে বাধ্য করাও অন্যায়। এটি একান্তই তার ব্যক্তিগত ব্যাপার।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
siraj
১১ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ৪:২০

ফ্রান্সে ১৫ বছর বয়সীদের যৌনতায় সম্মতি আছে। আর ১৮ বছরের কম বয়সীদের হিজাব পরার অনুমতি নেই।

Md. Shahid ullah
১০ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৬:০৫

তাদের উপর শয়তান ভর করে। কোন মুসলিম প্রধান দেশ তো অন্য ধর্মের আচার-অনুষ্ঠান, পোশাকে বিধি নিষেধ করে না।

Md. Harun al Rashid
১০ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৪:২৪

An uneffective government fails to prioratise its routine work. The bill contradicts the rule of equality among citizens. Therefore, the Bill is by its nature voidable.

অন্যান্য খবর