× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

শেষ সম্বল হারানোর শঙ্কায় অসহায় পরিবার

বাংলারজমিন

রাজনগর (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
১২ এপ্রিল ২০২১, সোমবার

দরিদ্র ও অসহায় মোমেনা বেগম (৪৫) স্বামীকে নিয়ে থাকেন রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের জাংগালি গ্রামের বাপের বাড়িতে। মোমেনার স্বামী ষাটোর্ধ আইয়ুব আলীর কাজ করার শক্তি-সামর্থ্য নেই। তবুও পরিবার চালাতে প্রতিবেশীদের ছোটখাটো কাজে সহযোগিতার ডাক পেলে বসে থাকেন না। কাজ করে দিলে কেউ দেন ১০০ টাকা আবার কেউ দেন ২০০ টাকা। তাই দিয়ে সংসার চলে বৃদ্ধের। মাথাগোঁজার ঠাঁই বলতে আছে একটি মাত্র কাঁচাঘর। এত অসহায়ত্বের মাঝেও কোনোমতে দিন কাটছিলো মোমেনার। কিন্তু প্রভাবশালী প্রতিবেশীর লোভে মাথাগোঁজার শেষ আশ্রয়টুকু হারানোর শঙ্কায় দিন কাটছে অসহায় এই পরিবারের।
মোমেনা যেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘দুই বিঘা জমি’ কবিতার অসহায় উপেনের আরেক প্রতিচ্ছবি। আসন্ন বর্ষার আগে ঘর মেরামতের কাজ করতে গেলে ওই প্রভাবশালীদের হামলায় মোমেনা ও তার সত্তরোর্ধ ভাইসহ গুরুতর আহত হয়েছেন ৩ জন। স্থানীয় ইউপি সদস্য এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রভাবশালী প্রতিবেশী ছুফান মিয়া ও সোলেমান মিয়া একই বাড়িতে বসবাস করেন। সম্পর্কে তারা মোমেনার চাচাতো ভাই। কৌশলে সহজ-সরল মোমেনাকে বুঝিয়ে মোমেনার ঘরও ভেতরে রেখে নিজেদের বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করেন তারা। প্রথমদিকে মোমেনার পরিবারের সঙ্গে বেশ ভালো আচরণ করলেও আকস্মিকভাবে দুর্ব্যবহার শুরু করেন ছুফান মিয়া ও তার পরিবার। শেষে বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতেও তাদের চাপ দেয়। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ইউপি মেম্বার- চেয়ারম্যান সালিশ মীমাংসার চেষ্টা করলেও মানেনি ছুফান মিয়া। ফলে মাথাগোঁজার শেষ সম্বল নিয়ে পরিবারটি পড়েছে শঙ্কায়। এদিকে বর্ষার আগে ঘর মেরামতের কাজ করতে গেলে বাধার মুখে পড়ে পরিবারটি। ছুফান মিয়ার জাম গাছের ডাল ও পাতা পড়ে মোমেনার ঘরের টিনের চালা নষ্ট হচ্ছে।  রোববার (১১ই এপ্রিল) সকালে ঘর মেরামতের সময় ছুফান মিয়াকে তাদের জাম গাছের ডাল কেটে নিতে বললে হামলা চালায় তারা। এতে আহত হন মোমেনা বেগম, তার ভাই আব্দুল খালিক (৭০) ও ছেলে রমজান আলী (২১)। প্রত্যেকের মাথায় গুরুতর জখম হয়। আহত অবস্থায় রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাদের ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে রাজনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এব্যাপারে ছুফান মিয়া বলেন, জায়গা-জমি নিয়ে কোর্টে মামলা চলছে। সকালে তাদের সঙ্গে হাতাহাতি হয়েছে বলেই তিনি কল কেটে দেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য জিয়াউর রহমান জিয়া বলেন, একাধিকবার বিরোধ মীমাংসার চেষ্টা করলেও ছুফান মিয়া কোনোভাবেই সমাধান মানেনি। বারবার অসহায় পরিবারটির ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে ওই প্রভাবশালীরা। সকালে বাড়ির গেইট লাগিয়ে মোমেনার পরিবারের ওপর তারা হামলা করে বলে খবর পাই। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয়রা তাদের ৩ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল হাসিম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছে। তাৎক্ষণিক কাউকে গিয়ে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। আহতরা চিকিৎসাধীন আছে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর