× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

লালমোহন হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীদের চাপ, মেঝেতে চিকিৎসা সেবা

বাংলারজমিন

লালমোহন (ভোলা) প্রতিনিধি
১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার

 আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে ভোলার লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙে ডায়রিয়া রোগী ভর্তির সংখ্যা বেড়েছে আশঙ্কাজনকভাবে। প্রতিদিন জরুরি বিভাগে সেবা নিতে আসছেন প্রায় ৬০ থেকে ৭০ জন রোগী। এদের মধ্যে  ৫০ থেকে ৫৫ জন রোগীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি হতে হচ্ছে হাসপাতালে। যা গত কয়েক বছরের তুলনায় সর্র্বোচ্চ। এতো রোগীর সেবা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের। ৫০ শয্যার হাসপাতালটিতে বেড সংকটের কারণে অনেক রোগীকে মেঝেতেই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
হাসপাতালে ভর্তি কয়েকজন রোগীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, হঠাৎ করেই তাদের পেট ব্যথা দেখা দেয়। এরপর তারা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসে। পরে ডাক্তার ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়েছে বলে হাসপাতালে ভর্তি দেন তাদের।
লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙের নার্সিং সুপার ভাইজার দিপালী রাণী দত্ত বলেন, এ হাসপাতালে এখনো ১০টি সিনিয়র স্টাফ নার্সের পদ খালি রয়েছে। ফলে এতো রোগীকে সেবা দিতে বর্তমানে যারা কর্মরত রয়েছেন তাদের অনেক কষ্ট করতে হচ্ছে। কর্তৃপক্ষের কাছে দ্রুত খালি পদগুলোতে নার্স পদায়নের দাবি জানাচ্ছি। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মো. মহসিন খান বলেন, আমরা রোগীদের সর্বোচ্চ সেবা দেয়ার চেষ্টা করছি। রোগীদের অনেক চাপ। এখানে অনেক জনবল সংকট রয়েছে। যা পূরণ করলে রোগীদের সেবা দিতে অনেকাংশে আমাদের সুবিধা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর