× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৬ মে ২০২১, রবিবার, ৩ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

মুন্সীগঞ্জে অস্ত্রধারীরা সক্রিয়

বাংলারজমিন

মোজাম্মেল হোসেন সজল, মুন্সীগঞ্জ থেকে
১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার

আবারো সক্রিয় হয়ে উঠেছে মুন্সীগঞ্জের অস্ত্রধারীরা। ঘটছে খুন-খারাবি। বাড়ছে চুরি-ডাকাতির ঘটনা। নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষসহ রাজনৈতিক নেতারাও। নাজুক হয়ে পড়েছে জেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি। সন্ত্রাসীদের হামলার ভয়ে খোদ নিরাপত্তাহীন মুন্সীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাইদুর রহমান ভূঁইয়া। তার ও তার আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে প্রকাশ্যে অস্ত্রধারীদের হামলা, গুলি এবং পরবর্তীতে তার বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু সেই অস্ত্রধারী আটক ও অস্ত্র উদ্ধার না হওয়ায় হুমকিতে আওয়ামী লীগের এই নেতা।
জীবনের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বিগ্ন তিনি। গত ২৪শে মার্চ রাত সাড়ে ১০ টায় মুন্সীগঞ্জ শহরের উত্তর ইসলামপুর এলাকায় সালিশ বৈঠক শেষে সশস্ত্র হামলায় কলেজ ও স্কুলছাত্র ইমন পাঠান, মাহবুব হোসেন সাকিব ও মুন্সীগঞ্জ পৌর নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে পরাজিত প্রার্থী আওলাদ হোসেন মিন্টু প্রধান প্রতিপক্ষের সশস্ত্র হামলায় নিহত হন। এ ঘটনায় কয়েকজনকে আটক করা হলেও হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার হয়নি। এর আগে ৪ঠা মার্চ মুন্সীগঞ্জে সদরের মিরকাদিম পৌরসভায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ফিরোজ মিয়া পরদিন সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। নিহত ফিরোজ মিয়া মিরকাদিম পৌরসভার মিরাপাড়া এলাকার প্রয়াত আব্দুর রব ফকিরের ছেলে। এদিকে, গত ২০শে মার্চ দিবাগত রাত থেকে পরদিন সকাল পর্যন্ত যে কোনো সময়ে মুন্সীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান ভূঁইয়ার শহরের খালইস্ট নিজ বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়। ডাকাতরা নগদ ৭ লাখ টাকা, ১০ ভরি সোনার গহনা এবং ব্যাংকের চেক নিয়ে যায়। ঘটনার দিন তারা বাসায় ছিলেন না। এ ঘটনায় থানায় মামলা হলেও আজও এর কোনো তথ্য উদঘাটন হয়নি। গত বছরের ১৮ই মার্চ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সাইদুর রহমান ও তার স্বজনদের পূর্ব-শিলমন্দির বাড়িতে পূর্ব বিরোধের জেরে একদল চিহ্নিত অস্ত্রধারী প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে এবং গুলি করে হামলা চালায়। এ সময় বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হন এবং অস্ত্রধারীরা বাড়িঘর তছনছ করে। এ মামলার প্রধান ৪ আসামি পূ্‌র্ব-শিলমন্দি গ্রামের নুর মোহাম্মদ, ফিরোজ ভূঁইয়া, রায়হান ও তাইজউদ্দিন মৃধাকে আজও পুলিশ আটক করতে পারেনি। হামলায় ব্যবহৃত অস্ত্রও উদ্ধার হয়নি। তবে, ঘটনার পর গত বছরের ৫ই জুলাই পুলিশ খোকন ভূঁইয়াকে আটক করে একটি বন্দুক উদ্ধার করেছিল। বাকি ৯ আসামি উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে এলাকা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এবং হত্যার হুমকি দিচ্ছে।  
মুন্সীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান ভূঁইয়া বলেন, তিনি ও তার পরিবার এখন জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে চিহ্নিত। হামলা, গুলি, হুমকি এবং বাড়িতে ডাকাতি হওয়ার ঘটনারও কোনো সুরাহা প্রতিকার পাননি তিনি। মামলার অস্ত্রধারীরা প্রকাশ্যে ঘুরে ফিরছে, হুমকি দিচ্ছে তাকে প্রাণনাশের।
মুন্সীগঞ্জ ডিবি’র অফিসার ইনচার্জ মো. মোজাম্মেল হক মামুন বলেন, পূর্ব-শীলমন্দির ঘটনার আসামিদের আটক ও অস্ত্র উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। তাদের আটকের পরই মামলার চার্জশিট প্রদান করা হবে আদালতে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর