× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ
কলকাতা কথকতা

ভোট শুরু হওয়ার পর থেকে বঙ্গে পাঁচ গুণ বেড়েছে করোনা

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা
(১ মাস আগে) এপ্রিল ১৪, ২০২১, বুধবার, ৯:৩৫ পূর্বাহ্ন

কেউ কেউ বলেন গণতন্ত্রের উৎসব। কিন্তু সেই উৎসব যেন আজ মৃত্যু উৎসবে পরিণত। পশ্চিমবঙ্গে ২৭ মার্চ ভোট শুরু হওয়ার দিনে রাজ্যে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৮১২ জন, মৃত্যু মাত্র ২ জন। আর চতুর্থ দফার ভোট শেষ হওয়ার পর আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৪৩ জন। মৃত ১২ জন। ২৭ মার্চ প্রথম দফার ভোটের সময় কলকাতায় আক্রান্ত ছিল ২৯৪ জন। মৃত্যর সংখ্যা শূন্য। ১০ এপ্রিল কলকাতায় সংক্রমিত ৯৯১ জন, মৃত ৪ জন।
কোভিডের প্রথম অভিঘাতে পশ্চিমবঙ্গে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা একদিনে ছিল ৪ হাজার ১৮৭ জন। গত ২২ অক্টোবরের এই রেকর্ড ভেঙে দিল ১০ এপ্রিল। অর্থাৎ চতুর্থ দফা ভোটের দিনটি কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৫১১ জনে পৌঁছে। চিকিৎসকদের অনুমান, এখনও চার দফা ভোট বাকি। কোভিড সংক্রমণের মাত্রা আকাশ ছোঁয়া হবে বাকি চার দফায়। মৃত্যু বাড়বে। কিন্তু তাতে হেলদোল নেই রাজনৈতিক নেতাদের। গণতন্ত্রের উৎসব চলছে যে!  মিটিং,  মিছিল, সমাবেশ চলছে। মঞ্চে নেতারা মাস্ক ছাড়া ভাষণে অগ্নিস্ফুলিঙ্গ ছড়াচ্ছেন, দর্শক জনতা মাস্ক ছাড়া মৃত্যুবীজকে  বরণ করছে। নির্বাচন কমিশন দারুভূত জগন্নাথ। চোপ, ভোট চলছে! মহারাষ্ট্র ১৪ এপ্রিল রাত ৮ থেকে জনতা কারফিউ জারি করলো ১৫ দিনের জন্যে। এই ১৫ দিন পারমিট ছাড়া ঘর থেকে বেরোনো নিষেধ। পশ্চিমবঙ্গে মাইক্রো কন্টেনমেন্ট গড়ার নির্দেশ ছাড়া আর কিছু নেই। গণতন্ত্রের উৎসব চলছে যে! নেতারা জনসভায় ভাষণে মানুষের জন্যে কাজ করার প্রতিশ্রুতির বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন। কিন্তু একবারও ভাবছেন না মানুষ যদিবা না থাকে তাহলে তারা কাজ করবেন কার জন্যে। গণতন্ত্রের উৎসব সব কিছু বিস্মরণের বিবরে ঠেলে দিয়েছে। ভোট বড় বালাই, তাতে মানুষের মৃত্যু হলেও হোক!

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর