× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ৯ মে ২০২১, রবিবার, ২৬ রমজান ১৪৪২ হিঃ

ঘাটাইলে এতিম শিক্ষার্থীদের দায়িত্ব নিলেন কাজী আরজু

বাংলারজমিন

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি
১৪ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

সারা দেশে যখন সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মাদরাসাগুলো বন্ধ, ঠিক সেই সময়ে টাঙ্গাইলে ঘাটাইল উপজেলার মোমিনপুর বাইতুল মাকছাদ এতিমখানা নূরানী ও হাফিজিয়া মাদ্রাসার এতিম শিক্ষার্থীদের খাবারের জন্য প্রতিমাসে আধাটন করে চাল ও আনুসঙ্গিক সকল সুযোগ-সুবিধা সারাজীবন প্রদানের জন্য প্রতিশ্রুতি দিয়ে এতিমদের পাশে দাঁড়িয়ে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আরজু।
জানা যায়, পেশায় ব্যবসায়ী, মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন এই মানুষটি গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থনে প্রথমবারের মতো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জনগণের বিপুল ভোটে বিজয় অর্জন করেন। বিজয়ী হয়ে অল্পদিনের ব্যবধানে ঘাটাইলের সর্বস্তরের মানুষের কাছে একজন মানবিক হৃদয়ের মানুষ হিসাবে নিজেকে মেলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন। একই সাথে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মিয় প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে মানবতার ফেরিওয়ালার খেতাব কুড়াতে সক্ষম হয়েছেন।
সরেজমিনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনাকালীন সময় থেকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মাদরাসা, মসজিদ ও হতদরিদ্র মানুষকে ত্রাণ সহায়তা ও প্রদান করে গোটা উপজেলার মানুষের প্রশংসায় ভাসছেন তিনি। একই সাথে প্রায় ত্রিশটির অধিক কন্যাদায়গ্রস্ত অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের নিজ খরচে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করে দিয়েছেন।
জানা যায়, গত ২রা মার্চ (মঙ্গলবার) মোমিনপুর মাদরাসা পরিদর্শনে যান কাজী আরজু। সেখানে গিয়ে মাদরাসার ছোট ছোট এতিম শিশুদের দুঃখকষ্টের কথা জেনে তাৎক্ষণিক মাদরাসার শিশুদের জন্য দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করেন এবং তিনি নিজেও তাদের সাথে বসে দুপুরের খাবার গ্রহণ করেন। এ সময় তিনি ওই এতিমখানা ও মাদরাসায় আজীবন প্রতিমাসে আধাটন করে চাল এবং সকল প্রকার সাহায্য সহযোগিতা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দেন।
ওই এতিমখানায় কাজী আরজুর দেয়া প্রতিশ্রুত চালের প্রথম চালান গত ৩রা এপ্রিল বুঝে পেয়েছেন বলে  নিশ্চিত করেছেন মাদরাসা কর্তৃপক্ষ।
মোমিনপুর এতিমখানা নূরানী ও হাফিজিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল সাইফুল ইসলাম জানান, আমাদের এতিমখানায় জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতি খুব একটা দেখা যায় না। তবুও স্বপ্রণোদিত হয়ে ভাইস চেয়ারম্যান আমাদের এতিমখানায় এসেছিলেন, সে জন্য আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। তিনি আমাদের এতিমখানার শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিমাসে আধাটন করে চাল ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা দেয়ার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন- এমন উদাহরণ সমাজে সচরাচর পাওয়া যায় না।
আমরা তার ও তার পরিবার সদস্যদের জন্য দোয়া করি, যেন তিনি তার মহতি কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে পারেন।
ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আরজু বলেন, গত নির্বাচনে জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে প্রতিনিধি নির্বাচিত করেছেন। আমি সেই দায়িত্ববোধ থেকে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নানা উন্নয়নমূলক কর্মকা-ে অনুপ্রাণিত হয়ে সম্পূর্ণ নিজস্ব তহবিল থেকে সারা ঘাটাইলের অনেক এতিমখানা, মসজিদ, মাদরাসা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।
তিনি বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর দুই বছরে সম্পূর্ণ নিজ তহবিল থেকে প্রায় এক কোটি টাকা নানান ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে প্রদান করেছি। এরই ধারাবাহিকতায় মোমিনপুর এতিমখানা নূরানী ও হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের খাবারের জন্য আজীবন প্রতিমাসে আধাটন করে চাল দিব ও এতিম এই শিশুদের সকল চাহিদা পূরণের চেষ্টা আমার সাধ্যমতো করে যাব। তিনি আরও বলেন, আমি যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন এইসকল সহযোগিতা চলমান থাকবে। সকলের ভালবাসা নিয়ে সামনের দিনগুলো অতিবাহিত করতে চাই বলে সে সময় প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর