× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

এস্ট্রাজেনেকা টিকার ব্যবহার স্থায়ীভাবে বন্ধ করেছে ডেনমার্ক

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) এপ্রিল ১৫, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:২৮ পূর্বাহ্ন

স্থায়ীভাবে অক্সফোর্ড/এস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহার বন্ধ করে দিয়েছে ডেনমার্ক। এই টিকা  নেয়ার পর অল্প কিছু সংখ্যক মানুষের রক্ত জমাট বাঁধার গুরুত্বর অভিযোগে দেশটি এক মাস আগে এর ব্যবহার স্থগিত করে। অবশেষে বুধবার তারা এই টিকা ব্যবহার একেবারে বন্ধ করে দিয়েছে। এস্ট্রাজেনেকার টিকা স্থায়ীভাবে প্রয়োগ বন্ধ করা প্রথম দেশ এই ডেনমার্ক। এ খবর দিয়েছে অনলাইন নিউ ইয়র্ক টাইমস ও বিবিসি। দেশটির স্বাস্থ্য বিষয়ক কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক সোরেন ব্রোস্ট্রোয়েম বলেছেন, ডেনমার্কে করোনা ভাইরাস মহামারি নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। এ জন্য এই টিকার ব্যবস্থা বন্ধ করতে সক্ষম তারা। তবে তার দেশ অন্য দুটি টিকা ফাইজার এবং মর্ডানার ওপর ভর করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ডেনমার্ক সরকারের এমন ঘোষণা এস্ট্রাজেনেকার টিকার ওপর আরেকটি আঘাত। এই টিকা সংরক্ষণ করা সহজ এবং তুলনামূলকভাবে দাম কম। সারা বিশ্বে এই টিকাকে টিকাদান কর্মসূচির মূলে বলে প্রত্যাশা করা হয়। নরওয়ে, আইসল্যান্ডের সঙ্গে ডেনমার্ক প্রথমে এস্ট্রাজেনেকার টিকার ব্যবস্থার স্থগিত করে ১১ই মার্চ। ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালিসহ ইউরোপিয়ান দেশগুলো গত মাসে এই একই ধারা অনুসরণ করে। এ বিষয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইউরোপিয়ান মেডিসিন্স এজেন্সি এই টিকা ব্যবহার চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেয়। তারা জানিয়ে দিয়েছে বেশির ভাগ মানুষের জন্য ঝুঁকির চেয়ে এই টিকায় সুবিধা বেশি।
গত সপ্তাহে তারা এই টিকার খুবই বিরল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে বলে মন্তব্য করে। তার মধ্যে অন্যতম রক্তে জমাট বাঁধা। এখন পর্যন্ত যেসব দেশ এই টিকা মুলতবি করেছে এবং পরে আবার চালু করেছে তারা বলেছে, তারা যুব শ্রেণিকে এই টিকা দেয়া বন্ধ রাখবে। বৃটেন এরই মধ্যে প্রায় ২ কোটি এস্ট্রাজেনেকার ডোজ প্রয়োগ করেছে। তারাও ৩০ বছরের কম বয়সীদের জন্য বিকল্প টিকা ব্যবহার করবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর