× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ
ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের রিপোর্ট

বাংলাদেশসহ অনেক দেশের যাত্রীদের কাছে করোনার ভুয়া সনদ, হিমশিম খাচ্ছে বিমান সংস্থাগুলো

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) এপ্রিল ১৫, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:৫৩ পূর্বাহ্ন

ভুয়া কোভিড-১৯ সনদধারী যাত্রীদের নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে বিমান সংস্থাগুলো। এমন সনদধারী যাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে বিমান সংস্থাগুলো এক রকম লড়াই করছে এ সমস্যায়। ভুয়া সনদধারী এসব যাত্রীর মধ্যে রয়েছে ফ্রান্স থেকে ব্রাজিল, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তানের নাম। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল। এতে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক সফরের ক্ষেত্রে অনেক দেশে কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফল বাধ্যতামূলক। কিন্তু ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট এসোসিয়েশনের পরিচালনা পরিষদ বলেছে, বহু দেশ থেকে আন্তর্জাতিক সফরের ক্ষেত্রে যাত্রীদের কাছে ভুয়া সনদ পাওয়া যাচ্ছে। বৃটেন, স্পেন, ইন্দোনেশিয়া এবং জিম্বাবুয়েসহ অন্য দেশগুলোতে এমন ভুয়া সনদ বিক্রির দায়ে অসাধু চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তার করেছে বিভিন্ন দেশের সীমান্তর নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ বাহিনী।
আভ্যন্তরীণ ফ্লাইটের চেয়ে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি আঘাত করছে। আভ্যন্তরীণ ফ্লাইটের ক্ষেত্রে বর্তমানে কোনো সনদ প্রয়োজন নেই। কিন্তু আন্তর্জাতিক সফরের ক্ষেত্রে এটা প্রয়োজন। যেসব বিমান সংস্থা আন্তঃসীমান্ত অতিক্রম করে তাদেরকে এর ওপর বেশি নির্ভর করতে হয়। বিশেষ করে ইউরোপে যারা এমন ফ্লাইট পরিচালনা করে সেখানে গ্রীষ্মের আগমনে উদ্বেগ ক্রমশ বাড়ছে। কারণ, এ সময়টাতে বিমান সংস্থাগুলো মনে করে তাদের যা ক্ষতি হওয়ার তা পুষিয়ে নিতে পারবে। এমন অবস্থায় পরিস্থিতি সামাল দেয়ার জন্য  প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম বিমান সংস্থাগুলোর স্টাফদের বা পুলিশের নেই। তাদেরকে নতুন স্বাস্থ্য বিষয়ক সনদ চেক করতে হবে। ওদিকে কিছু দেশে টিকা নেয়ার সনদ চাওয়ায় এ সমস্যা আরো বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
কাজি
১৫ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:১৫

বৈজ্ঞানিক গণ দাবি করে ছিলেন আদা ঘন্টায় কভিড পরীক্ষা কিট আবিষ্কার করেছেন। এই কিট যদি সত্যি কার্যকর হয় তাহলে ফ্লাইট এর আগে যাত্রীদের বাধ্যতামূলক এই পরীক্ষা করলে কেমন হয়। লাগেজ বুকিং দিবার আদা ঘন্টা আগে পরীক্ষা করে শুধু সুস্থ যাত্রীর লাগেজ বুকিং ও বর্ডিং পাস ইস্যু করা হউক। এতে সুস্থ যাত্রী নিরাপদে ভ্রমন করতে পারবে, গন্তব্য দেশ ও নিরাপদ থাকবে। অনেক বিবেকহীন করোনা আক্রান্ত হওয়া সত্ত্বেও নকল সনদ নিয়ে যাত্রা করে অন্য যাত্রীদের জীবন বিপন্ন করে, গন্তব্য দেশে রোগ ছড়ায়।

অন্যান্য খবর