× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩০ রমজান ১৪৪২ হিঃ
কোয়ারেন্টিন শেষে মাঠের মিশন শুরু

শ্রীলঙ্কায় অনুপ্রেরণা ‘শততম’ জয়ের স্মৃতি

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
১৬ এপ্রিল ২০২১, শুক্রবার

করোনাভাইরাস বদলে দিয়েছে দুনিয়ার নিয়ম-নীতি। দারুণভাবে প্রভাব পড়েছে ক্রিকেটেও। ক্রিকেটীয় অভিধানে যুক্ত হয়েছে কোয়ারেন্টিন, বায়ো-বাবোলসহ নানা নতুন শব্দ। হ্যাঁ, এখন বিদেশ সফরে খেলতে গিয়েই মাঠে নেমে পড়ার সুযোগ নেই। ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে থাকতে হয় কঠোর রুম কোয়ারেন্টিনে। শ্রীলঙ্কা সফরেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তবে নিউজিল্যান্ডের মতো দুই সপ্তাহ নয়, লঙ্কায় মাত্র ৩ দিনেই মুক্তি মিলেছে। গতকাল  কলম্বোর পার্শ্ববর্তী নিগোম্বো মাঠে অনুশীলন শুরু করেছে মুমিনুল হক সৌরভের দল।
১৭ই এপ্রিল থেকে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ। এরপরই ঘোষণা হবে টেস্ট সিরিজের জন্য চূড়ান্ত দল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরে-বাইরে ২০ টেস্ট খেলেছে টাইগাররা। সেখানে মাত্র একটি জয়, সেটি তাদেরই মাটিতে ২০১৭ তে নিজেদের শততম টেস্ট ম্যাচে। বলতে গেলে ৫ বছর আগে  সেই জয়ই টাইগারদের অনুপ্রেরণা। শ্রীলঙ্কায় ১২ টেস্ট খেলে আছে একটি ড্র, তাও ২০১৩ তে গলে। বাকি ১০টিতে মিলেছে হার। এবার কতটা প্রস্তুত বাংলাদেশ! দলের তরুণ ওপেনার সাইফ হাসান বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের সময়ও খুব ভালো প্রস্তুতি ছিল আমাদের। আমরা যারা বাইরে ছিলাম, খুব ভালো প্র্যাকটিস চলছিল। এখানে আসার আগে এনসিএলটাও খুব ভালো একটা প্রস্ততি ছিল। সো ওভারল খুব ভালো একটা প্রিপারেশন আছে। হোপফুলি ঐ পারফরম্যান্সগুলো এখানে কাজে লাগবে।’
৩ দিনের  কোয়ারেন্টিন শেষে অনুশীলন শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। এরই মধ্যে তাদের দিতে হয়েছে করোনা টেস্টও। সব মিলিয়ে দলের অবস্থা এখন কেমন তা জানিয়েছেন লঙ্কা সফরে থাকা টাইগারদের লজিস্টিক ম্যানেজার শাহরিয়ার নাফীস। তিনি বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ আমাদের সবার কোভিড-১৯ টেস্টের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। অনুশীলন শুরু করেছে দল। সবাই ভালো আছে। এখানে তিন দিনের কোয়ারেন্টিন ছিল। তেমন কোন সমস্যা হয়নি ক্রিকেটারদের। কারণ, তারা এই কোয়ারেন্টিন, বায়ো-বাবোল এসবের সঙ্গে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছে।’
২১ এপ্রিল শুরু হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। মূলত এটি আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ। যদিও এই সিরিজকে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে না। কারণ, এরই মধ্যে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুই ফাইনালিস্ট হিসেবে ভরত ও নিউজিল্যান্ড নিশ্চিত হয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত এক পয়েন্টও অর্জন করতে পারেনি। ভারত ও পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হেরেছে ৫ ম্যাচ। তবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের হিসেবে এই সিরিজের গুরুত্ব কম হলেও টাইগারদের জন্য ভিন্ন বিষয়। টেস্ট হারতে হারতে দেয়ালে পিঠ ঠেকেছে নয়া টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের  দলের। সাইফ বলেন, ‘প্র্যাকটিস ম্যাচটা অনেক ইম্পরট্যান্ট। কারণ, এটাই আমাদের সুযোগ এখানের ওয়েদারের সঙ্গে মানিয়ে নেয়া আর উইকেট কী রকম হতে পারে, এ ম্যাচটা খেলে আমাদের বুঝতে হবে। প্রত্যেকটা প্র্যাকটিস সেশন আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।’
সাইফ হাসানের জাতীয় দলের হয়ে মাত্র ২ টেস্ট খেলার সুযোগ হয়েছে। প্রতিভাবান এই ওপেনার অবশ্য নিজের যোগ্যতার প্রমাণ রাখতে ব্যর্থ। প্রথম দুই ম্যাচে সুযোগ পেয়ে তার ব্যাট থেকে এসেছে মাত্র ২৪ রান। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে এই তরুণ দারুণ পারফরমার। তাই এবারও তিনি আত্মবিশ্বাসী। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই! রান করলে অনেক কনফিডেন্স থাকে আর আমার মনে হয় ব্যাটিং প্রিপারেশন আর ফিটনেস ওয়াইজ খুব ভালো ছিল। যদিও ম্যাচ খেলি নাই। ন্যাশনাল টিমের সঙ্গে যতদিন ছিলাম, ভালো প্র্যাকটিস সেশন ছিল ব্যাটিং ওয়াইজ, ফিটনেস ওয়াইজ। অল ওভার আমার মনে হয়, প্রিপারেশন খুব ভালো। কনফিডেন্সও খুব ভালো আছে। যদি সুযোগ পাই কাজে লাগানোর চেষ্টা করবো।’
টেস্টে জাতীয় দলের ব্যর্থতার অন্যতম কারণ, ব্যাটসম্যানদের হতাশ করা পারফরম্যান্স। তবে সাইফ বলেন, তারা এবার প্রস্তুত। বলেন, ‘ব্যাটসম্যানরা যারাই সুযোগ পাবে, যারাই সেট হবে এখানে ইনিংস বড় করতে হবে। তাহলে একটা স্কোর যদি পাই, ইনশাআল্লাহ্‌? টিমের জন্যই ভালো হবে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর