× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩০ রমজান ১৪৪২ হিঃ

উত্তরায় বাসার দরজা ভেঙে তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক
(৩ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ১৭, ২০২১, শনিবার, ১:৩৩ অপরাহ্ন

উত্তরায় রাজউকের অ্যাপার্টমেন্টের বাসা থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।  

বাসায় একা থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। আজ সকালে পুলিশ বাসার দরজা ভেঙে তার মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। এখনও মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি।

রাজউকের উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক  মো. মোজাফফর আহমেদ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও আঞ্চলিক পরিকল্পনা বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক শফিক উর রহমান  বলেন, ‘উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পের নিজ ফ্ল্যাটে অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। আমরা একই গেটের পাশাপাশি ভবনে থাকি। আজ সকালে ভেতর থেকে তার ফ্ল্যাটের দরজা বন্ধ পেয়ে একাধিকবার খোলার চেষ্টার পর পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পরে পুলিশ এসে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

‘তার মৃত্যুর কারণ এখনো জানা যায়নি। তবে, মাথা ঘুরে পড়ে গেলে যেমন হয়, আমরা তেমনই দেখেছি।
ঘটনার সময় তার বাসায় আর কেউ ছিল না। তার স্ত্রী ও এক মেয়ে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। ’

তুরাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদি হাসান বলেন, ‘খবর পেয়ে ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে সব ধরনের তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করছে পুলিশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
tahir
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ৬:৩৬

Innalillahi wainnah ilaihi rajiun. I convey my heartfelt condolences to this great and honest man. National will remember you for long time for your truth and honesty.

Saif
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৪:৪৯

Innahlillahayrazeon.

jalal
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৪:৩২

হয়ত স্বাভাবিক মৃত্যু বা হার্ট এ্যাটাক হয়ে মারা গেছেন!কিছু লোক আছেন সরকারকে পুন্দাইবার লাগিয়া বলে,সরকার মাইরা ফালাইছে,দুঃখিত!বাজে ভাষা ব্যাবহারের জন!

জেমস বন্ড
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৪:১৫

উনাকে হত্যা করা হয়েছে, বাংলাদেশের উপর আসন্ন এক মহা-বিপদের ব্যপারে উনি সচেতনতা তৈরির কাজ করছিলেন, উনি শহীদ হয়েছেন

Md. Shahid ullah
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৪:০৬

মৃত্যুকালে নিশ্চয়ই এক গ্লাস পানির পিপাসা ছিল। কিন্তু পাশে দুরে থাক; আশ পাশেও নেই স্বজন। কমার্সিয়াল এডুকেডেট কী পাশে থাকে কখনো ”সময় নষ্ট” করার জন্য?

Tasmin
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ২:৫০

সত্য বলার মানুষগুলোই একা একা চলে যাচ্ছে।

Md. Abbas Uddin
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৩:৩৯

ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাহি রাজিউন ! ধর্মহীনতা ও ধর্মান্দতা দুটোই ক্ষতিকর। ধর্ম পালন বা ধর্ম চর্চা মানুষের মনকে সতেজ রাখে এবং সৃষ্টিকর্তার আনুগত্য করে। আর ধর্মহীনতা সৃষ্টিকর্তাকে অস্বীকার করে এবং মানুষের আত্মাকে শুকিয়ে রাখে। অন্যদিকে ধর্মান্দতা অনেক ক্ষেত্রে বাস্তুবতাকে মানতে চায় না। ৫ ওয়াক্ত নামাজ প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরজ করা হয়েছে। তাই নামাজের সাথে মহামারীতে সতর্কতার কোন সম্পর্ক নেই। ৫ ওয়াক্ত নামাজের ওজুর সময়ে ভাইরাস-জীবানু অনেকাংশে বিধৌত হয়ে চলে যায়। কিন্তু ১০০% বিপদমুক্ত থাকা যায় না। তাই মসজিদের বাহিরে যেমন মাস্ক পরা জরূরী তেমনি মসজিদের ভিতরও মাস্ক পরা জরূরী। করনায় এই বিপদের মুহূর্তে মসজিদে গেলে দেখা যায় অনেকে হাঁচি-কাশি দিচ্ছেন কিন্তু তাদের মুখে কোন মাস্ক নেই। এইজন্য এখন বাসায় নামাজ পড়তে বাধ্য হচ্ছি (আল্লাহ মাফ করুন)। যাহারা মাস্ক পরে মসজিদে যান তাহারাই প্রকৃত জ্ঞানী ও সচেতন। যাহারা মাস্ক ছাড়া মসজিদে জান আল্লাহ তাদেরকে বাস্তবতা বুঝার তৌফিক দান করুন।

Md. Abbas Uddin
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৩:৩৭

ধর্মহীনতা ও ধর্মান্দতা দুটোই ক্ষতিকর। ধর্ম পালন বা ধর্ম চর্চা মানুষের মনকে সতেজ রাখে এবং সৃষ্টিকর্তার আনুগত্য করে। আর ধর্মহীনতা সৃষ্টিকর্তাকে অস্বীকার করে এবং মানুষের আত্মাকে শুকিয়ে রাখে। অন্যদিকে ধর্মান্দতা অনেক ক্ষেত্রে বাস্তুবতাকে মানতে চায় না। ৫ ওয়াক্ত নামাজ প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরজ করা হয়েছে। তাই নামাজের সাথে মহামারীতে সতর্কতার কোন সম্পর্ক নেই। ৫ ওয়াক্ত নামাজের ওজুর সময়ে ভাইরাস-জীবানু অনেকাংশে বিধৌত হয়ে চলে যায়। কিন্তু ১০০% বিপদমুক্ত থাকা যায় না। তাই মসজিদের বাহিরে যেমন মাস্ক পরা জরূরী তেমনি মসজিদের ভিতরও মাস্ক পরা জরূরী। করনায় এই বিপদের মুহূর্তে মসজিদে গেলে দেখা যায় অনেকে হাঁচি-কাশি দিচ্ছেন কিন্তু তাদের মুখে কোন মাস্ক নেই। এইজন্য এখন বাসায় নামাজ পড়তে বাধ্য হচ্ছি (আল্লাহ মাফ করুন)। যাহারা মাস্ক পরে মসজিদে যান তাহারাই প্রকৃত জ্ঞানী ও সচেতন। যাহারা মাস্ক ছাড়া মসজিদে জান আল্লাহ তাদেরকে বাস্তবতা বুঝার তৌফিক দান করুন।

Md. Jahangir Alam
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৩:২৬

ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না এলাইহি রাজিউন।

ফজলু
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৩:১৮

ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না এলাইহি রাজিউন।

কাজি
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ২:১০

انا الله و انا اليه راجعون

Mahmud
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ২:১০

Inna lillahi wa Innailahi rajiun. Seems it is a natural death, may be from heart attack. Some people in Bangladesh have a bad habit of blaming govt for everything , every death, even normal death at home.

Dr.Md.Kabiruzzaman
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ৩:০০

ঘটনার সময় তার বাসায় আর কেউ ছিল না। তার স্ত্রী ও এক মেয়ে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। ’

Mohammad Nurun Nobi
১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ২:২০

Let the state security of such intellectuals of Bangladesh be ensured. We will lose many more in this way if we neglect this case. This is a reflection of aggression.

১৭ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, ২:১৭

লাশেরে মিছিলতো যুগে যগেই ছিল, তখনকী লক ডউন করে মহামারি থামাতে পেরেছে, যারা নামাজ রোজা করে তারাতো দিনে পাঁচবার ওযু করে নিজেদেরকে জীবানুমুক্ত করে তবে কেন মসজিদে বিধি নিষেধ?যুলুম কত দিন থাকে তাই দেখার বিষয়?

অন্যান্য খবর