× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ৯ মে ২০২১, রবিবার, ২৬ রমজান ১৪৪২ হিঃ

বাঁশখালী বিদ্যুৎকেন্দ্রে সংঘর্ষের ঘটনায় ২ মামলা, আসামি ৩৫০০

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক
(৩ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ১৮, ২০২১, রবিবার, ১২:২৯ অপরাহ্ন

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে নির্মাণাধীন কয়লাবিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। দুটি মামলায় আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতপরিচয় সাড়ে তিন হাজারজনকে। গতকাল শনিবার রাতে বাঁশখালী থানায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দুটি দায়ের করেন। গতকাল সকালে বাঁশখালীর গন্ডামারায় সংঘর্ষের সময় পুলিশের গুলিতে পাঁচ শ্রমিক নিহত হন। আহত হন তিন পুলিশসহ অন্তত ৩০ জন। ৫ তারিখের মধ্যে বেতন পরিশোধ, পবিত্র রমজান মাসে কর্মঘণ্টা ১০ ঘণ্টা থেকে কমিয়ে ৮ ঘণ্টা, শুক্রবার ৮ ঘণ্টা থেকে কমিয়ে ৪ ঘণ্টা করাসহ নানা দাবিতে বিক্ষোভ করেন বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণকাজের শ্রমিকেরা। গতকাল বিক্ষোভের একপর্যায়ে পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন কিছু শ্রমিক। তখনই পুলিশ গুলি ছুড়তে থাকে।

গতকাল ঘটনার তদন্তে পুলিশের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চার সদস্যের পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়।
তাদের সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। নিহত শ্রমিকদের প্রত্যেককে ৩ লাখ এবং আহত ব্যক্তিদের ৫০ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণের ঘোষণা দেয় এস আলম কর্তৃপক্ষ।

বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল কবির গণমাধ্যমকে জানান, পুলিশের ওপর হামলা, কাজে বাধাদানের ঘটনায় বাঁশখালী থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান বাদী হয়ে গতকাল রাতে মামলা করেছেন। মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় দুই হাজার থেকে আড়াই হাজারজনকে আসামি করা হয়। এদিকে মামলা দায়েরের পর গ্রেপ্তার আতঙ্কে রয়েছেন শ্রমিক ও স্থানীয় বাসিন্দারা। বন্ধ রয়েছে বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণকাজ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Faruque Ahmed
১৯ এপ্রিল ২০২১, সোমবার, ৯:১৭

৫ তারিখের মধ্যে বেতন পরিশোধ, পবিত্র রমজান মাসে কর্মঘণ্টা ১০ ঘণ্টা থেকে কমিয়ে ৮ ঘণ্টা, শুক্রবার ৮ ঘণ্টা থেকে কমিয়ে ৪ ঘণ্টা করাসহ নানা দাবিতে বিক্ষোভ করেন বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণকাজের শ্রমিকেরা। গতকাল বিক্ষোভের একপর্যায়ে পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন কিছু শ্রমিক। তখনই পুলিশ গুলি ছুড়তে থাকে। গুলি করে মারল পুলিশ মামলা ও করল পুলিশ আসামি হয়েছে তারা মার খেয়েছে যারা হায়রে স্বাধীন রাষ্ট্র! এই দেশের নেতারা ভারত সরকারের অন্তর্ভুক্ত (It seemed), আমরা কীভাবে নিজেকে স্বাধীন বিবেচনা করতে পারি। কেবল পাকী থেকে ভারতে পরিবর্তন.

Mofizur Rahman
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ৯:২৭

৯০% মুস‌লিম‌দের দেশে বেতন ও ইফতা‌রের সময় ছু‌টির দাবী ক‌রে মর‌তে হয়!!। বাঁশখালির শ্রমিকরা রোজা রেখে যথা সময়ে ইফতার করতে চেয়েছিল। প্রতিদিনের মজুরি যথা সময়ে চেয়েছিল। তাই রাষ্ট্রের পুলিশ তাদের মৃত্যু উপহার দিল! চট্রগ্রামের বাশখালীতে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষ হয়েছে, এটা সরাসরি পুলিশ কর্তৃক শ্রমিকদের উপর সন্ত্রাসী আক্রমণ! সশস্ত্র আর নিরস্ত্রের মাঝে কোন সংঘর্ষ হতে পারেনা। বাঁশখালীতে শ্রমিকেরা ছিল নিরস্ত্র, তাদেরকে হত্যা করা হয়েছে।এর দায়ভার অবশ্যই পুলিশ এবং সরকারকে নিতে হবে।।যে দেশে নির্বিচারে গুলি করে মানুষ হত্যা করা হয় , সে দেশে মানুষ বাঁচানোর জন্য লকডাউন হাস্যকর মনে হয়। এটা লকডাউন নয়, আসলে এটা লকআপ ইসলামি স্কলারদের গ্রেপ্তার, মামলা, গুম, হত্যা, জেল ও জুলুম করে মুসলমানের উপর অত্যাচার। ক্ষমতা চলে যাওয়ার ভয়ে মিডিয়া আর প্রশাসনকে পুজি করে সরকারের জনগণকে বন্দী রাখার কৌশল মাত্র। আর কত দিন এভাবে জনগনরে গনতান্ত্রিক অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলবেন?? জনগনের পেটে লাথি দিয়ে রুটি রুজির ওপর আঘাত করে লক ডাউন নামের প্রহশন দেখাবেন??

jalal
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ৬:৪১

গুলি করে মারল পুলিশ মামলা ও করল পুলিশ আসামি হয়েছে তারা মার খেয়েছে যারা হায়রে স্বাধীন রাষ্ট্র! ,আল্লাহ তুমি সাহায্য করো...

Md. Shahid ullah
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ৩:৫৬

জুলুমের শেষ আছে। গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়ে কোন খুনি বাহিনী এ বিশ্বে সাময়িক তান্ডব চালালেও স্থায়ী হতে পারেনি। তাদের পতন খুবই নির্মম হয়।

salim khan
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ১:৫৯

পুলিশ গুলি করে মারবে আবার উল্টো মামলা করবে। হায়রে স্বাধীন রাষ্ট্র!!! এদেশে স্বাধীনতার স্বাদ ভোগ করতে হলে, আবার দেশটাকে দালালমুক্ত করতে হবে। যেমনিভাবে রাজাকারদের কারণে জনগণ শান্তি পায় নাই, তেমনিভাবে দালালদের কারণে ও আজ দেশের মানুষ জিম্মি হয়ে আছে। এখন সময় এসেছে দালালদের হাত থেকে দেশকে স্বাধীন করার। তবেই জনগণের দেশে জনগণ মালিক হয়ে থাকতে পারবে।

Sujon
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ১২:৪৪

গুলি করে মারল পুলিশ মামলা করল পুলিশ আল্লাহ তুমি সাহায্য করো

MOHAMMAD SHAHIDUR RA
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ১২:৫৪

পুলিশর অধিক বাবা বাারি পুলিশের বিরুদ্বে ব্যবস্তা নেয়া দরকার

Shobuj Chowdhury
১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ১২:৪৩

An authoritarian regime anywhere is a threat to justice and democracy everywhere.

অন্যান্য খবর