× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩০ রমজান ১৪৪২ হিঃ

শেরপুরে সালিশি বৈঠকে সংঘর্ষ আহত ১০

বাংলারজমিন

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
১৯ এপ্রিল ২০২১, সোমবার

বগুড়ার শেরপুরে সালিশ বৈঠকে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বসতবাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালানো হয়। হামলা ও সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজনকে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং বাকিদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় রোববার সকাল ১১টায় থানায় দুইপক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছে। শনিবার সন্ধ্যায় শেরপুর উপজেলার ২নং গাড়ীদহ ইউনিয়নের মহিপুর বাড়ইপাড়া গ্রামে এ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়।
সংঘর্ষে আহতরা হলেন- পৌর শহরের হাজীপুর এলাকার হেলাল উদ্দিন (৩৫), নাহিদ হাসান (২৫), জাকারিয়া (২৬), শিপন (২৭), শেরপুর উপজেলার গাড়ীদহ ইউনিয়নের মহিপুর বাড়ইপাড়া গ্রামের রাশেদা বেগম (৪০) এবং তার ছেলে রাশেদ আহম্মেদ (১৭)। জানা যায়, করতোয়া নদীতে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে গত ১৪ই এপ্রিল দুপুরে পৌর শহরের হাজীপুর এলাকার মনছের আলীর সঙ্গে উপজেলার গাড়ীদহ ইউনিয়নের মহিপুর বাড়ইপাড়া গ্রামের কামরুল ইসলাম ও তার ছেলের বাকবিতণ্ডা এবং ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে ঘটনাটি আপস-মীমাংসার জন্য শনিবার সন্ধ্যায় মহিপুর বাড়ইপাড়া গ্রামে সালিশ বৈঠক বসে।
বৈঠকের একপর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে তুমুল হট্টগোল শুরু হয়। পরে তা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে রূপ নেয়।
এদিকে, মহিপুর বাড়ইপাড়া গ্রামের কামরুল ইসলাম ডিনারের অভিযোগ, আট থেকে দশটি মোটরসাইকেলযোগে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা তার বসতবাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তার স্ত্রী, ছেলে ও আত্মীয়-স্বজনকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করে। এমনকি শয়ন কক্ষের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর করে আলমারির মধ্যে রাখা গরু বিক্রির এক লাখ ৭০ হাজার টাকা লুটে নেয়।
অপরদিকে প্রতিপক্ষ মনছের আলীর দাবি, আপস-মীমাংসার কথা বলে তাদেরকে সেখানে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর পূর্বপরিকল্পিতভাবে হামলা চালানো হয়। হেলাল উদ্দিন বর্তমানে বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। এ ছাড়াও তার একটি মোটরসাইকেল লুট করা হয়েছে। শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ওই ঘটনায় উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর