× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

নাভালনি মারা গেলে রাশিয়াকে কঠোর পরিণতির হুঁশিয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৩ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ১৯, ২০২১, সোমবার, ১২:০৭ অপরাহ্ন

বিরোধী দলীয় নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি জেলে মারা গেছে রাশিয়াকে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। চিকিৎসকদের উদ্ধৃতি দিয়ে রোববার খবরে বলা হয়, শারীরিক অসুস্থতার জন্য যেকোনো সময় জেলে মারা যেতে পারেন নাভালনি। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর এই সমালোচকের এমন খবরে রাশিয়াকে ওই সতর্কতা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ খবর দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের অনলাইন বার্তা সংস্থা ইউনাইটেড প্রেস ইন্টারন্যাশনাল (ইউপিআই)। এর প্রেক্ষাপটে রোববার যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান সিএনএনকে বলেছেন, নাভালনির এই অবস্থার জন্য দায়ী রাশিয়া। তিনি মারা গেলে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে জবাবদিহি করতে হবে রাশিয়াকে। তার ভাষায়, আমাদের মধ্যে যোগাযোগ হয়েছে যে, মিস্টার নাভালনি যদি জেলে মারা যান তাহলে তার পরিণতি ভোগ করতে হবে রাশিয়াকে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান পুনরুল্লেখ করেছেন।
এতে বলা হয়েছে, নাভালনির সুস্থতার জন্য দায়বদ্ধ রাশিয়ান কর্তৃপক্ষ। তাই আমরা তার জন্য প্রয়োজনে অত্যাবশ্যকীয় স্বাস্থ্য সুবিধা অবিলম্বে নিশ্চিত করার আহ্বান জানাই। অন্যদিকে নাভালনির বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে তাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত আখ্যায়িত করেছে ইউরোপিয়ান কাউন্সিল। তারা বলেছে, নাভালনির অবনতিশীল স্বাস্থ্য বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবে সোমবার। এক বিৃতিতে তারা বলেছে, নাভালনি আস্থা রাখেন এমন মেডিকেল পেশাদারদের সেবা পাওয়ার জন্য অবিলম্বে তাকে অনুমতি দেয়ার জন্য আমরা রাশিয়ান কর্তৃপক্ষে সঙ্গে কথা বলেছি। তার নিরাপত্তা, জেলে তার স্বাস্থ্যগত বিষয়ের জন্য দায়বদ্ধ রাশিয়ান কর্তৃপক্ষ।

ওদিকে নাভালনির মিত্ররা রাশিয়ার বিভিন্ন শহরে আগামী বুধবার সন্ধ্যায় বিক্ষোভ র‌্যালির ঘোষণা দিয়েছে। গত আগস্টে অ্যালেক্সি নাভালনিকে নোভোচক স্নায়ুগ্যাস প্রয়োগ করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মার্চ মাসে রাশিয়া সরকারের ৭ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অন্যদিকে অক্টোবরে ৬ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগে প্রায় তিন ডজন রাশিয়ান কর্মকর্তা ও সংস্থার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। জবাবে ক্রেমলিন যুক্তরাষ্ট্রের ১০ কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর