× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১১ মে ২০২১, মঙ্গলবার, ২৮ রমজান ১৪৪২ হিঃ

ঈদের আগে লকডাউন শিথিলের চিন্তাভাবনা করছে সরকার

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার

জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে সরকার ঈদের আগে লকডাউন শিথিলের চিন্তাভাবনা করছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে সরকার ঈদের আগে লকডাউন শিথিলেরও চিন্তাভাবনা করছে। ঈদের সময় ঘরমুখো মানুষের যাতায়াতের জন্য লকডাউন শিথিল হতে পারে। গতকাল তার সরকারি বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ঈদের আগে লকডাউন শিথিল করা হবে জীবন ও জীবিকার এবং ঈদ পূর্ববর্তী কেনাকাটার জন্য। মানুষের ঈদের সময় ঘরমুখো যাতায়াতের জন্য লকডাউন শিথিল হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এই চিন্তাভাবনা করছেন। সবাইকে ধৈর্য্য ধরতে হবে, করোনা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে সেটা কেউ জানে না।
বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে সরকার সারা দেশে আরো এক সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানোর সক্রিয় চিন্তা করছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় এখন সারা দেশে লকডাউন চলছে। তবে ঈদের আগে লকডাউন শিথিল করা হবে। সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে অনেকেই জীবিকার কঠিন লড়াইয়ের মধ্যে পড়ে রয়েছেন। বিশেষ করে খেটে খাওয়া মানুষ, তারা কষ্ট পাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী পরিবহন শ্রমিকসহ বেকার কর্মহীন শ্রমিকদের আর্থিক সহযোগিতা দেয়ার চিন্তা-ভাবনা করছেন এবং সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ভাসমান মানুষদেরও ত্রাণ দেয়া হবে। জেলা প্রশাসন এসব দেখাশোনা করবে। পাশাপাশি আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোকে এই দুর্যোগের সময় মানুষের পাশে থাকতে বলা হয়েছে। ওবায়দুল কাদের বলেন, বর্তমানে করোনা মোকাবিলায় আমাদের আত্মতৃপ্তির কোনো কারণ নেই। যেকোনো সময় এই সংক্রমণ আরো বাড়তে পারে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনা সংক্রমণের নতুন নতুন ভয়ঙ্কর মাত্রা যুক্ত হচ্ছে। আমাদের সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। এর আগে ওবায়দুল কাদের সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের রংপুর জোনের চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হন। রংপুর সড়ক ও জনপথ ভবনের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ঢাকা থেকে যুক্ত ছিলেন। সড়ক ও জনপদের প্রকৌশলীসহ বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম এগিয়ে নিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে নির্দেশনা দিয়েছেন, তা আমাদের মেনে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, নিম্নমানের কাজ হলে ঠিকাদার, ইঞ্জিনিয়ার সহ সংশ্লিষ্টদের এর দায়-দায়িত্ব নিতে হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। জনগণের কষ্টার্জিত অর্থ দিয়ে দেশের উন্নয়ন হচ্ছে। এই উন্নয়ন টেকসই হতে হবে। এদিকে বাংলাদেশ কৃষক লীগের ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ওবায়দুল কাদের গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। এ সময় তিনি বলেন, কৃষি ও কৃষকের কল্যাণে যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে খাদ্য ঘাটতির বাংলাদেশকে খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশে পরিণত করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওবায়দুল কাদের কৃষক ও কৃষাণী সমাজের পাশে থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে কাজ করার জন্য কৃষক লীগের সকল নেতাকর্মীর প্রতি আহ্বান জানান। ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের অভিঘাত শুরু হয়েছে। এ সময় কৃষক লীগের অনেক দায়িত্ব রয়েছে। আমাদের অন্যান্য সহযোগী সংগঠনেরও দায়িত্ব রয়েছে। বিশেষ করে ধানকাটার বিষয়টিতে গতবার কৃষক লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ অংশ নিয়েছিল। ঠিক এবারও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চাইছেন, আমাদের কৃষক লীগ ধান কাটার মৌসুমে কৃষকদের পাশে দাঁড়াবে। ধান কেটে প্রয়োজনে কৃষকদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেবে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গতকাল কথা হলে তিনি এ নির্দেশনা দিয়েছেন বলে ওবায়দুল কাদের উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, আমি সবাইকে এ ব্যাপারে নেত্রীর নির্দেশনা জানিয়ে দিচ্ছি। এ সময় ওবায়দুল কাদের কৃষকদের কল্যাণে কৃষক লীগের সবাইকে নিজেদের জীবন উৎসর্গ করার আহ্বান জানান। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, কৃষকদের ধান কাটার ব্যাপারে নেত্রীর নির্দেশনা রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর