× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ৯ মে ২০২১, রবিবার, ২৬ রমজান ১৪৪২ হিঃ

চিকিৎসক-পুলিশের পাল্টাপাল্টি বিবৃতি কাম্য নয়: হাইকোর্ট

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক
(২ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ২০, ২০২১, মঙ্গলবার, ১:১৪ অপরাহ্ন

লকডাউনে মুভমেন্ট পাস নিয়ে চিকিৎসক-পুলিশের বাকবিতণ্ডার ঘটনায় দুই পেশাজীবী সংগঠনের পাল্টাপাল্টি বিবৃতি কাম্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। আজ মঙ্গলবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।
আদালতে আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ চিকিৎসক-পুলিশের বাকবিতণ্ডার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পেশাজীবী সংগঠনগুলোর পাল্টাপাল্টি বিবৃতি নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদন তুলে ধরেন। আদালত ইউনুছ আলী আকন্দকে উদ্দেশ্য করে বলেন, গতকাল আপনি এ বিষয় নিয়ে এসেছিলেন। আপনি তো সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি নন। আপনি কেন এসেছেন। এ পর্যায়ে ইউনুছ আলী আকন্দ বলেন, আমার মেয়েও এক চিকিৎসক। আত্মীয়-স্বজনের মধ্যেও চিকিৎসক রয়েছেন।
আদালত চিকিৎসক-পুলিশের বাকবিতণ্ডার প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত। আবার ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাল্টাপাল্টি বিবৃতি দেওয়া সমীচীন হয়নি।
দুই পেশাজীবী সংগঠনের পাল্টাপাল্টি বিবৃতি কাম্য নয়।
 
উল্লেখ্য, গত রোববার রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে লকডাউনে মুভমেন্ট পাস নিয়ে চিকিৎসক-পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটের বাকবিতণ্ডার একটি ভিডিও মানবজমিনের ফেসবুক পেজে আপ করা হয়। মুহূর্তেই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে পড়ে। ঘটনাটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তৈরি হয় ব্যাপক প্রতিক্রিয়া। এ ঘটনায় গতকাল দুই পেশাজীবী সংগঠন পাল্টাপাল্টি বিবৃতি দেয়। পুলিশের বিরুদ্ধে হেনস্তা ও হয়রানির অভিযোগ তুলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান চিকিৎসকদের সংগঠন বিএমএ। অন্যদিকে পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন সংশ্লিষ্ট ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ তুলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Khalilur Rahman
২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার, ১:৪১

Thank you Mr.Enam Khan for your comments. You have pointed clearly out the matter. In addition, That was a Mobile Court & Magistrate was as a judge. He failed to control Police Office & the situation. Police can not shout in presence of the Judge. The Magistrate also shouted which amount to he is inefficient & incapable.

ranju
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ৫:০০

গরিব মারা, হুজুর মারার লকডাউন নাটকের চেয়ে পুলিশ-ডাক্তার নাটকটি খুবই ভালো লেগেছে। ভবিষ্যতে এমন আরও সুন্দর সুন্দর নাটক চাই।

Enam Khan
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ৩:১৩

Nobody is saying anything about the failings of the Magistrate. Magistrate was there to judge the situation. An under pressure doctor can forget to bring her ID. But she was wearing her apron with bane badge and her car had ID. She had a letter and most importantly she was giving her position. Magistrate failed here utterly. He should be sacked immediately. Police did there job correctly but as expected they were not intelligent. Choice of word by doctor was wrong and unusual. But people should not forget doctors are real under pressure. Verdict: Magistrate should pay for this as whole things happened for his failure.

A.R.Sarker
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ২:৫৫

নিজেদের মদ্ধে মারামারি বাজিয়ে দেয়ার জন্য শয়তান সবসময় প্রস্তুত থাকে।

নূর মোহাম্মদ এরফান
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ২:৫২

স্বরণ রাখা উচিৎ পুলিশ ডাক্তার মুক্তিযোদ্ধা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা কেউই আইনের উর্ধ্বে নন । নিজের status বুঝে আচরণ করা উচিৎ। কথায় বলে ব্যবহারে বংশের পরিচয়। যারা themometer ব্যবহার করেন পারদের দিকে তাকিয়ে দেখুন কত নিচে। এক কালে বলা হতো লজ্জা নারীর ভূষণ, তাতো দেশথকেই বিদায় প্রায়। পুলিশ যথেষ্ট স্ংযত আচরণ করেছেন ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য।

LISA
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ৩:৪০

রাজনীতির জন্য লকডাউন দিলে দিতে পারেন। গার্মেন্টস খোলাে রেখে আবার পুলিশের গনহারে মুভমেন্ট পাস দিয়ে বাস্তবে এমন ঢিলেঢালা লকডাউন দিয়ে কিছুই হচ্ছে না। এটাই কি কঠোর - সর্বাত্মক লকডাউন ভাই ?

Faruque Ahmed
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ১:২৯

আমি ভিডিওটি দেখেছি। আমি মনে করি ডাক্তার ভুল মনোভাব ছিল। বেয়াদব ছিল। পুলিশও। আমার চিন্তা করুন, লোকজন একজন ডাক্তারকে বলেছিল, একজন কোসাই , এই মনোভাবের কারণে

Kazi
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ১২:২৭

This is not time to argue. It is time to cooperate with each other to face the unknown enemy, covid 19. United effort is the root of success to defeat the covid

অন্যান্য খবর