× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘর্ষে চাদের প্রেসিডেন্ট নিহত

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৩ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ২০, ২০২১, মঙ্গলবার, ৭:৫৭ অপরাহ্ন

আফ্রিকার দেশ চাদের প্রেসিডেন্ট ইদ্রিস দেবি বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘর্ষে মারা গেছেন। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে এ ঘোষণা দিয়েছে সেনাবাহিনী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। তিনি গত ৩০ বছর ধরে চাদের ক্ষমতায় ছিলেন। সেনাবাহিনীর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, চাদকে রক্ষা করতে যুদ্ধের ময়দানে গিয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ইদ্রিস। দেশটির সীমান্ত এলাকায় বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘর্ষ চলছে। গত ১১ এপ্রিল চাদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে প্রায় ৮০ ভাগ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন তিনি।
যদিও নির্বাচন বর্জন করেছিলেন বিরোধীরা। তার বিরুদ্ধে ছিল দমন পীড়ণের অভিযোগও।
সর্বশেষ জানা গেছে, সেনাবাহিনী এখন দেশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আগামি ১৮ মাস সামরিক পরিষদ চাদ পরিচালনা করবে। ১৯৯০ সালে ইদ্রিস দেবি নিজেও সামরিক অভ্যুত্থান করে ক্ষমতায় এসেছিলেন। গত সপ্তাহে তিনি দেশটির উত্তরাঞ্চলে লিবিয়া সীমান্তে যান। সেখানে বিদ্রোহীদের দমনে লড়াই করছিল সেনাবাহিনী। এরমধ্যে সোমবার তিনি সামরিক বাহিনীর সঙ্গে মিলে বিদ্রোহী মোকাবেলায় নামেন বলে জানিয়েছে সেনাবাহিনী। এতেই তিনি গুরুতর আহত হন। তাকে রাজধানীতে আনার চেষ্টা চলে কিন্তু পথেই তার মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুর পর দেশের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে মিলিটারি কাউন্সিল। ইদ্রিসের ছেলে কাকা এখন এর দায়িত্বে আছেন।
এদিকে, বিদ্রোহীদের প্রায় ৩০০ জনকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে চাদের সেনাবাহিনী। আটক করা হয়েছে ১৫০ জনকে। সেনা নিহত হয়েছে ৫ জন, আহত হয়েছে ৩৬ জন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Nasrullah
২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার, ২:১১

I feel it's a cue by army.

Mustafa Ahsan
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ১০:৩৩

তিরিশ বৎসর ক্ষমতায় একজন ব্যক্তি কি করে থাকে ? আফ্রিকার মতো এশিয়াতেও কেউ কেউ ২০৪২ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সৈরাচারী সপ্নে বিভোর।এই ব্যক্তিও ফ্রান্সের সহযোগিতায় এবং মদদে মুসলিম জংগি নিধনের নাম করে ক্ষমতায় অবৈধ ভাবেই নামকাওয়াসতের নির্বাচন দিয়ে টিকে ছিল। পশ্চিমারা বৈধ অবৈধ গনতন্ত্র আছে না নাই বুঝে না শুধু বুঝে কোন সরকার যদি জংগির নামে নির্বিচারে নিজদেশে মুসলিম মারে আর ধরে তা হলে অনন্তকাল সেই কসাইদের তারা পালে এবং পুশে।এই ব্যক্তিও তার ব্যতিক্রম ছিল না।কংগো নাইজার চাঁদ সব দেশে একই অবস্তা বিরাজমান।

Abdur Rahim
২০ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ৮:২৯

ইতিহাস সাক্ষ্য দেয় কোন স্বৈরশাসকেরই পরিনতি ভাল হয়না।

অন্যান্য খবর