× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এখন মৃত্যুপুরী

বাংলারজমিন

ফরিদপুর প্রতিনিধি
২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা বিভাগ এখন মৃত্যুপুরী। করোনায় আক্রান্তরা এ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছেন। ফলে প্রতিদিনই মৃতের লাইন লম্বা হচ্ছে। জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর মধ্যে চারজনের মৃত্যু হেেয়ছে। যাদের মধ্যে মাদারীপুরের বীরমুক্তিযোদ্ধা খবিরুদ্দিন, রাজবাড়ীর আবদুল মান্নান, ঝিনাইদাহের ইসরাইল আলী জোয়ার্দার ও ফরিদপুর সদরের আবদুর রহমান। এ নিয়ে দ্বিতীয় দফায় হাসপাতাল থেকে ২৮ জন এবং মোট ১৪৮ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়াও অনেক রোগী হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা দেখে নিজ বাড়িতে অবস্থান করে বিনা চিকিৎসায় মারা গেছেন। যার দরুন মৃতের লাইন অনেক লম্বা হচ্ছে।
এনটিভির ফরিদপুর প্রতিনিধি সঞ্জীব দাস বলেন, আমি দু’বার আক্রান্ত হই। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের সেবার মান ভালো না। এখানে কোনো চিকিৎসাই দেয়া হয় না। এরূপ বাড়িতে চিকিৎসাসেবা নিচ্ছেন নিউজ/২৪ এর ফরিদপুর প্রতিনিধি খায়রুজ্জামান সোহাগ।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কয়েক বছর ধরে শুধুমাত্র অক্সিজেনের অভাবে সিটি স্ক্যান মেশিন নষ্ট, ছোটখাটো সমস্যায় এমআরআই মেশিন বন্ধ করে রেখেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। অভিযোগ রয়েছে হাসপাতালের পাশে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সঙ্গে বিশেষ সখ্যের কারণে এমনটি করা হচ্ছে। আইসোলেশন বিভাগের ১৬ বেডে মধ্যে শুরু থেকেই ৬ বেড খারাপ। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক সাইফুল ইসলাম সিটি স্ক্যান ও এমআরআই মেশিন নষ্টের কথা স্বীকার করে তা মেরামত করা হবে বলে জানান। এ ছাড়াও বিষয়টি সম্বন্ধে তিনি কিছুই জানেন না বলে এড়িয়ে যান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর