× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম সূচকে একধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ

শেষের পাতা

মানবজমিন ডেস্ক
২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম সূচকে আরো এক ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ। এ বছর ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ রয়েছে ১৫২তম অবস্থানে। গত বছর ছিল ১৫১তম স্থানে। প্রতি বছর এ সূচক প্রকাশ করে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ে বিশ্বব্যাপী কাজ করা ফ্রান্সভিত্তিক সংগঠন রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস (আরএসএফ)। এবার সূচকের প্রথম স্থানে রয়েছে নরওয়ে আর সবার থেকে খারাপ অবস্থায় আফ্রিকার দেশ ইরিত্রিয়া। গতকাল সূচকটি প্রকাশ করা হয়।
এ বছর তালিকায় প্রথমে থাকা দেশগুলো হচ্ছে- নরওয়ে, ফিনল্যান্ড, ডেনমার্ক ও কোস্টারিকা। আর সব থেকে খারাপ অবস্থা ইরিত্রিয়া, উত্তর কোরিয়া, তুর্কিমেনিস্তান, চীন ও জিবুতি।
আরো বলা হয়েছে, মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার মুসলিম প্রধান দেশগুলোতে প্রতিনিয়ত সাংবাদিকদের দমন-পীড়ন ও নির্যাতন করা হয়ে থাকে। এ ছাড়া গত বছরে ইরান, সৌদি আরব, মিশর ও সিরিয়ায় গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ব্যাপকভাবে খর্ব হয়েছে। এসব অঞ্চল এখন পর্যন্ত সাংবাদিকদের জন্য সবচেয়ে কঠিন ও ভয়ঙ্কর জায়গা।
আরএসএফ জানিয়েছে, ১৮০টি দেশের মধ্যে প্রায় তিন-চতুর্থাংশ দেশেই নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে সাংবাদিকতা করতে হয়। এতে আরো জানানো হয়, বিশ্বের ৭৩টি দেশে সাংবাদিকতা পুরোপুরি অথবা ভয়াবহভাবে প্রতিবন্ধকতার শিকার। এ ছাড়াও, ৫৯টি দেশে রয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ। করোনাভাইরাস মহামারির সময়ে অনেক দেশের সরকার সাংবাদিকতার ওপর দমন-পীড়নের মাত্রাও বাড়িয়েছে। সামগ্রিক প্রতিবেদন প্রকাশের সময় আরএসএফের সেক্রেটারি ক্রিস্টোফ ডিলোয়ার একটি বিবৃতি দেন। এতে তিনি বলেন, গুজবের বিরুদ্ধে সবচেয়ে কার্যকরী হলো সাংবাদিকতা। তবে দুর্ভাগ্যবশত প্রায়ই অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, কারিগরি এমনকি মাঝেমধ্যে সাংস্কৃতিক কারণেও এটি বাধার মুখে পড়ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর